X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

ভাইরাল অডিও ক্লিপটি সুপার এডিটেড, দাবি আ.লীগ নেতা রওশন আলীর

আপডেট : ০১ জানুয়ারি ২০২২, ১৯:০৭

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া অডিও ক্লিপটি ‘সুপার এডিটেড’ বলে দাবি করেছেন কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রওশন আলী মাস্টার। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। শনিবার (০১ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে দেবিদ্বার উপজেলা সদরে এ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন তারা।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির, দেবিদ্বার উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি কাউছার হায়দার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য লুৎফুর রহমান বাবুল, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মামুনুর রশীদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুন, ফতেহাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান, মোহনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম ও ধামতি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ জসিম উদ্দিনসহ আরও অনেক নেতাকর্মী।

সমাবেশে আওয়ামী লীগ নেতারা বলেন, রওশন আলী মাস্টারের মোবাইল ফোনে কথোপকথনের খণ্ডিত অংশ বিকৃত করে অডিও ক্লিপ বানিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার করেছে একটি মহল। অডিও ক্লিপটি এডিট করে যারা ফেসবুকে প্রচার করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এটা রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। 

সমাবেশে রওশন আলী মাস্টার বলেন, ‘আমার পুরো বক্তব্য শুনলে আপনারা বুঝতে পারবেন আমি কি বলেছি। কাকে বলেছি। এখানে আমার কথোপকথনের অংশ বিশেষ নিয়ে অডিও ক্লিপ বানিয়ে ফেসবুকে ভাইরাল করা হয়েছে। এই অডিও ক্লিপ সুপার এডিটেড।’

গত সপ্তাহে রওশন আলী মাস্টার এবং দেবিদ্বার উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা রুহুল আমিনের এক মিনিট ৪০ সেকেন্ডের কথোপকথনের ফোনালাপ ফাঁস হয়। এই ফোনালাপ নিয়ে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

ফোনালাপে রওশন আলী মাস্টারকে বলতে শোনা যায়, ‘যারা নৌকা করে তারা সব রাজাকারের বাচ্চা। কী করবেন রাজনীতি করে। যে দেশে টাকা দিলে নমিনেশন পাওয়া যায়, যে দেশে টাকা দিলে মন্ত্রিত্ব পাওয়া যায়, যে দেশে টাকা দিলে সব আকাম চলে।’

বিএনপি নেতা রুহুল আমিনকে উদ্দেশ করে রওশন আলী মাস্টারকে বলতে শোনা যায়, ‘আপনারা দেবিদ্বারে কই? কোনও বিএনপি নেতা রাস্তায় বের হইতে পারতাছে এখনও? আপনারা মাঠে নেমে মিছিল মিটিং করেন, আমি আপনাদের সুযোগ করে দিই, অসুবিধা কী? আমি মঞ্জু ভাইকে (বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল আহসান মুন্সী) বলেছি, দেশে যান আন্দোলন করেন। তাহলে বুঝবো আপনারা রাজনীতি করেন। আপনারা তো সময় হলে একটু-ই করেন, এগুলো করলে হবে না, রাজনীতি করতে হলে নেতৃত্ব দিতে হবে, নেতৃত্ব দিতে হলে আন্দোলন-সংগ্রাম করতে হবে। আপনারা বিরোধী দল শক্ত না দেইখাই তো মামলা-হামলার ভয়ে মাঠে নামেন না। একচেটিয়া কি একটা দেশ চলে? বিরোধী দলকে সবসময় স্ট্রং থাকতে হয়।’

এই ফোনালাপের বিষয়ে রওশন আলী মাস্টার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‌‘গত ২ কিংবা ৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় আমি বাড়ি যাচ্ছিলাম। তখন আমাকে বিএনপি নেতা রুহুল আমিন কল দেন। কল দিয়েই তিনি বলেন, আমি বিপদে আছি ভাই। আমি জানতে চাইলাম কি বিপদে আছেন? তখন রুহুল আমিন বললেন, বিএনপি আমাকে এখন আর তেমন গুরুত্ব দেয় না। নমিনেশন চেয়েছি উপজেলা নির্বাচনে। আমার টাকা খেয়েছে, তবু নমিনেশন দেয়নি বিএনপি। তার কথার উত্তরে আমি বলেছিলাম, এদেশে রাজনীতি করে কি করবেন? যে দেশে টাকা দিলে নমিনেশন পাওয়া যায়, যে দেশে টাকা দিলে মন্ত্রিত্ব পাওয়া যায়, যে দেশে টাকা দিলে সব আকাম চলে।’

রওশন আলী মাস্টার বলেন, ‘গত নির্বাচনগুলোতে আমার দলেরই কিছু লোক নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করেছে। কিছু লোক বাইরের এলাকা থেকে এসে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কাজ করেছে। আমি তাদের বলেছি, আওয়ামী লীগের এসব লোক রাজাকারের বাচ্চা। এ ছাড়া রুহুল আমিন আমাকে বলেছেন, তারা মাঠে নামতে পারছেন না। তাদের সুযোগ দেওয়া হয় না। তাই আমি বলেছি, আপনারা মাঠে আসেন। আমি সুযোগ করে দেবো।’

তিনি বলেন, ‘রুহুল আমিনের সঙ্গে কথা বলেছি ৪৫ মিনিটের মতো। অথচ ভাইরাল হওয়া অডিও এক মিনিট ৪০ সেকেন্ডের। এই অডিওর বিষয়ে চিন্তিত নই। কারণ আমি অন্যায় কিংবা ভুল কোনও কথা বলিনি। পুরো অডিও শুনলে আমার ভুল খুঁজে পাওয়া যাবে না। আমাকে ফাঁসাতে অডিওটি সুপার এডিট করা হয়েছে।’ 

এ ব্যাপারে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমীন বলেন, ‘রওশন আলী মাস্টার দলের বড় নেতা। আরও সতর্ক অবস্থায় তার কথা বলা উচিত ছিল। ফাঁস হওয়া অডিও শুনে আমি হতভম্ব। তবে আমারও মনে হয়, অডিওর আরও কিছু অংশ আছে। হয়তো পুরো অডিও শুনলে বিষয়টি পরিষ্কার হওয়া যাবে।’

এদিকে, রওশন আলী মাস্টারকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে দাউদকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান ও উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মেজর (অব.) মোহাম্মদ আলী বলেন, দলের এত বড় নেতার এমন বক্তব্য আমরা মেনে নিতে পারছি না। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই। এমপি মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ সুবিদ আলী ভূঁইয়ার নির্দেশক্রমে দাউদকান্দি ও মেঘনা উপজেলায় রোশন আলী মাস্টারকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করছি আমরা।

ফোনালাপের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপি নেতা রুহুল আমিন বলেন, এ বিষয়ে আমি কোনও মন্তব্য করতে পারছি না। এটি তাদের দলীয় বিষয়।

/এএম/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন
স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন
স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসের কারখানায় আগুন
স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসের কারখানায় আগুন
লালগালিচায় কালো ধোঁয়া!
কান উৎসব ২০২২লালগালিচায় কালো ধোঁয়া!
যাত্রীরা বলেছেন বিমানবন্দরে সেবার মান ভালো: বিমান প্রতিমন্ত্রী
যাত্রীরা বলেছেন বিমানবন্দরে সেবার মান ভালো: বিমান প্রতিমন্ত্রী
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
জাতিসংঘের হাইকমিশনারের কাছে মিয়ানমার ফেরার কথা জানালেন রোহিঙ্গারা
জাতিসংঘের হাইকমিশনারের কাছে মিয়ানমার ফেরার কথা জানালেন রোহিঙ্গারা
আখাউড়ার ইউএনও ও এসি-ল্যান্ডকে বদলি
আখাউড়ার ইউএনও ও এসি-ল্যান্ডকে বদলি
বাস থেকে ছিটকে পড়ে কিশোর হেলপার নিহত
বাস থেকে ছিটকে পড়ে কিশোর হেলপার নিহত
শেয়ালের মাংস বিক্রির অপরাধে একজনের কারাদণ্ড
শেয়ালের মাংস বিক্রির অপরাধে একজনের কারাদণ্ড
প্রদীপের স্ত্রীর আত্মসমর্পণ, কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ
প্রদীপের স্ত্রীর আত্মসমর্পণ, কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ