X
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩
১৩ মাঘ ১৪২৯

কেমন আছে সড়কে মায়ের পেট ফেটে জন্ম নেওয়া সেই ফাতেমা?

আতাউর রহমান জুয়েল, ময়মনসিংহ
০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩:৫৯আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩:৫৯

ময়মনসিংহের ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় মায়ের মৃত্যুর আগমুহূর্তে জন্ম নেওয়া ফাতেমা ভালো আছে। পৃথিবীতে আসার সময়টা তার স্বাভাবিক ছিল না। মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় একসঙ্গে মা-বাবা ও বোনকে হারিয়েছিল। সেদিন অলৌকিকভাবে বেঁচে যায় ফাতেমা। তার বয়স এখন চার মাস ২৩ দিন। বাবা-মা না থাকায় শিশুটির ঠাঁই হয়েছে রাজধানীর আজিমপুরের সরকারি ছোটমণি শিশু নিবাসে। সেখানে অন্য শিশুদের সঙ্গে ভালোই আছে ফাতেমা। পাশাপাশি ফাতেমার বড় ভাই এবাদত ও বোন জান্নাতুল ফেরদাউসকে গ্রামের বাড়িতে লালনপালন করছেন দাদা মোস্তাফিজুর রহমান বাবলু এবং দাদি সুফিয়া খাতুন। এবাদত ও জান্নাতুলও ভালো আছে।

‌‘মা-বাবার চেহারা ও মুখ ধীরে ধীরে ঝাপসা হয়ে আসছে। আমার চোখের সামনে কিছুটা ভাসলেও এবাদত মা-বাবার কথা ভুলতে বসেছে। মা-বাবা না থাকায় দাদা-দাদি অনেক বেশি আদর-যত্ন করেন। আমরা ভাইবোন যা চাই, তাই এনে দেন। ১৫ দিন পরপর দাদা-দাদির সঙ্গে আমি আজিমপুরে গিয়ে ফাতেমাকে দেখে আসি। ফাতেমা বেড়ে উঠছে সুন্দরভাবে।’

মা-বাবাকে হারিয়ে নিজেদের বেড়ে ওঠার কথাগুলো এভাবেই বললো ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত জাহাঙ্গীরের বড় মেয়ে জান্নাতুল ফেরদাউস। গত ১৬ জুলাই জাহাঙ্গীর আলম (৪২) তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী রত্না বেগম (৩২) ও ছয় বছরের মেয়ে সানজিদা সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন। এ সময় ট্রাকচাপায় অন্তঃসত্ত্বা রত্নার পেট ফেটে সড়কে জন্ম নেয় ফাতেমা। তাদের বাড়ি ত্রিশাল উপজেলার রায়মনি এলাকায়। তাদের মেয়ে জান্নাতুলের বয়স এখন ১০ বছর। স্থানীয় ব্র্যাক স্কুলে চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে সে।

বাড়িতে দাদা-দাদির সঙ্গে জান্নাতুল ফেরদাউস

মঙ্গলবার (০৬ ডিসেম্বর) বিকালে জান্নাতুলের সঙ্গে কথা হয় বাংলা ট্রিবিউন প্রতিনিধির। এ সময় জান্নাতুল জানায়, ‘সকালে ঘুম থেকে উঠে স্কুলে যাওয়ার আগে মা-বাবার কবরের কাছে যাই দুই ভাইবোন। তাদের জন্য দোয়া করি। ছোট ভাই এবাদত ঘুম থেকে উঠে খেলতে যায়। সে মা-বাবার কথা তেমন কিছু বলতে পারে না। বাড়ির পাশের আনোয়ারা কিন্ডারগার্টেনে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে সে।’

জান্নাতুল আরও জানায়, ‘আমার বার্ষিক পরীক্ষা শুরু হয়েছে। আগামী বছর মাদ্রাসায় ভর্তি হবো। মা-বাবার ইচ্ছা ছিল আমাকে মাদ্রাসায় লেখাপড়া করাবে। তাদের ইচ্ছাপূরণের জন্য হাফেজা হতে চাই।’

ফাতেমার দাদা মুস্তাফিজুর রহমান বাবলু বলেন, ‘১৫ দিন পরপর আজিমপুরে ছোটমণি নিবাসে ফাতেমাকে দেখতে যাই। আমি, আমার স্ত্রী এবং জান্নাতুলকে সঙ্গে নিয়ে তাকে দেখে আসি। বাড়িঘর ঠিকঠাক করে ফাতেমাকে এখানে নিয়ে আসবো।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘বাড়ির পাশে ব্র্যাক স্কুলে চতুর্থ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা দিচ্ছে জান্নাতুল। এবাদত আনোয়ারা কিন্ডারগার্টেনে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। দুই নাতি-নাতনির সব আবদার আমাদের মেটাতে হয়। যখন যা চায় তাই এনে দিই। মা-বাবার অভাব তাদের ভুলিয়ে রাখার চেষ্টা করি। জান্নাতুলের মনে থাকলেও এবাদত মা-বাবার কথা অনেকটাই ভুলতে বসেছে।’ 

মুস্তাফিজুর রহমান বাবলু বলেন, ‘বিভিন্নজনের সহযোগিতা এবং বিআরটিএ ট্রাস্ট কর্তৃক আর্থিক সহায়তাসহ ব্যাংকে প্রায় ১৪ লাখ টাকা আছে। এই টাকা থেকে জান্নাতুল ও এবাদতের ভরণপোষণসহ যাবতীয় খরচ চালানো হয়। প্রতি মাসে খরচের টাকা তোলার জন্য ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর আবেদন করলে তিনি অনুমোদন দিলে চেক নিয়ে ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করি। ডাচ-বাংলা ব্যাংক থেকে ঘর করার জন্য সাড়ে তিন লাখ টাকা দিয়েছিল। সে টাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে আছে। এই টাকা দিয়ে নতুন ঘর করার কথা রয়েছে। বর্তমানে স্থানীয় দানশীল ব্যক্তি শরীফ আহমেদ শিপন প্রতি মাসে সংসারের কিছু বাজার করে দেন। এছাড়া আর কোনও সহযোগিতা পাই না।’

মঙ্গলবার বিকালে রায়মনি গ্রামে জাহাঙ্গীরের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, দাদা-দাদির সঙ্গে জান্নাতুল বসে আছে। এবাদত তার ফুফু মমতাজের বাড়িতে বেড়াতে গেছে। বুধবার সকালে চলে আসবে।’ 

দাদি সুফিয়া খাতুন বলেন, ‘ফাতেমাকে ঢাকায় দেখতে গেলে কষ্টে বুকটা ফেটে যায়। কোল থেকে নামতে চায় না। অনেক কষ্টে রেখে আসি। জান্নাতুল ও এবাদত আমাদের সঙ্গে ঘুমায়। তাদের যত্নে কোনও কমতি হয় না। মা-বাবার কথা ধীরে ধীরে ভুলতে বসেছে তারা। ফাতেমা, জান্নাতুল আর এবাদত যে পর্যন্ত লেখাপড়া করতে চায়, আমরা চেষ্টা করবো করানোর।’ 

বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, দাদা-দাদির সঙ্গে জান্নাতুল বসে আছে

প্রতিবেশী ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘এতিম শিশুগুলোর জন্য ঘরের ব্যবস্থা হলে ভালো হতো। যে ঘরটিতে তারা থাকে সেটি মাটির। টিনগুলো নষ্ট হয়ে গেছে। বৃষ্টি হলে পানি পড়ে। তাদের ঘরটি জরুরি ভিত্তিতে করা দরকার।’

স্থানীয় এলাকাবাসী শরিফ আহমেদ শিপন বলেন, ‘প্রতি মাসে সংসার চালানোর জন্য ওই পরিবারকে বাজার করে দিই। এই এতিম শিশুদের জন্য প্রত্যেকের অবস্থান থেকে এগিয়ে আসা উচিত।’

ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আখতারুজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ঘটনার পর মানুষের আর্থিক সহায়তায় সোনালী ব্যাংকে একটি যৌথ হিসাব খোলা হয়েছিল। সেই টাকা থেকে প্রতিমাসে কিছু জান্নাতুল ও এবাদতের ভরণপোষণ বাবদ দাদার কাছে দেওয়া হয়। তাদের জন্য ঘর করতে ডাচ-বাংলা ব্যাংক থেকে সাড়ে তিন লাখ টাকা দেওয়া হয়েছে। তবে জমি সংক্রান্ত জটিলতায় নতুন ঘর নির্মাণ করা যাচ্ছে না।’

গত ১৬ জুলাই ত্রিশালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক পারাপারের সময় ট্রাকচাপায় জাহাঙ্গীর, তার স্ত্রী ও তাদের ছয় বছরের মেয়ে সানজিদা নিহত হন। এ সময় ট্রাকচাপায় অন্তঃসত্ত্বা মায়ের মৃত্যুর আগমুহূর্তে পেট ফেটে এক মেয়েসন্তানের জন্ম হয়। উপজেলার কোর্ট ভবন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছিল। পরে শিশুটির নাম রাখা হয় ফাতেমা। শিশুটিকে সমাজসেবা অধিদফতরের তত্ত্বাবধানে আজিমপুরে ছোটমণি নিবাসে রাখা হয়েছে।

/এএম/
সর্বশেষ খবর
মধ্যরাতে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রীদের অবস্থান
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়মধ্যরাতে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রীদের অবস্থান
কাভার্ডভ্যানের চাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
কাভার্ডভ্যানের চাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির টার্গেট ১৩ মুসলিম অধ্যুষিত আসন
পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির টার্গেট ১৩ মুসলিম অধ্যুষিত আসন
সারাদেশে যুব মজলিসের বিক্ষোভ: মামুনুল হকের মুক্তি দাবি
সারাদেশে যুব মজলিসের বিক্ষোভ: মামুনুল হকের মুক্তি দাবি
সর্বাধিক পঠিত
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন: এমপি বাহার
প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন: এমপি বাহার