X
সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২
৩১ শ্রাবণ ১৪২৯

জ্বালানি তেলের মূল্য নির্ধারণের ক্ষমতা বিইআরসিকে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২০ জুন ২০২২, ১৫:১৫আপডেট : ২০ জুন ২০২২, ১৫:৩৫

সরকারের জ্বালানি বিভাগের মাধ্যমে তেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়েছে কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)। ভোক্তা অধিকার নিয়ে কাজ করা সংগঠনটি দাবি করেছে, মূল্য বৃদ্ধির এই প্রক্রিয়া বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) আইন মেনে করতে হবে। জ্বালানি বিভাগের এই দাম বৃদ্ধির কোনও আইনি স্বীকৃতি নেই। 

সোমবার (২০ জুন) দুপুরে অনলাইনে এক সংবাদ সম্মেলনে এই প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ক্যাবের জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম। এসময় স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন, অধ্যাপক বদরুল ইমাম, এমএম আকাশ ছাড়াও ক্যাবের সদস্যরা সংবাদ সম্মেলনে যুক্ত ছিলেন।

বিশ্ববাজারে তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার দাবি করছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) প্রতিদিন ১০০ কোটি টাকা লোকসান দিচ্ছে। জ্বালানি তেলের মূল্য না বাড়িয়ে এই অর্থের সংস্থান কীভাবে হবে জানতে চাইলে অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, আমরা জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি করা না করার বিষয়ে কথা বলছি না। আমরা বলছি সরকারের আইন মেনে স্বচ্ছতার ভিত্তিতে এটি করতে হবে। এজন্য বিইআরসিতে শুনানি করে দাম বাড়াতে হবে। 

তিনি বলেন, ‘দিনে ৯০ কোটি টাকা লোকসানের অজুহাতে এই দাম বাড়ানো হচ্ছে। এতে ভোক্তারা চিন্তিত। বিআরসি আইনের ২২ এবং ৩৪ ধরা মতে, জ্বালানির দাম বৃদ্ধির দায়িত্ব তাদের। ২৭ ধারা মতে বিপিসি বিইআরসির লাইসেন্সি। উচ্চ আদালতের নির্দেশে বিইআরসি এলপিজির মূল্য নির্ধারণ করা হচ্ছে। পেট্রোলিয়াম জাত পণ্যের দাম বিইআরসি নির্ধারণ করলে বোঝা যেত বিপিসি লিটার প্রতি কত বেশি দাম নিচ্ছে।

জ্বালানি তেলের লুণ্ঠন দূর করতে হলে বিইআরসির মাধ্যমে দাম নির্ধারণের কোন বিকল্প নেই বলে তিনি মনে করেন। 

অধ্যাপক শামসুল আলম আরও বলেন, গত বছর ৩ অক্টোবর ডিজেল এবং কেরোসিনের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ক্যাব উচ্চ আদালেত রিট পিটিশন দায়ের করেছে। এই মামলা শুনানি চলমান থাকাকালে আবার বিপিসি নিজেই ফার্নেস অয়েলের দাম বাড়িয়েছে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে বলা যায়, জ্বালানি খাতে আইনের শাসন অচল। 

জ্বালানি বিভাগ এবং বিপিসির পরিবর্তে সব ধরনের জ্বালানির দাম বিইআরসির মাধ্যমে বৃদ্ধি করতে হবে দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, এছাড়া বিপিসির সকল হিসাব মহা হিসাব নিরীক্ষকের মাধ্যমে অডিট করাতে হবে। নিজস্ব উদ্যোগে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করাতে জ্বালানি বিভাগের সিনিয়র সচিবসহ সকলকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

রাষ্ট্র অবৈধভাবে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করে অভিযোগ করেন অধ্যাপক বদরুল ইমাম। তিনি বলেন, বিইআরসি থাকতে রাষ্ট্র কীভাবে আইন অমান্য করে জ্বালানির দাম বৃদ্ধি করে। আমরা অনেক দিন ধরে বলে আসছিলাম রাষ্ট্র আমাদের কাছ থেকে বাড়তি গ্যাসের বিল আদায় করে। এখন বিইআরসি সেটি মেনে নিয়েছে। আগে আমাদের কাছ থেকে ৭৭ ঘনমিটার গ্যাসের দাম নেওয়া হতো। এখন বিইআরসি ৬০ ঘনমিটারে নামিয়ে এনেছে। 

তিনি বলেন, বিপিসির বলা উচিত তারা লুণ্ঠন করছে না।

এমএম আকাশ বলেন, স্বচ্ছ আইনের মাধ্যমে দাম নির্ধারণ করতে হবে। বিইআরসিতে সেই আইন রয়েছে। কিন্তু বিইআরসি কি কোন দাম নির্ধারণ করেছে। যদি না করে থাকে তাহলে বিপিসি কিভাবে দাম নির্ধারণ করে। বিপিসির মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে আমরা আদালতে গেছি। আদালত তাদের প্রশ্ন তুলেছে। এর ভিত্তিতে সরকার তাদের কোন প্রশ্ন করেছে, করেনি। কারণ এটি সরকারি প্রতিষ্ঠান। সরকার যদি নিজেই নিজের আইন ভাঙ্গে তাহলে তারা একটা আইন করুক ‘সরকার যা খুশি তাই করতে পারবে।‘

বিপিসি বাস ট্রাক-মালিক অ্যাসোসিয়েশন কি না- প্রশ্ন তুলে স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, ‘বিপিসি কীভাবে আইন ভাঙে। তারা সরকারের মধ্যে আরেকটি সরকার করেছে। এখন সংবাদমাধ্যমের সরকারের কাছে জানতে চাওয়া উচিত কেন তারা আইন ভাঙছে।’ 

সংবাদ সম্মেলনে ক্যাব চারটি দাবি তোলে। তাদের দাবিগুলো হচ্ছে- জ্বালানি বিভাগ বা বিপিসির পরিবর্তে ডিজেল, ফার্নেসওয়েল এবং কেরোসিনের মূল্য পরিবর্তন বা সমন্বয় স্বার্থ সংশ্লিষ্ট পক্ষগণের শুনানির ভিত্তিতে বৈধভাবে বিইআরসি কর্তৃক নিশ্চিত করতে হবে। সেই সঙ্গে কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল দ্বারা বিপিসি'র আন্তর্জাতিক বাজার থেকে তরল জ্বালানি ক্রয় সংক্রান্ত বিষয়াদি নিবিড় পর্যালোচনা করাতে হবে।

জ্বালানি খাতে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে সকল লাইসেন্সিদের পরিচালনা বোর্ড তথা প্রশাসন থেকে জ্বালানি বিভাগসহ সকল মন্ত্রণালয়ের সকল কর্মকর্তাদের অবমুক্ত করতে হবে। আর এ-সব কর্মকর্তা কর্তৃক লাইসেন্সিদের নিকট থেকে গৃহীত আর্থিক সুবিধাদি অবৈধ বিধায় গৃহীত সমুদয় অর্থ তাদের নিকট থেকে আদায় করতে হবে বলেও দাবি জানায় সংগঠনটি।

আর বিইআরসি আইন লঙ্ঘন করে ডিজেল ও কেরোসিনের মূল্য নির্ধারণের অপরাধে জ্বালানি বিভাগের সংশ্লিষ্ট সচিব, সিনিয়র সচিব (ভূতপূর্বসহ) এবং বিপিসি'র চেয়ারম্যান (ভূতপূর্বসহ)- এদের বিইআরসি আইনের ৪২ ধারা মতে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের আওতায় আনার দাবিও জানান ক্যাব নেতারা।

/এসএনএস/ইউএস/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
কাঁথায় মুড়িয়ে খাতাগুলো নেন শেখ হাসিনা
কাঁথায় মুড়িয়ে খাতাগুলো নেন শেখ হাসিনা
পারমাণবিক কেন্দ্রে বিপর্যয়ের ঝুঁকি ‘প্রতিদিন বাড়ছে’: ইউক্রেন
পারমাণবিক কেন্দ্রে বিপর্যয়ের ঝুঁকি ‘প্রতিদিন বাড়ছে’: ইউক্রেন
১১ ঘণ্টা পর মিটারগেজ লাইনে ট্রেন চলাচল শুরু
গাজীপুরে বগি লাইনচ্যুত১১ ঘণ্টা পর মিটারগেজ লাইনে ট্রেন চলাচল শুরু
কীভাবে হয়েছিল প্রতিবাদ?
কীভাবে হয়েছিল প্রতিবাদ?
এ বিভাগের সর্বশেষ
আট মাস পর দাম বাড়লেও লোকসান রয়েই গেছে
আট মাস পর দাম বাড়লেও লোকসান রয়েই গেছে
জ্বালানির দাম বাড়ানো ছাড়া কিছু করার ছিল না: প্রতিমন্ত্রী
জ্বালানির দাম বাড়ানো ছাড়া কিছু করার ছিল না: প্রতিমন্ত্রী
সিটিতে বাসের ভাড়া বাড়তে পারে ১৩%, দূরপাল্লায় ১৬%
সিটিতে বাসের ভাড়া বাড়তে পারে ১৩%, দূরপাল্লায় ১৬%
জ্বালানি তেলের দাম বাড়লো
জ্বালানি তেলের দাম বাড়লো
দেশে জ্বালানি তেলের ঘাটতি নেই
দেশে জ্বালানি তেলের ঘাটতি নেই