বাংলাদেশ ব্যাংক পুরস্কার পেলেন আজিজুর রহমান ও মাহবুব হোসেন

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০৩:০৫, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:০৫, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৮

মৌলিক অর্থনীতি বিষয়ে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভারসিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, রিভারসাইডের প্রফেসর এমিরেটাস ড. আজিজুর রহমান খান এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ও ব্র্যাকের সাবেক নির্বাহী পরিচালক ড. মাহবুব হোসেনকে (মরণোত্তর) যৌথভাবে ‘বাংলাদেশ ব্যাংক পুরস্কার-২০১৭’ দেওয়া হয়েছে।
রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) মিলনায়তনে ড. আজিজুর রহমান খান এবং মরহুম ড. মাহবুব হোসেনের স্ত্রীর হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত । পুরস্কারপ্রাপ্তদের সম্মাননা হিসেবে প্রত্যেককে একটি করে স্বর্ণপদক, বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্রেস্ট এবং নগদ দুই লাখ টাকা দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।
অনুষ্ঠানে ড.আজিজুর রহমান এ দেশে প্রান্তিক জনগোষ্ঠির উন্নয়নের জন্য কাজ করা সংগঠন ‘উৎস বাংলাদেশ’কে পুরস্কারের অর্থ দান করেন। ড. রহমান উন্নত ও অনুন্নত অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি, তা বিতরণ ও বাজার ব্যবস্থার সঠিক তথ্য বিভিন্ন মৌলিক দিক আলোকপাত করে ব্যক্তব্য উপস্থাপন করেন। প্রয়াত ড. মাহবুব হোসেনের পক্ষে বক্তব্য রাখেন তার ছোট ভাই এস.এম ফারুক হোসেন।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফ’র চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জামান আহমদ, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস.এম. মনিরুজ্জামান, বিআইবিএমের মহাপরিচালক ড. তৌফিক আহমদ চৌধূরীসহ অনেকে।


পুরস্কারপ্রাপ্ত ড. আজিজুর রহমান উন্নয়ন অর্থনীতিবিদ। বর্তমানে তিনি আমেরিকার ইউনিভারসিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, রিভারসাইডের অর্থনীতি বিভাগের এমিরেটাস প্রফেসর হিসেবে কর্মরত। উন্নয়ন অর্থনীতিতে বিশেষ করে উন্নয়ন পরিকল্পনা, কৃষিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ও ভূমি সংস্কার এবং আয় বণ্টন ও অসমতা বিষয়ে গবেষণা কাজে তার অবদান অসামান্য। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর এবং ইংল্যান্ডের ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। কর্মজীবনে তিনি বিআইডিএস’র গবেষণা পরিচালক, বাংলাদেশ পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের প্রধান, লন্ডন স্কুল অব ইকনমিক্স এর প্রভাষক, আইএলও’র এশিয়ান এমপ্লয়মেন্ট প্রোগ্রামের পরিচালক এবং বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র ইকনমিস্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্যা অ্যাডভান্সমেন্ট অব সায়েন্স এর একজন ফেলো।
পুরস্কারপ্রাপ্ত ড. মাহবুব হোসেন ছিলেন বাংলাদেশের কৃষি অর্থনীতি গবেষণার পথিকৃৎ। তিনি গ্রামীণ অর্থনীতি ও শিল্প, কৃষিভিত্তিক কাঠামো, ভূমি সংস্কার, আয় বণ্টন, দারিদ্র্য বিমোচন কৃষিতে প্রযুক্তিগত উন্নয়ন, ক্ষুদ্র ঋণের প্রভাব ও প্রান্তিক কৃষকদের জীবনমান উন্নয়নে নিবিড় গবেষণা করে দেশে-বিদেশে ব্যাপক খ্যাতি অর্জন করেন। তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ও ইংল্যান্ডের ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। কর্মজীবনে তিনি বিআইডিএস এর মহাপরিচালক, আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (ইরি) সোস্যাল সায়েন্সেস ডিভিশনের অর্থনীতিবিদ ও প্রধান, ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি ও সামাজিক বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। কৃষির উন্নয়নে অবদানের জন্য তিনি ১৯৮৫ সালে বাংলাদেশ কৃষি অর্থনীতিবিদ সমিতি থেকে স্বর্ণপদক লাভ করেন। বরেণ্য এ কৃষি অর্থনীতিবিদ ২০১৬ সালের ৩ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন।
প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের নেতৃত্বে দেশের প্রথিতযশা চার জন অর্থনীতিবিদের সমন্বয়ে গঠিত একটি জুরি বোর্ড উল্লিখিত পুরস্কার প্রদানের জন্য ড. আজিজুর রহমান খান এবং ড. মাহবুব হোসেনকে (মরণোত্তর) যৌথভাবে মনোনিত করে।
উল্লেখ্য, এর আগে ২০০০ সালে অধ্যাপক রেহমান সোবহান, ২০০৯ সালে ড. নুরুল ইসলাম, ২০১১ সালে প্রফেসর ড. মুশররফ হোসেন এবং ২০১৩ সালে অধ্যাপক ড. মোজাফফর আহমদ (মরণোত্তর) এবং ড. স্বদেশ রঞ্জন বোসকে (মরণোত্তর) ‘বাংলাদেশ ব্যাংক পুরস্কার’ দেওয়া হয়।

/জিএম/এআর/

লাইভ

টপ