X

সেকশনস

উচ্চমূল্য ঠেকাতে বাজারে আসছে শেরপুরের সবজি

আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৪৩

শেরপুরের একটি লাউক্ষেত

বরাবরই সবজির বাম্পার ফলন ফলিয়ে দেশের বাজার স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ ভূমিকা রাখতো শেরপুর জেলার চাষিরা। তাদের চেষ্টা থাকতো আগাম ফসল ফলিয়ে নতুন ফসলের বাজারটা ধরা। ফলে বাড়তি দাম পেয়ে উজ্জীবিত থাকতেন কৃষকরা। তবে বন্যার কারণে খাদ্য উদ্বৃত্ত জেলা শেরপুরে এবছর সবজি উৎপাদন মারাত্মকভাবে ব্যহত হয়েছে। এবার তাই আগাম সবজি বাজারে খুব একটা আনতে পারেননি শেরপুরের কৃষকরা। তবে তারা সাহস হারাননি। বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পর আবারও চেষ্টা করেছেন এবং নানা বাধা পেরিয়ে সবজি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক রাখতে চাষিরা মাঠে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছেন। স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন, আগামী ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে দেশের বাজারে পর্যায়ক্রমে যোগ হবে এই জেলার দুই লাখ ৯৯ হাজার ৬৭০ মেট্রিক টন সবজি। এত বিপুল সবজি ধারাবাহিকভাবে আসায় বাজার হয়ে যাবে স্বাভাবিক।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্র জানায়, এবার রবি মৌসুমে  শেরপুর সদর উপজেলাসহ নকলা, নালিতাবাড়ী, ঝিনাইগাতী ও শ্রীবরদীর ৮ হাজার ৫শ ৬২ হেক্টর জমিতে সবজি আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে ১ হাজার ৯২০ হেক্টর জমিতে  বেগুন আবাদ করা হয়েছে। যার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৭ হাজার ২০০ মে. টন। এছাড়াও উৎপাদিত হবে হাজার হাজার টন টমেটো, সিম, ফুলকপি, বাঁধাকপি, মুলা, লাউ, চাল কুমড়া, মিষ্টি কুমড়া, পটল, বরবটি, শসা, ঝিঙ্গা, ডাঁটা, গোল আলু, কাঁকরোল, গাজর, লাল শাক, চিচিঙ্গা, পুঁই শাক, গিমা কলমি, পালং শাক, করলা, ধনে পাতা, খিরা, মটরশুঁটি, পেঁপে, ধুন্দল, সজনে, মুখূকচু, গাছ আলু, ওলকচু, পঞ্চমুখী, পানি কচু, কাঁচামরিচ, শুকনা মরিচ, পেঁয়াজ, রসুন, আদা, হলুদ। 

লাউয়ের ক্ষেতের যত্ন নিচ্ছেন কৃষক

শ্রীবর্দীর চৈতাজানি গ্রামের কৃষক আমিনুল ইসলাম ও উমেদ আলী বলেন, প্রতিবছর অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে আগাম সবজি উৎপাদন করে স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে ঢাকাসহ নানা জেলায়  শেরপুরের সবজি সরবরাহ হতো। কিন্তু গেলো বন্যার কারণে  তাদের প্রস্তুত করা জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পরে বন্যা পরবর্তী সময়ে তারা ঘুরে দাঁড়াতে চেষ্টা করলেও সবজি ক্ষেতে দেখা দেয় পোকা আর ছত্রাকের আক্রমণ। যে কারণে নির্দিষ্ট সময়ে বাজারে পর্যাপ্ত পরিমাণ শীতকালিন সবজি সরবরাহে ব্যর্থ হন তারা। এ সময় স্থানীয়দের নির্ভর করতে হয় জেলার সীমান্তবর্তী তিন উপজেলার গারো পাহাড়ে উৎপাদিত সবজির ওপর।

শেরপুর সদর উপজেলার কৃষক শাহজাহান, খোকন মিয়া, রুবেল ও ফকির আলী বলেন, বন্যার কারণে তারা পিছিয়ে পড়লেও উৎপাদন লক্ষমাত্রা ঠিক রাখতে কাজ করে যাচ্ছেন। অল্প কিছুদিনের মধ্যেই তারা ফুলকপি, বাঁধাকপি, লাউ, শশা, করলা, শিম, চিচিঙ্গা, বরবরটি, বেগুনসহ বিভিন্ন প্রকারের শাক সবজি বাজারজাত করতে পারবেন।

কৃষকের যত্নে পুষ্ট হচ্ছে কপির ক্ষেত।

অন্যদিকে, স্থানীয় পাইকার রজব আলী বলেন, হঠাৎ করে সবজির বাজার চড়া হয়ে যাওয়ায় তিনি ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতির শিকার হয়েছেন।

আরেক পাইকার মজিবর মিয়া বলেন, প্রতিবছর শীতকালীন সবজি বিক্রি করে মোটামুটি ভালোই লাভ হতো। কিন্তু, এবার তার ১ লাখ ১৭ হাজার টাকা ক্ষতি হয়েছে। বন্যার কারণে সবজি সরবরাহ স্বাভাবিক পর্যায়ে না থাকায় তিনি ওই ক্ষতির শিকার হন বলে দাবি করেন।

শ্রীবরদী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা হুমায়ুন দিলদার বলেন, আগামী ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে দেশের বাজারে পর্যায়ক্রমে যোগ হবে এই জেলার দুই লাখ ৯৯ হাজার  ৬৭০ মেট্রিক টন সবজি। তখন সরবরাহ স্বাভাবিক হলে দাম সহনীয় পর্যায়ে চলে আসবে।

 

/টিএন/

সম্পর্কিত

‘জীবনেও ভাবি নাই পাক্কা ঘরে ঘুমামু’

‘জীবনেও ভাবি নাই পাক্কা ঘরে ঘুমামু’

নেত্রকোনায় মুজিববর্ষের  ঘর নির্মাণে  অনিয়মের অভিযোগ

নেত্রকোনায় মুজিববর্ষের ঘর নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

পৃথক দুর্ঘটনায় নারীসহ নিহত ২

পৃথক দুর্ঘটনায় নারীসহ নিহত ২

বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণের দাবি

বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণের দাবি

বকশীগঞ্জে ট্রাক্টরের চাপায় স্কুলছাত্র নিহত

বকশীগঞ্জে ট্রাক্টরের চাপায় স্কুলছাত্র নিহত

সরিষাবাড়ীতে নসিমন খাদে পড়ে চালক নিহত

সরিষাবাড়ীতে নসিমন খাদে পড়ে চালক নিহত

দ্বিতীয় দফার পৌর নির্বাচন: আ. লীগ ৪৫, বিএনপি ৪, স্বতন্ত্র ৮

দ্বিতীয় দফার পৌর নির্বাচন: আ. লীগ ৪৫, বিএনপি ৪, স্বতন্ত্র ৮

ছেলেকে হত্যার অভিযোগে বাবা আটক

ছেলেকে হত্যার অভিযোগে বাবা আটক

অপহরণের তিন দিন পর শিশুর লাশ উদ্ধার

অপহরণের তিন দিন পর শিশুর লাশ উদ্ধার

আলোচিত সেই অধ্যক্ষ কারাগারে

আলোচিত সেই অধ্যক্ষ কারাগারে

ঘুণে খাচ্ছে গারো পাহাড়ের তাঁত

ঘুণে খাচ্ছে গারো পাহাড়ের তাঁত

সর্বশেষ

নতুন ঘর পেয়ে খুশি সুকজান বেগম

নতুন ঘর পেয়ে খুশি সুকজান বেগম

‘জীবনেও ভাবি নাই পাক্কা ঘরে ঘুমামু’

‘জীবনেও ভাবি নাই পাক্কা ঘরে ঘুমামু’

ঘর 'আপন' হওয়ার আগে আগলে রাখছেন তারা

ঘর 'আপন' হওয়ার আগে আগলে রাখছেন তারা

খুবির অস্থিতিশীল পরিবেশ প্রসঙ্গে সাবেক ২৭৩ শিক্ষার্থীর উদ্বেগ

খুবির অস্থিতিশীল পরিবেশ প্রসঙ্গে সাবেক ২৭৩ শিক্ষার্থীর উদ্বেগ

বিদ্যুতের লাইন ছিঁড়ে ঘরে আগুন, প্রতিবন্ধী শিশুসহ নিহত ৪

বিদ্যুতের লাইন ছিঁড়ে ঘরে আগুন, প্রতিবন্ধী শিশুসহ নিহত ৪

‘এত কাজ কেউ করতে পারেনি, জিতলে আরও করবো’

‘এত কাজ কেউ করতে পারেনি, জিতলে আরও করবো’

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে মানতে হবে যে সব বিষয়

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে মানতে হবে যে সব বিষয়

কারাগারে হলমার্কের জিএম এর নারীসঙ্গ: ৩ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার

কারাগারে হলমার্কের জিএম এর নারীসঙ্গ: ৩ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার

কারাগারে নারী দর্শনার্থীর সঙ্গে সময় কাটালেন হলমার্কের জিএম

কারাগারে নারী দর্শনার্থীর সঙ্গে সময় কাটালেন হলমার্কের জিএম

বিমানবন্দরে স্বামী-স্ত্রী নিহতের ঘটনায় বাসচালক কারাগারে

বিমানবন্দরে স্বামী-স্ত্রী নিহতের ঘটনায় বাসচালক কারাগারে

কেক কাটা নয়, শুধু দোয়ার আয়োজন করেছি: সম্রাট

শুভ জন্মদিন নায়করাজ রাজ্জাককেক কাটা নয়, শুধু দোয়ার আয়োজন করেছি: সম্রাট

সাংবাদিক আফজালের মৃত্যুতে ডিএনসিসি মেয়রের শোক

সাংবাদিক আফজালের মৃত্যুতে ডিএনসিসি মেয়রের শোক

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘জীবনেও ভাবি নাই পাক্কা ঘরে ঘুমামু’

‘জীবনেও ভাবি নাই পাক্কা ঘরে ঘুমামু’

নেত্রকোনায় মুজিববর্ষের  ঘর নির্মাণে  অনিয়মের অভিযোগ

নেত্রকোনায় মুজিববর্ষের ঘর নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

পৃথক দুর্ঘটনায় নারীসহ নিহত ২

পৃথক দুর্ঘটনায় নারীসহ নিহত ২

বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণের দাবি

বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণের দাবি

বকশীগঞ্জে ট্রাক্টরের চাপায় স্কুলছাত্র নিহত

বকশীগঞ্জে ট্রাক্টরের চাপায় স্কুলছাত্র নিহত

সরিষাবাড়ীতে নসিমন খাদে পড়ে চালক নিহত

সরিষাবাড়ীতে নসিমন খাদে পড়ে চালক নিহত

ছেলেকে হত্যার অভিযোগে বাবা আটক

ছেলেকে হত্যার অভিযোগে বাবা আটক

অপহরণের তিন দিন পর শিশুর লাশ উদ্ধার

অপহরণের তিন দিন পর শিশুর লাশ উদ্ধার

আলোচিত সেই অধ্যক্ষ কারাগারে

আলোচিত সেই অধ্যক্ষ কারাগারে

ঘুণে খাচ্ছে গারো পাহাড়ের তাঁত

ঘুণে খাচ্ছে গারো পাহাড়ের তাঁত


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.