ইয়াবা ধরিয়ে দিয়ে ফাঁসানোর সময় হাতেনাতে ধরা এএসআই

Send
রংপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৮:৩৬, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:০০, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০

সোর্সের মাধ্যমে ৫ পিস ইয়াবা ধরিয়ে দিয়ে বাংলাদেশ টোব্যাকো কোম্পানির (বিটিসি) এক কর্মচারীকে গ্রেফতারের চেষ্টা করার সময় জনতার হাতে আটক হয়েছেন পুলিশের এক এএসআই। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রংপুর নগরীর ধাপ চেকপোস্ট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে এসে আটক পুলিশ কর্মকর্তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) শহিদুল্লা কাওছার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ, এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রংপুর নগরীর ধাপ চেক পোস্টের কাছে ডেলিশিয়া হোটেলে বাংলাদেশ টোব্যাকো কোম্পানির মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একটি সভা চলছিল। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আরিফুল ইসলাম রকি নামে চাকরিচ্যুত এক কর্মচারী সভায় উপস্থিত বিটিসির সুপারভাইজার রাজুকে মোবাইল ফোনে বাইরে আসতে বলে। রাজু বাইরে আসার পরই রকি রাজুর হাতে একটি সিগারেটের প্যাকেট দেয়। সঙ্গে সঙ্গে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের এএসআই আবু সায়েম বিটিসির কর্মচারী রাজুকে ধরে ফেলে এবং তাকে ইয়াবা রাখার দায়ে গ্রেফতার করা হলো বলে জানান।
ঘটনা জানাজানি হলে সভায় উপস্থিত থাকা বিটিসির কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে এসে পুলিশের এএসআই আবু সায়েমকে ঘিরে ধরে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ এনে বিক্ষোভ করে। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করার দাবি জানায়। একপর্যায়ে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে হোটেল ডেলিশিয়ার ভেতরে নিয়ে গিয়ে আটকে রাখে। খবর পেয়ে মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার শহিদুল্লা কাওছারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন। তারা পুরো ঘটনা শুনে তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়ে জনতার হাতে আটক পুলিশ কর্মকর্তা আবু সায়েমকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
উপ-পুলিশ কমিশনার শহিদুল্লা কাওছার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পুরো বিষয়টি আমরা তদন্ত করে দেখছি। তদন্তে কেউ দায়ী হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

/এমআর/এমওএফ/

লাইভ

টপ
X