X
মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২
২৪ শ্রাবণ ১৪২৯

‘ভাতা দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর জন্য নামাজ পড়ে দোয়া করমু’

আতাউর রহমান জুয়েল, ময়মনসিংহ
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:১৬আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:২১

‌‘স্বামী ভ্যান চালাইয়া যা আয় করে তা দিয়া সংসার চলে না। সন্তান আর আমার জন্য ভালো-মন্দ খাওয়ার কোনও ব্যবস্থা নাই। সরকার শিশু আর গর্ভবতী মায়েদের যত্ন নেওয়ার জন্য যে ভাতা দিছে, তা দিয়া এখন ছোট্ট শিশুর যত্ন নিতে পারমু, আর আমার গর্ভের সন্তানের জন্য ভালো-মন্দ কিছু খাইতে পারমু। ভাতার ব্যবস্থা করে দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য নামাজ পড়ে দোয়া করমু।’

কথাগুলো বলছিলেন ময়মনসিংহ সদরের দাপুনিয়া ইউনিয়ন কাওয়ালটি গ্রামের ভ্যানচালক আব্দুল জলিলের স্ত্রী শিশু-গর্ভবতী মায়েদের যত্ন নেওয়া প্রকল্পের ভাতা উপকারী সলেমা খাতুন। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ডিকেজিএস ইউনাইটেড কলেজ মাঠে উপকারভোগীদের মাঝে ভাতার টাকা বিতরণ করা হয়।

সলেমা খাতুন জানান, তার দেড় বছরের শিশুপুত্র রয়েছে। তিনি পাঁচ মাসের গর্ভবতী। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন শিশু ও গর্ভবতী মায়েদের যত্ন নেওয়ার প্রকল্পের আওতায় ভাতার টাকা নেওয়ার জন্য ডিকেজিএস কলেজ কেন্দ্রে এসেছেন। সন্তানের জন্য পেয়েছেন সাত হাজার ২০০ টাকা এবং নিজের জন্য আট হাজার ৪০০ টাকা পেয়েছেন তিনি।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রকল্পের আওতায় ভাতা দেওয়া হচ্ছে

শুধু সলেমা খাতুন না, শিশু ও গর্ভবতী মায়েদের যত্ন নেওয়ার ভাতা পেয়ে দাপুনিয়া ইউনিয়নের উপকারভোগীরা খুব খুশি। 

গৃহবধূ কামরুন্নাহার জানান, তার এক মেয়ে ও এক ছেলে। মেয়ের বয়স দুই বছরের নিচে হওয়ায় শিশু যত্নের প্রকল্পের আওতায় ভাতার টাকা পাবেন। 

তিনি বলেন, ‘আগে থেকে আমাদেরকে একটি পোস্ট অফিসের ক্যাশ কার্ড দেওয়া হয়েছে। এই ক্যাশকার্ড কেন্দ্রে এনে উদ্যোক্তাদের দেওয়ার পর তারা ফিঙ্গার প্রিন্ট নিয়ে টাকার অংক বসিয়ে একটি স্লিপ ধরিয়ে দিচ্ছেন। আর এই স্লিপ কেন্দ্রের পাশেই পোস্ট অফিসের লোকজনের কাছে নিয়ে দিলে তারা টাকা দিচ্ছেন।’

দুই বছরের নিচের শিশুদের যত্ন নেওয়ার জন্য একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। সেই প্রকল্পের অধীনে শিশু ও গর্ভবতী মায়েদের ক্যাশকার্ড প্রদানের মাধ্যমে ভাতা দেওয়ার কার্যক্রম চলছে। 

এই প্রকল্পের টিম লিডার সৈয়দ শাহারিয়ার তন্ময় জানান, ডিজিটাল পদ্ধতিতে প্রকল্পের আওতায় উপকারভোগী শিশু ও মায়েদের ভাতার টাকা দেওয়া হচ্ছে। একেক দিন একেক ইউনিয়নে দিন-তারিখ ঠিক করে মাইকিং করে জানিয়ে দিয়ে টাকা দেওয়া হয়।

ভাতা পেয়ে খুশি উপকারভোগীরা

তিনি আরও জানান, উপজেলার দাপুনিয়া ইউনিয়নে উপকারভোগীর সংখ্যা ৯৭৭। তাদের মাঝে আজ ৭৮ লাখ ৩১ হাজার ২০০ টাকা বিতরণ করা হয়েছে। উপকারভোগীদের লাইনে দাঁড় করিয়ে উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে ভাতার টাকা বিতরণ করা হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক মো. এনামুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, বর্তমান সরকারের নানামুখী উদ্যোগের মধ্যে শিশু ও গর্ভবতী মায়েদের যত্ন নেওয়ার জন্য ভাতা প্রদানের প্রকল্পটি মহৎ। এই উদ্যোগের মাধ্যমে গ্রামীণ অভাবগ্রস্ত গর্ভবতী মা ও শিশুদের যত্ন নিতে সুবিধা হবে। 

/এসএইচ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
ভারতে জয় পেলেন বাবা ও ছেলে
ভারতে জয় পেলেন বাবা ও ছেলে
ডলার কারসাজির অভিযোগ, চাকরি হারাচ্ছেন ৬ ব্যাংকের ট্রেজারি প্রধান
ডলার কারসাজির অভিযোগ, চাকরি হারাচ্ছেন ৬ ব্যাংকের ট্রেজারি প্রধান
আজ পবিত্র আশুরা
আজ পবিত্র আশুরা
‘পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে জ্বালানি তেলের দাম পুনরায় সমন্বয় করা হবে’
‘পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে জ্বালানি তেলের দাম পুনরায় সমন্বয় করা হবে’
এ বিভাগের সর্বশেষ
ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থীকে হত্যা: ১১ জনের যাবজ্জীবন
ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থীকে হত্যা: ১১ জনের যাবজ্জীবন
ধ্বংস করা হলো কোটি টাকার মাদক
ধ্বংস করা হলো কোটি টাকার মাদক
শেরপুরে বন্য হাতির আক্রমণে কৃষকের মৃত্যু
শেরপুরে বন্য হাতির আক্রমণে কৃষকের মৃত্যু
অনাবৃষ্টিতে আমন চাষ নিয়ে বিপাকে কৃষক
অনাবৃষ্টিতে আমন চাষ নিয়ে বিপাকে কৃষক
সুদের টাকা দিতে না পারায় শিশুকে অপহরণ
সুদের টাকা দিতে না পারায় শিশুকে অপহরণ