সেকশনস

সম্ভাব্য মহামারির তালিকায় নিপাহ

খেজুরের রসে নতুন বিপদের গন্ধ!

আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২০, ২৩:৩০

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মাঝেই আরেক মহামারির আশঙ্কার বার্তা শোনালেন বিজ্ঞানীরা। বিপদের কেন্দ্রে আছে বাংলাদেশ। আসছে শীতে ফের জাঁকিয়ে বসতে পারে নিপাহ ভাইরাস!

যুক্তরাষ্ট্রের ‘দ্য প্রসিডিংস অব দ্য ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস’ বা পিএএনএস-এ প্রকাশিত এক গবেষণায় বিজ্ঞানীরা বলছেন, আগে যতটা ধারণা করা হয়েছিল নিপাহ ভাইরাস তারচেয়েও বেশি সংক্রামক। যেকোনও সময়, যেকোনও জনবসতিতে ছড়িয়ে পড়তে পারে। এই নিপাহ ভাইরাস বাংলাদেশ, ভারত তথা এশিয়া অঞ্চলের আরেকটি মহামারির কারণ হতে পারে বলেও সতর্ক করেছেন বিজ্ঞানীরা।

বিশ্বে যেসব রোগ মহামারি আকার নিতে পারে তার একটি তালিকা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সে তালিকায় আছে নিপাহ ভাইরাসের নামও। এ ভাইরাসেরও কোনও টিকা বা চিকিৎসা এখনও আবিষ্কার হয়নি।

গত ছয় বছর ধরে বাংলাদেশের ২ হাজার ৭০০ বাদুড়ের নমুনা সংগ্রহ করে এ গবেষণা হয়েছে। গবেষণা প্রতিবেদনটি সম্পাদনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস-এর পরিচালক এবং বিখ্যাত সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউচি। গত জানুয়ারিতে প্রতিবেদনটি গ্রহণ করার পর সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি অনুমোদন দেওয়া হয়। জার্নালে প্রকাশ হয় গত ২ নভেম্বর।

নিপাহ ভাইরাসের প্রধান মাধ্যম খেজুরের কাঁচা রস ও বাদুড়ের আধখাওয়া ফল। করোনার মতো মারাত্মক ছোঁয়াচে না হলেও সংক্রমিত ব্যক্তির সংর্স্পশে আসা ব্যক্তিরাও এতে সংক্রমিত হচ্ছেন।

এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শীতকালেই বেশি দেখা যায়। তাই এবারের শীতে তাই খেজুরের কাঁচা রস খাওয়া এবং বাদুড়ের আধখাওয়া বা মাটিতে পড়ে থাকা ফল খাওয়া থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। গবেষণাটিতে আরও দেখা গেছে দেশে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেশি ফরিদপুরে।

বিজ্ঞানীরা আরও বলেছেন, ভাইরাসটি দিনে দিনে মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়ে সংক্রমণের ‘সহজ স্ট্রেইন’ তৈরি করে ফেলতে পারে। আর রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর বলছে, সারা দেশেই বাদুড় উড়ে বেড়ায়, তাই এ ভাইরাসের সংক্রমণ নির্দিষ্ট এলাকায় সীমাবদ্ধ থাকছে না।

পিএএনএস বলছে, ‘নিপাহ ভাইরাস বাংলাদেশ-ভারতের ঘনবসতি অঞ্চলে প্রায় প্রতি বছরই দেখা দেয়। প্রাণঘাতী রোগটির প্রতিষেধক বা ভ্যাকসিন তৈরি হয়নি। ২০১৮ সালে ভারতের কেরালায় ১৮ জন আক্রান্ত হন নিপাহ ভাইরাসে। তার মধ্যে ১৭ জন মারা গেছেন। বাংলাদেশে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুহার ৭০ শতাংশেরও বেশি।

২০০১ সালে মেহেরপুর জেলায় প্রথম নিপাহ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। তারপর থেকে প্রতিবছরই কম-বেশি নিপাহ আক্রান্ত রোগী দেখা গেছে। আইইডিসিআর-এর তথ্যানুযায়ী, ২০০১ সাল থেকে এখন পর্যন্ত দেশে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩১৯ জন। মারা গেছেন ২২৫ জন।

২০০৪, ২০১১ ও ২০১৪ সালে মূলত নিপাহর প্রকোপ বেশি ছিল। এ বছরগুলোতে রোগী ছিল ৬৭, ৪২ ও ৩৮ জন।

আইইডিসিআর এবং আইসিডিডিআরবি একসঙ্গে নিপাহ পর্যবেক্ষণ করছে ২০০৬ সাল থেকে। দেশের পাঁচটি হাসপাতালে এ জরিপ চলছে। চলতি বছর থেকে আরও তিনটি হাসপাতালে জরিপের কাজ শুরু হবে।

নিপাহ ভাইরাসকে ‘ডেডলি ডিজিজ’ তথা প্রাণঘাতী আখ্যা দিয়ে আইইইডিসিআর পরিচালক অধ্যাপক ডা. তাহমিনা শিরিন বলেন, ‘এ রোগে আক্রান্ত হয়ে শতকরা ৭০ শতাংশ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। আর শীতকালে এ রোগের প্রাদুর্ভাব আমরা বেশি দেখছি। নিপাহ ভাইরাসের উৎস হলো বাদুড়। বাদুড়ের মুখ নিঃসৃত লালা বা মূত্র মিশ্রিত কাঁচা খেজুর রস কিংবা বাদুড়ের আধখাওয়া ফল খেলে নিপাহ হতে পারে। কিন্তু বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত খেজুরের রসের মাধ্যমেই এ রোগ ছড়াচ্ছে বলে দেখা গেছে।

নিপাহ ভাইরাস কতক্ষণ জীবিত থাকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কাঁচা রসটাকে ফোটালেই ভাইরাস মারা যাবে। শুকনো পরিবেশে যদি কোনো হোস্ট তথা আশ্রয় নেওয়ার মতো পরিবেশ না পায় তবে দুই ঘণ্টার ভেতর মারা যাবে। বাদুড়ের মূত্রে চার দিন পর্যন্ত জীবিত থাকতে পারে নিপাহ।’

আইইডিসিআর-এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. এএসএম আলমগীর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সারা দেশেই বাদুড় উড়ে বেড়ায়, তাই এ ভাইরাসের সংক্রমণ সীমাবদ্ধ থাকছে না। যে কারণে আমাদের নজরদারি আরও বাড়াতে হয়েছে।’

নিপাহ ভাইরাসের লক্ষণ-উপসর্গ নিয়ে তিনি জানান, ‘নিপাহ আক্রান্ত হলে হঠাৎ জ্বর, মাথাব্যথা, খিঁচুনি, প্রলাপ ও কারও কারও শ্বাসকষ্ট বা অন্য স্নায়ুরোগ দেখা দিতে পারে। কারও এ ধরনের উপসর্গ দেখা দিলে তাকে সঙ্গে সঙ্গে আইইডিসিআর-এর হটলাইনে ফোন করে যোগাযোগ করা উচিত।’

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

পুরান ঢাকার আকাশে আজও উড়ছে রঙিন ঘুড়ি!

পুরান ঢাকার আকাশে আজও উড়ছে রঙিন ঘুড়ি!

রেড নোটিশের ২ মানবপাচারকারী গ্রেফতার, বাকিরা নজরদারিতে

রেড নোটিশের ২ মানবপাচারকারী গ্রেফতার, বাকিরা নজরদারিতে

বেসরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ এমপিওভুক্তির দাবি

বেসরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ এমপিওভুক্তির দাবি

জাল নোট তৈরির অভিযোগে রাজধানীতে গ্রেফতার ২

জাল নোট তৈরির অভিযোগে রাজধানীতে গ্রেফতার ২

তথ্য ও প্রমাণ থাকার পরেও তদন্তে ধীরগতি: শিক্ষার্থীর বাবা

তথ্য ও প্রমাণ থাকার পরেও তদন্তে ধীরগতি: শিক্ষার্থীর বাবা

ভুয়া চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানের ২৩ প্রতারক গ্রেফতার

ভুয়া চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানের ২৩ প্রতারক গ্রেফতার

সভাপতি প্রার্থীর মৃত্যু: পেছালো সাব-এডিটরস কাউন্সিলের নির্বাচন

সভাপতি প্রার্থীর মৃত্যু: পেছালো সাব-এডিটরস কাউন্সিলের নির্বাচন

‘মানিক সাহার খুনিরা ধরা না পড়ায় স্বাধীন সাংবাদিকতা হুমকির মুখে’

‘মানিক সাহার খুনিরা ধরা না পড়ায় স্বাধীন সাংবাদিকতা হুমকির মুখে’

রাজারবাগে সম্প্রসারিত পুলিশ শপিং মলের উদ্বোধন

রাজারবাগে সম্প্রসারিত পুলিশ শপিং মলের উদ্বোধন

করোনার টিকায় বয়স্কদের অগ্রাধিকার, সাধুবাদ জানালো সবাই

করোনার টিকায় বয়স্কদের অগ্রাধিকার, সাধুবাদ জানালো সবাই

আসামির বক্তব্য প্রচার নিয়ে হাইকোর্টের আদেশে বিজেসির উদ্বেগ

আসামির বক্তব্য প্রচার নিয়ে হাইকোর্টের আদেশে বিজেসির উদ্বেগ

ছবিতে সাকরাইন উৎসব

ছবিতে সাকরাইন উৎসব

সর্বশেষ

শীর্ষ সন্ত্রাসী গ্রুপের নামে চাঁদাবাজির অভিযোগে আটক ৬

শীর্ষ সন্ত্রাসী গ্রুপের নামে চাঁদাবাজির অভিযোগে আটক ৬

মসজিদের কমিটি গঠন নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১

মসজিদের কমিটি গঠন নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১

রাত পোহালেই দ্বিতীয় ধাপে ৬০ পৌরসভায় ভোট

রাত পোহালেই দ্বিতীয় ধাপে ৬০ পৌরসভায় ভোট

অর্ধকোটি টাকা নিয়ে পালিয়েছে সঞ্চয় সমিতির পরিচালক

অর্ধকোটি টাকা নিয়ে পালিয়েছে সঞ্চয় সমিতির পরিচালক

ডিএসইতে মূলধন বাড়লো ২ লাখ কোটি টাকা

ডিএসইতে মূলধন বাড়লো ২ লাখ কোটি টাকা

এসএসসি ২০০৬ ও এইচএসসি ২০০৮ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত 

এসএসসি ২০০৬ ও এইচএসসি ২০০৮ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত 

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪২

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪২

আপাতত হচ্ছে না বার্সার সভাপতি নির্বাচন

আপাতত হচ্ছে না বার্সার সভাপতি নির্বাচন

শিশু তহবিল জালিয়াতি, নেদারল্যান্ড সরকারের পদত্যাগ

শিশু তহবিল জালিয়াতি, নেদারল্যান্ড সরকারের পদত্যাগ

রাজধানীতে র‌্যাবের অভিযানে ১৯ জুয়াড়ি গ্রেফতার

রাজধানীতে র‌্যাবের অভিযানে ১৯ জুয়াড়ি গ্রেফতার

নেতাকর্মীদের দেখতে গিয়ে বিএনপি নেতা কারাগারে

নেতাকর্মীদের দেখতে গিয়ে বিএনপি নেতা কারাগারে

মেয়ের বাড়ি যাওয়া হলো না জামেনার

মেয়ের বাড়ি যাওয়া হলো না জামেনার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পুরান ঢাকার আকাশে আজও উড়ছে রঙিন ঘুড়ি!

পুরান ঢাকার আকাশে আজও উড়ছে রঙিন ঘুড়ি!

রেড নোটিশের ২ মানবপাচারকারী গ্রেফতার, বাকিরা নজরদারিতে

রেড নোটিশের ২ মানবপাচারকারী গ্রেফতার, বাকিরা নজরদারিতে

বেসরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ এমপিওভুক্তির দাবি

বেসরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ এমপিওভুক্তির দাবি

জাল নোট তৈরির অভিযোগে রাজধানীতে গ্রেফতার ২

জাল নোট তৈরির অভিযোগে রাজধানীতে গ্রেফতার ২

তথ্য ও প্রমাণ থাকার পরেও তদন্তে ধীরগতি: শিক্ষার্থীর বাবা

তথ্য ও প্রমাণ থাকার পরেও তদন্তে ধীরগতি: শিক্ষার্থীর বাবা

ভুয়া চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানের ২৩ প্রতারক গ্রেফতার

ভুয়া চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানের ২৩ প্রতারক গ্রেফতার

সভাপতি প্রার্থীর মৃত্যু: পেছালো সাব-এডিটরস কাউন্সিলের নির্বাচন

সভাপতি প্রার্থীর মৃত্যু: পেছালো সাব-এডিটরস কাউন্সিলের নির্বাচন

‘মানিক সাহার খুনিরা ধরা না পড়ায় স্বাধীন সাংবাদিকতা হুমকির মুখে’

‘মানিক সাহার খুনিরা ধরা না পড়ায় স্বাধীন সাংবাদিকতা হুমকির মুখে’

রাজারবাগে সম্প্রসারিত পুলিশ শপিং মলের উদ্বোধন

রাজারবাগে সম্প্রসারিত পুলিশ শপিং মলের উদ্বোধন

আসামির বক্তব্য প্রচার নিয়ে হাইকোর্টের আদেশে বিজেসির উদ্বেগ

আসামির বক্তব্য প্রচার নিয়ে হাইকোর্টের আদেশে বিজেসির উদ্বেগ


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.