মাদ্রাসা শিক্ষককে জুতার মালা পরানোর ঘটনায় চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৩

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১০:০৫, জুন ০৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:১০, জুন ০৫, ২০২০

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষককে লাঞ্ছিত ও জুতার মালা পরিয়ে জনসম্মুখে ঘোরানোর ঘটনায় প্রধান আসামি চেয়ারম্যানসহ তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৪ জুন) সন্ধ্যায় বরিশালের মুলাদী উপজেলা থেকে দড়িচর খাজুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা রাঢ়ি এবং একই ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার আব্দুস সত্তার সিকদারকে গ্রেফতার করা হয়। এই ঘটনায় বজলু নামে আরেক আসামিকে আগেই গ্রেফতার করে পুলিশ।

জেলার বিশেষ শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাইমুল হক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মুলাদী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয় চেয়ারম্যান মোস্তফা ও সাবেক মেম্বার সত্তারকে। এই মামলার অপর আসামিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

প্রসঙ্গত, দড়িচর খাজুরিয়া দাখিল মাদরাসার এক ছাত্রীর উপবৃত্তির টাকা শিক্ষক শহিদুল ইসলামের মোবাইল নম্বরে জমা হয়। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ওই ছাত্রীর বাবা মাদরাসায় এসে শহিদুল ইসলামকে মারধর করেন। তার মোবাইলের সিমটি নিয়ে যান। বিষয়টি জানতে পেরে চেয়ারম্যান মোস্তফা রাঢ়ি বুধবার (৩ জুন) বিকালে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে এই নিয়ে সালিশ বৈঠক করেন। সেখানে শহিদুল ইসলামকে গালিগালাজ করে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরে ২০ হাজার টাকা মাফ করে বাকি ৫০ হাজার টাকার জন্য চাপ দেওয়া হয়। শহীদুল জরিমানার টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাকে মারধর করে গলায় জুতার মালা পরিয়ে স্থানীয় স্টিমারঘাট বাজারে ঘোরানো হয়। বিষয়টি চেয়ারম্যানের লোকজন মোবাইলে ধারণ করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দিলে ভাইরাল হয়।

এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৪ জুন) সকালে লাঞ্ছিত শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে দড়িচর খাজুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ বেশ কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন।

আরও পড়ুন: জুতার মালা পরিয়ে জনসম্মুখে ঘোরানো হলো মাদ্রাসা শিক্ষককে!



/এনএস/

লাইভ

টপ