X
শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২
১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

যে বাড়িতে ছিলেন রহিমা সে বাড়ির ৩ জন পুলিশ হেফাজতে

ফরিদপুর প্রতিনিধি
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩:৩৪আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:১০

খুলনা থেকে নিখোঁজ গৃহবধূ রহিমা বেগমকে ফরিদপুরের কুদ্দুস বিশ্বাসের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় শনিবার রাতে ওই বাড়ির তিন সদস্যকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

বোয়ালমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুল ওহাব বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, খুলনা থেকে পুলিশের একটি দল এবং বোয়ালমারী থানা পুলিশ শনিবার রাত পৌনে ১১টার দিকে তাকে উদ্ধার করে। রহিমা বেগমকে উদ্ধারের সময় কুদ্দুস বিশ্বাস বাড়িতে ছিলেন না। সে সময় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই বাড়ির তিন জনকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। তারা হলেন– বাড়ির মালিক কুদ্দুস বিশ্বাসের স্ত্রী হিরা বেগম (৫০), ছেলে আল আমিন বিশ্বাস (২৫) এবং কুদ্দুসের ছোট ভাই আবুল কালামের স্ত্রী রাহেলা বেগম (৪৫)।

ওই তিন জন এখন খুলনা পুলিশের জিম্মায় রয়েছেন বলে জানা গেছে। কুদ্দুস বিশ্বাস বর্তমান বোয়ালমারী উপজেলার ডোবরা জনতা জুট মিলে কর্মরত।

রহিমাকে উদ্ধারকারী টিমের নেতৃত্ব দেওয়া দৌলতপুর জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার আব্দুর রহমান বলেছেন,  জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কুদ্দুসের তিন স্বজনকে পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে।

নিখোঁজ রহিমা খাতুনকে ফরিদপুরের বোয়ালমারী ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের কুদ্দুস বিশ্বাসের বাড়ি থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। খুলনার দৌলতপুরের বণিকপাড়া থেকে নিখোঁজের ২৮ দিন পর শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাত পৌনে ১১টার দিকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ২৭ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে পানি আনতে বাড়ি থেকে নিচে নামেন রাহিমা বেগম (৫২)। ঘণ্টা পার হলেও তিনি বাসায় ফিরে আসেন না। পরে মায়ের খোঁজে সন্তানরা সেখানে গিয়ে মায়ের ব্যবহৃত স্যান্ডেল, গায়ের ওড়না ও কলস রাস্তার ওপর পড়ে থাকতে দেখেন। রাতে সম্ভাব্য সকল স্থানে সন্ধান নেওয়ার পর মাকে পান না। এরপর সাধারণ ডায়েরি ও পরে কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে দৌলতপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এ মামলার তদন্তকালে পুলিশ ও  র‌্যাব ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৬ জনকে গ্রেফতার করে। এরা হলেন খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) প্রধান প্রকৌশল কার্যালয়ের সহকারী প্রকৌশলী মো. গোলাম কিবরিয়া, নিখোঁজ গৃহবধূর দ্বিতীয় স্বামী হেলাল হাওলাদার, দৌলতপুর মহেশ্বরপশা বণিকপাড়া এলাকার মহিউদ্দিন, পলাশ ও জুয়েল এবং হেলাল শরীফ। এ অবস্থায় বাদীর আবেদনের প্রেক্ষিতে ১৪ সেপ্টেম্বর আদালত মামলাটির তদন্তভার পিবিআইতে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে নথিপত্র ১৭ সেপ্টেম্বর বুঝে নেয় পিবিআই খুলনা। এখন এ মামলার তদন্ত করছেন পিবিআই পরিদর্শক আব্দুল মান্নান। ২২ সেপ্টেম্বর রহিমার মেয়ে মরিয়ম আক্তার ওরফে মরিয়ম মান্নান দাবি করেন, তার মায়ের লাশ তিনি পেয়েছেন। তিনি ২৩ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের ফুলপুরে দিনভর অবস্থান নেন এবং ব্যস্ততম সময় অতিবাহিত করেন। একই সাথে সেখানে ১০ সেপ্টেম্বর উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত এক মহিলার লাশকে নিজের মা বলে শনাক্ত করেন। এবং ডিএনএ প্রোফাইল করার জন্য সম্মত হন। ২৫ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের আদালতে ডিএনএ প্রোফাইল করার আবেদন করার কথা রয়েছে।

আরও পড়ুন:

/এএম/এমএএ/
মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শেখ হাসিনা
মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শেখ হাসিনা
ফরেন মিনিস্ট্রি স্পাউস অ্যাসোসিয়েশনের চ্যারিটি বাজার
ফরেন মিনিস্ট্রি স্পাউস অ্যাসোসিয়েশনের চ্যারিটি বাজার
ক্ষমতায় এলে সব হিসাব নেবো: রুমিন ফারহানা
ক্ষমতায় এলে সব হিসাব নেবো: রুমিন ফারহানা
এক সিনেমায় প্রভাসের তিন নায়িকা
এক সিনেমায় প্রভাসের তিন নায়িকা
সর্বাধিক পঠিত
প্রেমের টানে পেরু যাওয়া নারীর অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিক্রি করে দিলো প্রেমিক
প্রেমের টানে পেরু যাওয়া নারীর অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিক্রি করে দিলো প্রেমিক
সচিব সভায় ১০ নির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী
সচিব সভায় ১০ নির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী
নিষিদ্ধ হচ্ছেন রাশমিকা!
নিষিদ্ধ হচ্ছেন রাশমিকা!
তেহরানকে রাজি করালো ঢাকা, আইওরা’র ডায়ালগ পার্টনার সৌদি
তেহরানকে রাজি করালো ঢাকা, আইওরা’র ডায়ালগ পার্টনার সৌদি
আয়াতের ছোট্ট দেহটি ৬ টুকরো করে স্বজনদের যা বলেছিল ঘাতক
আয়াতের ছোট্ট দেহটি ৬ টুকরো করে স্বজনদের যা বলেছিল ঘাতক