X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

যমুনায় আটকা পণ্যবাহী অর্ধশতাধিক কার্গো

আপডেট : ২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৫:৪৩

পদ্মা-যমুনা নদীতে তীব্র নাব্য সংকট দেখা দিয়েছে। এর ফলে চট্টগ্রাম খুলনা ও মোংলা থেকে ছেড়ে আসা সার, জ্বালানি তেল ও চিনিসহ বিভিন্ন পণ্যবোঝাই কার্গো জাহাজ চলাচল করতে পারছে না। কার্গোগুলো আপাতত মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার অন্বয়পুর এলাকায় যমুনায় নোঙর করে রাখা হয়েছে। পরে ওইসব কার্গোতে থাকা পণ্য অর্ধেক কমিয়ে নগরবাড়ি, পাবনা ও বাঘাবাড়িতে যাচ্ছে। এতে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে জাহাজচালক ও ব্যবসায়ীদের।

জানা গেছে, সরকারিভাবে চট্টগাম, খুলনা ও মোংলা থেকে কার্গো জাহাজের মাধ্যমে বাঘাবাড়ি, নগরবাড়ি ও পাবনাসহ উত্তরাঞ্চলের মানুষের জন্য সার, সিমেন্ট, চিনি ও জ্বালানি তেল আসছে। কিন্তু নাব্য সংকটে অন্বয়পুর এলাকায় নোঙর করা হচ্ছে। সপ্তাহখানেক অপেক্ষার পর সকাল-সন্ধ্যা কাজ করে অর্ধেক পণ্য আনলোড করে গন্তব্যে যাচ্ছে।

যমুনার অন্বয়পুরে নোঙর করা মা-বাবার দোয়া নামের কার্গো জাহাজের চালক ইয়ামিন শেখ জানান, চট্টগ্রাম থেকে সার নিয়ে শিবালয়ে পৌঁছাতে পাঁচ দিন লেগেছে। নাব্য সংকট থাকায় পণ্যবাহী জাহাজ ডুবোচরে আটকে যাচ্ছে। তাই আরিচা ঘাটের কাছে নোঙর করছি। এখানেও ৫-৬ দিন অপেক্ষা করছি। আরও কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হতে পারে।

অর্ধেক পণ্য আনলোড করে গন্তব্যে যাচ্ছে কার্গো

এমভি পূর্ণিমা কার্গো জাহাজের চালক মো. নাঈম শেখ জানান, পণ্যবোঝাই সব জাহাজ এখানে নোঙর করা হচ্ছে। পরে সিরিয়াল অনুযায়ী পৃথক একটি মিনি কার্গো বা ট্রলারের মাধ্যমে অর্ধেক পণ্য কমিয়ে উত্তরাঞ্চলের দিকে রওনা দিতে হচ্ছে। তা না হলে জাহাজ চরে আটকা পড়বে।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক একাধিক জাহাজের চালক জানান, নাব্য সংকটে এই জায়গায় (শিবালয়ের অন্বয়পুর) জাহাজ নোঙর করে হয়। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) লোকজন এসে মালামালের কাগজপত্র দেখেন। কাগজপত্র ঠিক থাকলেও প্রতিটি জাহাজ থেকে এক হাজার করে টাকা দিতে হয়। না দিলে ঝামেলা করেন। তাছাড়া চট্টগ্রাম থেকে আসতে  বিভিন্ন জায়গা চাঁদা দিতে হয়।

উত্তরাঞ্চলের ব্যবসায়ী সুলাল বড়ুয়া জানান, সরকার যদি যমুনার ঝুকিপূর্ণ পথে নাব্য সংকট নিরসনে ড্রেজিং করে, তাহলে আমরা সরাসরি মালামাল নগরবাড়ি নিয়ে যেতে পারবো। এতে ব্যবসায়ী ও কৃষকেরও সুবিধা হবে এবং আমরা উত্তরাঞ্চলের ব্যবসায়ী ও কৃষকরা লাভবান হবো।

জানা গেছে, নদীতে জাহাজ চলাচলের জ্যন্য যে পরিমাণ পানি থাকা প্রয়োজন, তা না থাকায় আরিচা-পাটুরিয়ার বিভিন্ন জায়গায় প্রায় ৭০টির মতো জাহাজ নোঙর করা আছে। প্রতিটি জাহাজে ১২শ’ থেকে ১৪শ’ টন পণ্য থাকে। কিন্তু নদীতে নাব্য কম থাকায় ওইসব জাহাজ গন্তব্যে যেতে পারে না।

বিআইডব্লিউটিএ’র উপ-পরিচালক শাহ আলম জানান, বিষয়টি তাদের নজরে এসেছে। ড্রেজিং ইউনিট নদীর নাব্যতা রক্ষায় পরিকল্পনামাফিক কাজ অব্যাহত রেখেছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র আরিচা কার্যালয়ের ড্রেজিং বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান উদ্দিন আহম্মেদ জানান, নদীতে ১০ পুল গভীরতার জাহাজগুলো চলতে পারে, কিন্তু পণ্যবাহী কার্গো জাহাজের গভীরতা ১৪-১৫ ফুট হবে। কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত, শুস্ক মৌসুমে ৮ ফিট গভীরতার জাহাজগুলো চলতে পারবে। কিন্তু কার্গো মালিকরা বেশি মুনাফার আশায় সরকারের নির্ধারিত সীমারেখার বেশি পণ্য বহন করছে। এতে সমস্যা দেখা দিচ্ছে।

/এসএইচ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ
পাঞ্জাবকে হারিয়ে প্লে-অফের আশায় দিল্লি
আইপিএলপাঞ্জাবকে হারিয়ে প্লে-অফের আশায় দিল্লি
৪ ঘণ্টা পর ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে ট্রেন চলাচল শুরু
৪ ঘণ্টা পর ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে ট্রেন চলাচল শুরু
এশিয়ান কাপ ফুটবল: ছিটকে গেলেন বাংলাদেশ গোলকিপার
এশিয়ান কাপ ফুটবল: ছিটকে গেলেন বাংলাদেশ গোলকিপার
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
দুপুরে আ.লীগ থেকে পদত্যাগ করে সন্ধ্যায় স্বতন্ত্র প্রার্থী
দুপুরে আ.লীগ থেকে পদত্যাগ করে সন্ধ্যায় স্বতন্ত্র প্রার্থী
রেল লাইনে লোহার অ্যাঙ্গেল পড়ে ৪ ঘণ্টা ধরে ট্রেন চলাচল বন্ধ
রেল লাইনে লোহার অ্যাঙ্গেল পড়ে ৪ ঘণ্টা ধরে ট্রেন চলাচল বন্ধ
ধান কাটা নিয়ে বাগবিতণ্ডা, কাস্তে দিয়ে কৃষককে হত্যা
ধান কাটা নিয়ে বাগবিতণ্ডা, কাস্তে দিয়ে কৃষককে হত্যা
কৃষ্ণচূড়ার রঙে সেজেছে গোয়ালন্দ রেলস্টেশন
কৃষ্ণচূড়ার রঙে সেজেছে গোয়ালন্দ রেলস্টেশন
আদালতে হাজির ছিলেন কৃষক, পুলিশের প্রতিবেদনে অংশ নিয়েছেন সংঘর্ষে 
আদালতে হাজির ছিলেন কৃষক, পুলিশের প্রতিবেদনে অংশ নিয়েছেন সংঘর্ষে