জেলা প্রশাসককে অভিযোগ করার পর যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা

Send
মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:৫৩, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:১৮, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০

মানিকগঞ্জদৌলতপুর উপজেলার কলিয়া ইউনিয়ন ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ভূমিহীনদের ঘর দেওয়ার কথা বলে তিন লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার আইনজীবীকে অভিযুক্ত কর্মকর্তার লোকেরা হুমকি দিয়েছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিষয়টি জানিয়ে ওই আইনজীবী ও যুবলীগ নেতা জেলা প্রশাসককে অভিযোগ জানান। আর এর কয়েক ঘণ্টা পর ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লা বাদী হয়ে ওই আইনজীবীসহ তার মুক্তিযোদ্ধা পিতার বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে সরকারি কাজে হুমকি ও চাঁদা দাবি করেছেন আইনজীবী ফয়জুল ইসলাম ও তার পিতা মুক্তিযোদ্ধা মফিজুল ইসলাম।

তবে দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও আইনজীবী ফয়জুল ইসলাম বলেন, কলিয়া ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লা প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের অধীনে ভূমিহীনদের বিনামূল্যে ঘর দেওয়ার কথা বলে ১০ জনের থেকে জনপ্রতি ৩০ হাজার টাকা করে মোট তিন লাখ টাকা ঘুষ নেন। তবে পরে ঘর দিতে না পারায় এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে সালিশ হয়। ওই সালিশে কলিয়া ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লা আগস্ট মাসের মধ্যে ঘর দিতে না পারলে টাকা ফেরত দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঘর দিতে না পারায় ভূমিহীনদের একজনের ছেলে সাহেব আলী আমাকে আইনজীবী নিযুক্ত করে কলিয়া ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লাকে আসামি করে ৯ সেপ্টেম্বর মামলা করেন। ওই মামলার আইনজীবী হওয়ার কারণে গত ১৩ সেপ্টেম্বর কলিয়া ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লার পাঠানো কয়েকজন সন্ত্রাসী রাস্তায় আমাকে একা পেয়ে হত্যার হুমকি দেয়।

তিনি আরও বলেন, হুমকির ঘটনায় আমি মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসক বরাবর দৌলতপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জুয়েল আহমেদ ও কলিয়া ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেই। অভিযোগ দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর দুপুরে দৌলতপুর থানায় আমার ও আমার বাবা মুক্তিযোদ্ধা মফিজুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করেন কলিয়া ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লা।

তবে এ বিষয়ে জানতে দৌলতপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জুয়েল আহমেদ ও কলিয়া ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লার মোবাইলফোনে একাধিকবার কল দিয়েও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম জানান, কলিয়া ইউনিয়নের ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রাজা মোল্লা বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। মামলায় সরকারি কাজে হুমকি ও চাঁদা দাবি করার অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

/টিটি/

লাইভ

টপ