চারঘাট সীমান্তে বিজিবির সঙ্গে গোলাগুলিতে বিএসএফ সদস্য নিহত হওয়ার দাবি

Send
রাজশাহী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২৩:০০, অক্টোবর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৫:৩৭, অক্টোবর ১৮, ২০১৯

সংবাদ সম্মেলনে ফেরদৌস জিয়াউদ্দিন মাহমুদ (ছবি– প্রতিনিধি)

রাজশাহীর চারঘাট সীমান্তে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের সঙ্গে গোলাগুলিতে নিজেদের এক সদস্য নিহত ও আরও এক সদস্য আহত হওয়ার দাবি করেছে ভারতের বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ)। অনুপ্রবেশকারী এক ভারতীয় জেলেকে পদ্মা নদী থেকে বিজিবি সদস্যরা আটক করলে বিএসএফ সদস্যরা তাকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টাকালে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) বিকালে বিজিবির সঙ্গে পতাকা বৈঠকে এ দাবি করে বিএসএফ। বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) রাত ৯টায় ১নং বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নে সংবাদ সম্মেলন করে অধিনায়ক লে. কর্নেল ফেরদৌস জিয়াউদ্দিন মাহমুদ এসব তথ্য জানান।

লে. কর্নেল ফেরদৌস জিয়াউদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল ১০টায় ১নং বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীন চারঘাট বিওপি থেকে এককিলোমিটার পশ্চিমে সীমান্ত পিলার ৭৫/৩-এস থেকে ৫০০ মিটার বাংলাদেশের অভ্যন্তরে পদ্মা নদীর চারঘাট থানার শাহরিয়ার খাল থেকে তিন জন জেলেকে আটক করার চেষ্টা করা হয়। এ সময় দুইজন জেলে ভারতে পালিয়ে গেলেও দেশটির মুর্শিদাবাদের জলঙ্গী থানার ছিড়াচর এলাকার প্রণব মন্ডলকে চার কেজি কারেন্ট জালসহ আটক করে বিজিবি। এরপর ১১৭ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের কাগমারী ক্যাম্প থেকে চারজন বিএসএফ সদস্য স্পিডবোটে অনুমতি ছাড়া শূন্যলাইন অতিক্রম করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে বিজিবি সদস্যদের কাছে আসে। এরপর তারা আটককৃত ভারতীয় নাগরিককে ছেড়ে দিতে বলে। বিজিবি সদস্যরা জানান, পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ভারতীয় ওই জেলেকে হস্তান্তর করা হবে। কিন্তু বিএসএফ সদস্যরা ভারতীয় নাগরিককে বিজিবির কাছ থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এতে বিজিবি সদস্যরা বাধা দিলে বিএসএফ সদস্যরা ৬-৮ রাউন্ড গুলি করে। আত্মরক্ষার জন্য বিজিবি সদস্যরা ফাঁকা গুলি করলে বিএসএফের সদস্যরা স্থান ত্যাগ করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজ (বৃহস্পতিবার) বিকাল পৌনে ৫টায় চর শাহরিয়ার বাঁধে বিজিবি-বিএসএফের মধ্যে ব্যাটালিয়ান কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক হয়। এতে ১১৭নং বিএসএফ ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক কেএস মেহেতা নেতৃত্ব দেন এবং বিজিপির পক্ষে আমি নেতৃত্ব দিই। এ ব্যাপারে উভয়পক্ষ নিজ নিজ অবস্থান থেকে বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করার  বিষয়ে একমত হয়। এ ছাড়া, এ বিষয়ে আরও আলোচনার জন্য শিগগিরই পতাকা বৈঠক করার সিদ্ধান্ত হয়।’

সাংবাদিকের প্রশ্নে জবাবে ফেরদৌস জিয়াউদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘বিজিবিকে হতাহতদের পরিচয় জানানো হয়নি। এমনকি, তাদের পদবিও বলা হয়নি।’ রাত ১০টার দিকে চারঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমিত কুমার কুন্ডু বলেন, ‘মামলা ও ভারতীয় নাগরিক হস্তান্তর প্রক্রিয়া চলছে।’

/এমএ/

লাইভ

টপ