ছায়েদুল হকের মরদেহ সংসদ ভবনে

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০৮:১৬, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৩২, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭

প্রয়াত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের প্রথম জানাজা রবিবার (১৭ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হবে। এদিন সকাল সোয়া আটটার দিকে তার মরদেহ সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় আনা হয়। সেখানে জানাজা শেষে মরদেহ হেলিকপ্টারে করে নাসিরনগরে আনা হবে। সেখানে জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হবে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নাসিরনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১) আসনের সংসদ সদস্য এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার নির্বাচনি এলাকা নাসিরনগরে তৈরি হয়েছে বেদনাতুর পরিবেশ। শনিবার (১৬ ডিসেম্বর) তার মৃত্যু সংবাদ পাওয়ার পর থেকেই দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ভিড় করছেন পূর্বভাগ ইউনিয়নে মরহুমের গ্রামের বাড়িতে।

নাসিরনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক সুজিত চক্রবর্তী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মোহাম্মদ ছায়েদুল হক ছিলেন নাসিরনগরের মাটি ও মানুষের নেতা। তার মৃত্যুতে পুরো নাসিরনগরে বিরাজ করছে শোকের ছায়া। আমরা মনে করি, প্রবীণ এই রাজনীতিবিদের শূন্যতা কোনোদিন পূরণ হওয়ার নয়।’


আওয়ামী লীগের এই নেতা জানান, প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর মৃত্যুতে দলীয় নেতাকর্মীরা কালো ব্যাচ ধারণ করেছে। তার স্মরণে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আলোচনার মাধ্যমে পরে কর্মসূচি নির্ধারণ করবেন বলে জানা যায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার বলেন, ‘আমরা বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান চলাকালে সকাল ৯টার দিকে মন্ত্রীর মৃ্ত্যুর খবর পেয়েছি। তার মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। তিনি পাঁচবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ছিলেন। তার মৃত্যুর মধ্য দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী প্রবীণ এক রাজনীতিবিদকে হারিয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আমি তার বিদেহী আত্নার মাগফেরাত কামনা করছি।’
জেলা আওয়ামী লীগের এই নেতা জানান, রবিবার (১৭ ডিসেম্বর) সকাল ৯টায় জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় জানাজার পর ছায়েদুল হকের মরদেহ হেলিকপ্টারে করে নাসিরনগরে আনা হবে। সেখানে উপস্থিতিতে জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হবে। 
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ ছায়েদুল হক শনিবার সকাল ৮টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে মারা যান। শারীরিক অসুস্থতার কারণে প্রাণিসম্পদমন্ত্রী সেখানে তিন মাস ধরে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

 আরও পড়ুন:
ঢাবিতে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের শিগগিরই বহিষ্কার

/পিএইচসি/এপিএইচ/এসএনএইচ/

লাইভ

টপ