মাত্র ৫ মিনিটে খোলা যাবে ব্যাংক হিসাব

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:৫০, জানুয়ারি ০৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:১৭, জানুয়ারি ০৮, ২০২০

বাংলাদেশ ব্যাংক

দেশের ব্যাংকের সব গ্রাহককে ইলেক্ট্রনিক-নো ইয়োর কাস্টমার (ই-কেওয়াইসির)-এর আওতায় আনার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই পদ্ধতিতে মাত্র পাঁচ মিনিটেই গ্রাহকরা খুলতে পারবেন ব্যাংক হিসাব। এই হিসাব খুলতে প্রয়োজন হবে গ্রাহকদের আঙুলের ছাপের পাশাপাশি জাতীয় পরিচয়পত্র। এক বছরের মধ্যে এই পদ্ধতি অনুসরণ করতে সব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বুধবার (৮ জানুয়ারি) বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট থেকে এ সংক্রান্ত একটি গাইডলাইন তৈরি করে সার্কুলার আকারে জারি করা হয়েছে।



সার্কুলারটি দেশের সব ব্যাংকের পাশাপাশি বিমাকারী প্রতিষ্ঠান, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, স্টক ডিলার ও স্টক ব্রোকার, পোর্টফোলিও ম্যানেজার ও মার্চেন্ট ব্যাংকার, সিকিউরিটি কাস্টডিয়ান, সম্পদ ব্যবস্থাপক ও বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমতি নিয়ে ব্যবসা পরিচালনাকারী সব প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীর কাছে পাঠানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ২০২০ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে দেশের সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের হিসাব ই-কেওয়াইসির আওতায় আনতে হবে।
ইতোমধ্যে ইলেক্ট্রনিক কেওয়াইসি বা ই-কেওয়াইসি'র পাইলট প্রকল্পের মাধ্যমে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক হিসাব খোলা শুরু করেছে। এছাড়া, বিকাশও ই-কেওয়াইসির মাধ্যমে হিসাব খোলা শুরু করেছে।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে যেকোনও ব্যাংকে একটি হিসাব খুলতে গ্রাহককে বাধ্যতামূলক ‘নো ইউর কাস্টমার’ (কেওয়াইসি) পূরণ করতে হয়। ব্যাংকভেদে এই ফরম পূরণ করতে একজন গ্রাহকের ৫০-৭০টি প্রশ্নের উত্তর লিখতে হয়। এ জন্য প্রায় ৩০ মিনিট সময় ব্যয় হয়। এরপর ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে গ্রাহকের দেওয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করা হয় এবং এর সত্যতা নিশ্চিত করে খোলা হয় একটি ব্যাংক হিসাব। এ পদ্ধতিকে একটি হিসাব কয়েকদিন সময় লেগে যায়। কিন্তু ই-কেওয়াইসি চালু হলে অবসান ঘটবে এ পরিস্থিতির।
জানা গেছে, বর্তমানে ভারত, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই ডিজিটাল সেবা চালু আছে। ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে ই-কেওয়াইসি বিষয়ে একটি কমিটি গঠন করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

/জিএম/এমএনএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ