সেকশনস

তাসকিনের জন্মদিনের উপহার ‘ভাড়াটিয়ার বাড়িভাড়া মওকুফ’

আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০২০, ১৯:২০

তাসকিন ও তার বাবা বাংলাদেশের ফাস্ট বোলার তাসকিন আহমেদের বাবা আবদুর রশিদ মঙ্গলবার মোহাম্মদপুরের স্থানীয় কিছু অভাবী মানুষকে ত্রাণ দিয়ে এসে বাসায় বিশ্রাম নিচ্ছিলেন।  তাসকিন তখনই বাবাকে বলে ভাড়াটিয়াদের এক মাসের বাড়িভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন। বাবার কাছ থেকে এটাই নাকি তার জন্মদিনের উপহার!

করোনাভাইরাস সৃষ্ট পরিস্থিতিতে অনেকে কর্মহীন হয়ে পড়ায় রাজধানীর ভাড়াটিয়াদের বাড়িভাড়া মওকুফ করার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র  আতিকুল ইসলাম। মেয়রের কথায় প্রভাবিত হয়েই তাসকিন বাবাকে দিয়ে মহৎ একটি কাজ করিয়ে নিলেন। 

মোহাম্মদপুরে কয়েক বছর আগে অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন তাসকিন। বর্তমানে সেখানেই থাকছেন তারা। এছাড়া তাসকিনের বাবার মোহাম্মদপুর জাকির হোসেন রোডে এবং  বসিলায় দুটি বাড়ি আছে। সেই বাড়িতে ভাড়া থাকেন ১১টি পরিবার।  সবগুলো পরিবারের একমাসের ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন তাসকিনের বাবা।

ছোটবেলার তাসকিনের বহু আবদারে রেগে যেতেন। কিন্তু মঙ্গলবার দুপুরে মোহাম্মদপুরের বাসায় ছেলের আবদার শুনে একটুও রাগ করেননি তিনি। বরং খুশি মনে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন জাতীয় দলের পেসারের বাবা, ‘মোহাম্মদপুরে কিছু ত্রাণ দিয়ে আসার পর বাসায় বিশ্রাম নিচ্ছিলাম। তাসকিন এসে বলে, আব্বু একটা কথা রাখবা? আমি বললাম, বলো। সে বলে তুমি তোমার ভাড়াটিয়াদের জন্য এক মাসের ভাড়া মওকুফ করে দাও। আমি বললাম, তুমি খুশি হলে দেবো। আমার যেহেতু সামর্থ্য আছে, আমি করলাম। ছেলে তো আমাদের একটাই, ওর জন্য তো করতেই হবে। ও তো আর খারাপ কিছু আবদার করেনি। ভালো একটা জিনিস চেয়েছে, আবদার না রেখে কি আর পারা যায়? এরপর সে নিজ থেকেই বলে, এটা তার জন্মদিনের গিফট।’

আগামী শুক্রবার ২৫ বছর পূর্ণ হবে তাসকিনের। প্রতিটি জন্মদিনেই ক্রিকেটার ছেলেকে নানারকম উপহার দেন আবদুর রশিদ।তবে এবারের জন্মদিনে বাবার কাছে ব্যতিক্রমী এক উপহার তাসকিন নিজেই চেয়ে নিলেন। তাসকিন বললেন, ‘সাধারণ মধ্যবিত্ত অনেক পরিবার আছে তারা কারো কাছেই কিছু চাইতে পারে না। বাড়ি ভাড়া বাবদ আমার আব্বু এক লাখ টাকার মতো পান। আব্বুকে অনুরোধ করি যে এবার আমার জন্মদিনের উপহার হিসেবে সেই ভাড়া যেন তিনি মাফ করে দেন। আব্বা আমার কথায় রাজি হয়ে যান।’

তাসকিনের বাবা আবদুর রশিদ ছেলের কথায় এই কাজটা করতে পেরে দারুণ তৃপ্ত, ‘কারও জন্য কিছু করতে পারার অনুভূতি অন্যরকম। আমার খুব ভালো লাগছে। নিজেকে খুব হালকা মনে হয়। তৃপ্তি কাজ করে। আমি মনে করি সমাজের সামর্থ্যবানদের আরও এগিয়ে আসা উচিত। তাহলেই আমরা সবাই মিলে করোনা মোকাবিলা করতে পারবো।’

 

 

/আরআই/পিকে/

সম্পর্কিত

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

শ্রীলঙ্কাকে তাদেরই বানানো ফাঁদে ফেললো ইংল্যান্ড

শ্রীলঙ্কাকে তাদেরই বানানো ফাঁদে ফেললো ইংল্যান্ড

ভেতরের কথা বাইরে আসায় বিরক্ত সাকিব

ভেতরের কথা বাইরে আসায় বিরক্ত সাকিব

মেয়েদের আন্তর্জাতিক ম্যাচের আশা দেখালেন বাফুফে সভাপতি

মেয়েদের আন্তর্জাতিক ম্যাচের আশা দেখালেন বাফুফে সভাপতি

চোটের ধরন ভালো মনে হচ্ছে না সাকিবের

চোটের ধরন ভালো মনে হচ্ছে না সাকিবের

স্ত্রী ও অনাগত সন্তান হারালেন গোলকিপার সারোয়ার

স্ত্রী ও অনাগত সন্তান হারালেন গোলকিপার সারোয়ার

জিমি-শিতুলদের ক্যাম্প বন্ধ ঘোষণা

জিমি-শিতুলদের ক্যাম্প বন্ধ ঘোষণা

এখন অস্ট্রেলিয়ার পরই বাংলাদেশ

এখন অস্ট্রেলিয়ার পরই বাংলাদেশ

সর্বশেষ

কলাবাগানে কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা: প্রতিবেদন ১১ ফেব্রুয়ারি

কলাবাগানে কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা: প্রতিবেদন ১১ ফেব্রুয়ারি

গ্যাটকো মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছালো

গ্যাটকো মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছালো

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের প্যারেডে বাংলাদেশের কন্টিনজেন্ট 

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের প্যারেডে বাংলাদেশের কন্টিনজেন্ট 

মাদক ও অস্ত্র মামলায় গোল্ডেন মনিরের বিরুদ্ধে চার্জশিট

মাদক ও অস্ত্র মামলায় গোল্ডেন মনিরের বিরুদ্ধে চার্জশিট

তিস্তা জার্নাল । পর্ব ৭

তিস্তা জার্নাল । পর্ব ৭

নওগাঁ পৌর নির্বাচনে ত্রিমুখী লড়াই

নওগাঁ পৌর নির্বাচনে ত্রিমুখী লড়াই

কোটি টাকার ফগলাইট যেন কুপির বাতি

কোটি টাকার ফগলাইট যেন কুপির বাতি

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

সাড়ে ৭ ঘণ্টা পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল শুরু

সাড়ে ৭ ঘণ্টা পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল শুরু

ট্রাম্পের অভিশংসন বিচারে সিনেটে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল

ট্রাম্পের অভিশংসন বিচারে সিনেটে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল

মাদকসহ ভাই-বোন পু‌লি‌শের জা‌লে

মাদকসহ ভাই-বোন পু‌লি‌শের জা‌লে

খুলনায় একদিনে করোনায় তিন জনের মৃত্যু

খুলনায় একদিনে করোনায় তিন জনের মৃত্যু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.