X
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২
১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

‘মায়ের আত্মগোপনে জড়িয়ে আমাকে অপরাধী বানানো হচ্ছে’

খুলনা প্রতিনিধি
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:১৮আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:১৯

খুলনার নিখোঁজ গৃহবধূ রহিমা বেগম উদ্ধারের পর মায়ের আত্মগোপনে মেয়ে জড়িত বলে প্রচার হওয়ার কথা জানিয়ে ফেসবুকে এক পোস্টে মরিয়ম আক্তার বলেন, মাকে খোঁজার কারণেই আমাকে এখন অপরাধী বানানোর চেষ্টা হচ্ছে। মায়ের আত্মগোপনে আমি জড়িত বলে বলা হচ্ছে। মা আমার, খুঁজবো তো আমিই। আমার কী তাহলে চুপ করে থাকা উচিত ছিল?

রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ভোর রাত ৪টা ৮ মিনিটের দিকে মরিয়ম মান্নান তার ফেসবুক পোস্টে লিখেন, সন্তান তার মাকে খুঁজবে খুব স্বাভাবিক। আপনার মা হারিয়ে গেলে আপনিও খুঁজতেন। ফুলপুরের লাশ পর্যন্ত গিয়েছি মাকেই খুঁজতেই। ফুলপুর থানার ওসিকে আমি তাদের দেওয়া একটা বিজ্ঞাপনের মাধ্যমেই কল দেই। ওখানে যাই, ডিএনএ টেস্টের জন্য আবেদন করি। আমার মাকে আমি খুঁজেছি, সব জায়গায় যেয়ে একটা কথাই বলেছি— আমার মাকে চাই। মা যদি আত্মগোপন করেন তাকে এনে শাস্তি দিন, তাও আমার মাকে আমার চোখের সামনে এনে দিন দয়া করে। আজকে মাকে পাওয়া গেছে, আমি মায়ের উদ্দেশে যাচ্ছি। মায়ের সাথে এখনও দেখা হয়নি, কথাও হয়নি। মায়ের কোনও ভিডিও অথবা অডিও পাইনি— যেখানে মা বলেছেন তিনি আত্মগোপন করেছেন। সকলের কাছে গিয়েছি মাকে খুঁজে পেতে, যাদের কাছে গিয়েছি তারা জানেন কী চেয়েছি আমি। মাকে ছাড়া আর কিছু চাওয়া আমার ছিল না। এখনও নেই। দয়া করে মায়ের সাথে দেখা না হওয়া পর্যন্ত আমাকে ভুল বুঝবেন না। আমি মাকে খুঁজেছি, সন্তান হিসেবে আমার দায়িত্ব তাকে খোঁজা। মা এই তিরিশ দিন কোথায় ছিল, কীভাবে ছিল— সেটা আপনাদের মতো আমারও প্রশ্ন। আমার মায়ের সাথে আমাকে কথা বলতে দিন। আমার মায়ের কাছে পৌঁছানো পর্যন্ত আমাকে সহযোগিতা করুন।মা যদি আত্মগোপন করেও থাকেন তবুও তাকে খোঁজার দায়িত্ব আমার।

তিনি পোস্টে লিখেন, আমি মাকে খুঁজতেছি বলে আমাকে বলা হচ্ছে মায়ের আত্মগোপনে আমি জড়িত? তাহলে আমার কী করা উচিত ছিল? যখন শুনেছি আমার মা নিখোঁজ, তখন চুপ করে বসে থাকা উচিত ছিল? যারা প্রথম দিন থেকে বলছিলেন— মা আত্মগোপন করেছেন তাদের কথা শুনে মাকে আর খুঁজতাম না? মাকে খুঁজেছি বলে আমাকে দোষী করা হবে? আপনারা আমাকে যে যাই দোষ দিন না কেন, প্রথম দিন থেকে আমি ছুটেছি মায়ের জন্য। আজকে পেয়েও গেছি। বারবার বলেছি— মা আত্মগোপন করলে সামনে আনুন, শাস্তি দিন, আমার কলিজা জুড়াক। আমার কলিজা শান্ত হয়েছে। মায়ের চেহারাটা দেখেই আমার শান্তি। আপনারা যে যাই বলেন, এখন আমার মা আমার সামনে। মাকে খুঁজে পাওয়ার লড়াই ছিল আমার। আপনারা সহযোগিতা করেছেন। আপনাদের সহযোগিতায় আজকে আমার মাকে খুঁজে পেয়েছি। প্রথম দিনের মতোই আজকেও আমার একটাই চাওয়া মাকে ছাড়া কিছুই চাই না। মাকে নিয়ে এই খুলনা শহর ছেড়ে দিবো, মাকে নিয়ে দূরে চলে যাবো। মাকে চাওয়া ছাড়া কিছুই চাওয়ার নাই। যে জায়গা নিয়ে মামলা সেই জায়গাও চাই না। শুধু মাকে চাই। মাকে আমার কাছে না পাওয়া পর্যন্ত আপনাদের সকলের সহযোগিতা কামনা করছি। এবং আমি জানি একজন মাকে তার সন্তানদের কাছে ফিরিয়ে দিতে পৃথিবীর সকল মানুষ আমার পাশে থাকবেন। আমি খুশি, এক মুহূর্তের জন্যও বিচলিত নই। মাকে খুঁজতে যেয়ে যদি আমাকে দোষী হতে হয়— আমি সেই দোষ মাথা পেতে নেওয়ার শক্তি এবং সাহস রাখি, ইনশাআল্লাহ।

আরও পড়ুন:

/এএম/এমএস/
মাসটি বিজয়ের
মাসটি বিজয়ের
ফ্রান্সকে হারিয়েও তিউনেশিয়ার বিদায়
ফ্রান্সকে হারিয়েও তিউনেশিয়ার বিদায়
১৮ কোটি টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া দিনাজপুর পৌরসভার
১৮ কোটি টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া দিনাজপুর পৌরসভার
ডেনিশদের হারিয়ে অস্ট্রেলিয়া নকআউট পর্বে
ডেনিশদের হারিয়ে অস্ট্রেলিয়া নকআউট পর্বে
সর্বাধিক পঠিত
লুট হওয়া ১১ অস্ত্র মিয়ানমার থেকে ফেরত পাওয়ার আশা বিজিবির
লুট হওয়া ১১ অস্ত্র মিয়ানমার থেকে ফেরত পাওয়ার আশা বিজিবির
রিট করার পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট
ইসলামী ব্যাংকের ৩০ হাজার কোটি টাকা ঋণরিট করার পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট
৪ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ট্রেন চলাচল বন্ধ
৪ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ট্রেন চলাচল বন্ধ
তিনি সাধারণ শিক্ষার্থীদের নেতা
তিনি সাধারণ শিক্ষার্থীদের নেতা
তুরস্কের প্রতি সংহতি ন্যাটোর
তুরস্কের প্রতি সংহতি ন্যাটোর