সেকশনস

বাবার হাত ধরে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানতে সামরিক জাদুঘরে শিশুরা

আপডেট : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ২০:১৩

 

বাবা মো. লিপুর সঙ্গে শিশু  রিফাত ও সিফাত এই সময়ের শিশু-কিশোররা মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানতে আগ্রহী। তাদের এই আগ্রহ দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। তারা মুক্তিযুদ্ধ ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের ইতিহাস জানতে চায়। এই শিশুরা অভিভাবকদের কাছে যেমন মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন ঘটনা জানতে চায়, তেমনি দেখতেও চায় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত বিভিন্ন স্থাপনা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যবহৃত পোশাক ও যুদ্ধাস্ত্র। এমন আগ্রহ থেকেই শনিবার (১৬ ডিসেম্বর) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে মা-বাবা ও অভিভাবকদের হাত ধরে শিশুরা আসে বিজয় সরণিতে অবস্থিত সামরিক জাদুঘরে। তারা ঘুরে ঘুরে দেখে দেখে মহান মুক্তিযুদ্ধে ব্যবহৃত সামরিক সরঞ্জাম। মা-বাবা-অভিভাবকের কাছে শোনে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস।

শনিবার সামরিক জাদুঘরে আসা শিশুদের দু’জন—রিফাত ও সিফাত। এই দুই শিশু তাদের বাবা মো. লিপুর সঙ্গে আসে। রিফাত রাজধানীর একটি স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র, সিফাত পড়ে একটি নুরানি মাদ্রাসায়।

সামরিক জাদুঘর দেখতে এসেছে শিশু মো. সিয়াম
বিজয় দিবসে সামরিক জাদুঘরে এসে নিজের খুশির কথা জানালো রিফাত। ভাঙা ভাঙা গলায় বলে, ‘বিজয় দিবস উপলক্ষে স্কুল বন্ধ। তাই বাবার সঙ্গে জাদুঘর দেখতে এসেছি। এখানে এসে অনেক ভালো লাগছে।’ কী কী দেখেছে সে—জানতে চাইলে ঝটপট উত্তর তার—‘বাবা মুক্তিযুদ্ধের সময় সামরিক বাহিনীর ব্যবহার করা অনেক কামান দেখিয়েছেন। শহীদ সামরিক মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যবহার করা জামা-কাপড়সহ অনেক কিছু দেখেছি।’

সন্তানদের নিয়ে সামরিক জাদুঘরে আসার কারণ জানতে চাইলে মো. লিপু বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন,  ‘আমি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করি। বিজয় দিবসে সন্তানদের নিয়ে ঘুরতে এসেছি। তাদের দেখাতে এনেছি মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন স্মৃতিচিহ্ন। আমি চাই, তারা যেন এখন থেকেই মহান মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে ও বুঝতে শেখে।’ বাবা হিসেবে সন্তানকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানানোকে নিজের দায়িত্ব বলে মনে করেন তিনি।

শুধু সিফাত-রিফাত নয়, তাদের মতো আরও অনেককে এই  সামরিক জাদুঘরে নিয়ে এসেছেন তাদের মা-বাবা বা পরিবারের অন্য সদস্যরা। যেন শিশুরা এখন থেকেই জানতে পারে, মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস। তারা যেন জানতে পারে, কিভাবে দেশ স্বাধীন হয়েছিল, মুক্তিযুদ্ধে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি সামরিক বাহিনীর কী অবদান রেখেছিল।  

শিশুকন্যা আঁখি আকতারকে নিয়ে এসেছেন মোহাম্মদ সাবু মিয়া

মোহাম্মদ সাবু মিয়া তার শিশুকন্যা আঁখি আকতারকে নিয়ে এসেছেন। তিনি বলেন, ‘৯ মাস যুদ্ধের বিনিময়ে এ দেশে স্বাধীন হয়েছে। এর আগে মেয়েকে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর ঘুরিয়ে নিয়ে এসেছি। এখন সামরিক জাদুঘরে এনেছি। যেন সে এখন থেকেই মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে পারে। হয়তো সে এখন তেমন কিছু মনে রাখতে পারবে না। কিন্তু বড় হলে ঠিকই নিজ উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হবে।’

জানতে চাইলে আঁখি বলে, ‘অনেক ভালো লাগছে।’

জামিয়া মাদানিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী আমিনুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান ও মাহফুজ

বারিধারার জামিয়া মাদানিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী আমিনুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান, মাহফুজ সামরিক জাদুঘর দেখতে এসেছেন। তারা বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে বইতে অনেক পড়েছি।  বাস্তবে দেখতে জাদুঘরে এসেছি। এখানে ১৯৭১ সালের সামরিক বাহিনীর ব্যবহার করা বিভিন্ন অস্ত্র, গাড়ি রাখা হয়েছে। আমরা ঘুরে ঘুরে এসব দেখেছি। ’

একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের গাড়ি চালান মো. শহীদুল ইসলাম। ছেলে মো. সিয়ামকে নিয়ে এসেছেন সামরিক জাদুঘরে। শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘বাবা আমার অফিস ও ছেলের স্কুল বন্ধ আজ।  এখানে এসে মুক্তিযুদ্ধে সেনাবাহিনীর কী ভূমিকা ছিল, তা ছেলেকে জানিয়েছি। ঘুরে ঘুরে তাকে এই জাদুঘর দেখাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, ১৯৮৭ সালে প্রথম সামরিক জাদুঘরটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৯৯ সালে জাদুঘরটি স্থায়ীভাবে বিজয় সরণিতে স্থানান্তর করা হয়। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় সেনাবাহিনীর কমান্ডারদের ব্যাজ, পোশাক, অস্ত্র, গোলাবারুদ, ক্যানন, এন্টি এয়ারক্রাফ্ট গান ও যোগাযোগের জন্য ব্যবহৃত বিভিন্ন যানবাহন জাদুঘরটিতে রক্ষিত রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের পর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া বিভিন্ন যানবাহন ও অস্ত্রও এখানে সংরক্ষিত রয়েছে।

 

/এমএনএইচ/

সম্পর্কিত

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ

শাহবাগে ছুরিকাঘাতে একজন নিহত

শাহবাগে ছুরিকাঘাতে একজন নিহত

‘দেশে দক্ষ জনবল থাকলে বিদেশি জনবল নিয়োগ দেওয়া যাবে না’

‘দেশে দক্ষ জনবল থাকলে বিদেশি জনবল নিয়োগ দেওয়া যাবে না’

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

কদমতলী থেকে বিপুল পরিমাণ চোরাই স্বর্ণ উদ্ধার, গ্রেফতার ৫

কদমতলী থেকে বিপুল পরিমাণ চোরাই স্বর্ণ উদ্ধার, গ্রেফতার ৫

এবার যুক্তরাজ্য থেকে এলে ৭ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন

এবার যুক্তরাজ্য থেকে এলে ৭ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন

দেশে দারিদ্র্যের হার বেড়েছে: সানেম

দেশে দারিদ্র্যের হার বেড়েছে: সানেম

অসুস্থ বিএনপি নেতাকে দেখতে গেলেন মন্ত্রী

অসুস্থ বিএনপি নেতাকে দেখতে গেলেন মন্ত্রী

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

আদালতের মাধ্যমে পরিবারের কাছে ফিরে গেলো সেই সাহসী কিশোরী

‘চলচ্চিত্রকে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা ধারণ করতে হবে’

‘চলচ্চিত্রকে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা ধারণ করতে হবে’

‘মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতি না ফেরালে দেশের অস্তিত্ব রক্ষা কঠিন’

‘মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতি না ফেরালে দেশের অস্তিত্ব রক্ষা কঠিন’

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

সর্বশেষ

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ

যশোরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে পুলিশের জিডিতে নিন্দার ঝড়

যশোরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে পুলিশের জিডিতে নিন্দার ঝড়

ব্রাজিলে ব্যাপকভাবে কমেছে বলসোনারোর সমর্থন: জরিপ

ব্রাজিলে ব্যাপকভাবে কমেছে বলসোনারোর সমর্থন: জরিপ

শাহবাগে ছুরিকাঘাতে একজন নিহত

শাহবাগে ছুরিকাঘাতে একজন নিহত

পিকে হালদার কাণ্ডে যে ৮৩ জনকে নিয়ে তদন্ত করছে দুদক

পিকে হালদার কাণ্ডে যে ৮৩ জনকে নিয়ে তদন্ত করছে দুদক

সেনাবাহিনীতে চাকরির নামে অর্থ আত্মসাৎ, আটক ৩

সেনাবাহিনীতে চাকরির নামে অর্থ আত্মসাৎ, আটক ৩

আটক হলেন রাশিয়ার বিরোধী দলীয় নেতা নাভালনির স্ত্রী

আটক হলেন রাশিয়ার বিরোধী দলীয় নেতা নাভালনির স্ত্রী

গোপালগঞ্জের মানুষের অভাব থাকবে না: শেখ ফজলুল করিম সেলিম

গোপালগঞ্জের মানুষের অভাব থাকবে না: শেখ ফজলুল করিম সেলিম

‘দেশে দক্ষ জনবল থাকলে বিদেশি জনবল নিয়োগ দেওয়া যাবে না’

‘দেশে দক্ষ জনবল থাকলে বিদেশি জনবল নিয়োগ দেওয়া যাবে না’

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

কদমতলী থেকে বিপুল পরিমাণ চোরাই স্বর্ণ উদ্ধার, গ্রেফতার ৫

কদমতলী থেকে বিপুল পরিমাণ চোরাই স্বর্ণ উদ্ধার, গ্রেফতার ৫

এবার যুক্তরাজ্য থেকে এলে ৭ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন

এবার যুক্তরাজ্য থেকে এলে ৭ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

গৃহহীনদের স্বপ্ন হলো সত্যি

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

চাল আমদানিতে এলসি খোলার সময় বেড়েছে

আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো

মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো

একজন স্বাস্থ্যকর্মীকে দিয়েই ২৭ জানুয়ারি শুরু হচ্ছে করোনার টিকা প্রয়োগ

একজন স্বাস্থ্যকর্মীকে দিয়েই ২৭ জানুয়ারি শুরু হচ্ছে করোনার টিকা প্রয়োগ

সংক্রমণ কমছে, করোনা হটানোর এটাই সুযোগ!

সংক্রমণ কমছে, করোনা হটানোর এটাই সুযোগ!

উপমহাদেশের স্বার্থে পাকিস্তানের স্বীকৃতি জরুরি

উপমহাদেশের স্বার্থে পাকিস্তানের স্বীকৃতি জরুরি

ঘর 'আপন' হওয়ার আগে আগলে রাখছেন তারা

ঘর 'আপন' হওয়ার আগে আগলে রাখছেন তারা


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.