X
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২
২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

৫০০ মিটার পাড়ি দিতেই ঝরলো ৬৯ প্রাণ

আরিফুল ইসলাম রিগান, করতোয়ার তীর থেকে ফিরে
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৮:৫৬আপডেট : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৯:৪১

‘সেদিন (রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর) ভোর থেকে সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছিল। তাই সময়মতো বোদেশ্বরী মন্দিরের উদ্দেশে রওনা হতে পারছিলেন না ভক্তরা। এরপর সকাল ১০টার দিকে বৃষ্টি থেমে গেলে আউলিয়ার ঘাটে জড়ো হতে থাকেন। চিরশান্ত করতোয়ায় সেদিন কিছুটা স্রোত ছিল। নদীর মাত্র ৫০০ মিটার জলপথ পাড়ি দিলেই ওপারে বোদেশ্বরী মন্দির। কিন্তু পর্যাপ্ত নৌকা না থাকায় পুণ্যার্থীরা সময়মতো পার হতে পারছিলেন না। এদিকে মহালয়ার প্রার্থনার সময়ও গড়িয়ে যাচ্ছে। ঘাটে অপেক্ষমাণ ভক্তরা ধৈর্যহারা হয়ে ওঠেন।’

‘বেলা পেরিয়ে দুপুর প্রায় আড়াইটা। করতোয়ার পশ্চিম তীরে ইঞ্জিনচালিত একমাত্র বড় নৌকাটি আউলিয়ার ঘাটে ভেড়ামাত্র নারী শিশুসহ একসঙ্গে অনেকজন উঠে পড়েন। ধারণক্ষমতার দ্বিগুণেরও বেশি যাত্রী উঠলে ঝুঁকি নিয়েই যাত্রা করে নৌকাটি। মাত্র ৫০০ মিটারের মতো দূরত্ব। দুই থেকে তিন মিনিট সময় লাগে পাড়ি দিতে। এর মধ্যেই যাত্রী নিয়ে মাঝ নদীতে নৌকাটি ডুবে যায়।’

গত ২৫ সেপ্টেম্বর (রবিবার) পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার মাড়েয়া ইউনিয়নে করতোয়া নদীতে নৌকাডুবির ঘটনার পটভূমি বর্ণনা করতে গিয়ে এসব কথা জানান পার্শ্ববর্তী বড়শশী ইউনিয়নের বোদেশ্বরী মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি নিতিশ কুমার বকশী ও সহ-সম্পাদক গৌরাঙ্গ রায়।

বড়শশী ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য ও বোদেশ্বরী মন্দির পরিচালনা কমিটির সহ-সম্পাদক গৌরাঙ্গ রায় বলেন, ‘করতোয়া নদীর পশ্চিম প্রান্তে মাড়েয়া ইউনিয়ন ঘাট থেকে পূর্বে বড়শশী ইউনিয়ন ঘাটের দূরত্ব ৪০০ থেকে ৫০০ মিটার হবে। পুরো অংশটি আউলিয়ার ঘাট নামে পরিচিত। এটুকু নৌপথ পাড়ি দিতেই এতগুলো মৃত্যু! ’

তিনি আরও বলেন, ‘ওই দিন ঘাটে গিয়ে প্রথম স্নান করি আমি নিজে। স্নানের পর নৌকার মাঝি ও তার সহযোগীকে বাকি নৌকার কথা জিজ্ঞাসা করলে তারা আমাকে জানান, তারা পাঁচটি নৌকা জোগাড় করতে পেরেছেন। সব নৌকা সময়মতো ঘাটে আসবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মাত্র দুটি নৌকা ছিল।’

মাড়েয়ার ডাঙা পাড়ার বাসিন্দা ও মাড়েয়া ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য মাহবুব আলম প্রধান বলেন, ‘আমার বাড়ির সামনে এই ঘটনা। এখন আমার বয়স ৬০। আমার জীবদ্দশায় এই ঘাটে এমনকি এই করতোয়া নদীতে এমন নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেনি। আমার বাপ-চাচারাও এমন ঘটনার কথা কখনও বলেননি।’

নৌকার ঘাটতি, ইজারাদারের অবহেলাসহ সম্মিলিত অব্যবস্থাপনার ফলে এই নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে দাবি করে সাবেক এই ইউপি সদস্য বলেন, ‘সবই ছিল, কিন্তু পর্যাপ্ত নৌকা আর ব্যবস্থাপনার অভাবে এত মৃত্যু। মন্দির কমিটিও দায় এড়াতে পারে না। তাদের আরও সজাগ হওয়া প্রয়োজন ছিল।’

নৌকাডুবির দায় নিচ্ছেন না কেউ

আউলিয়ার ঘাটটি পঞ্চগড় জেলা পরিষদ ইজারা দিয়ে থাকে। বর্তমানে ঘাটটির ইজারাদার জেলার বোদা ইউনিয়নের কুমার পাড়ার বাসিন্দা আব্দুল জব্বার। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক।

তবে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, আব্দুল জব্বার ঘাট ইজারা নিলেও বড়শশী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য তারা মিয়াসহ কয়েকজন মিলে ঘাটটি পরিচালনা করেন। নৌকাডুবির পরপরই তারা মিয়া ‘অসুস্থ’ হয়ে পড়লে সেদিনই অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে হাসপাতালে নেন পরিবারের সদস্যরা। ঘটনার পাঁচ দিন পর শুক্রবার তিনি বাড়িতে ফেরেন। তবে এ বিষয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এদিকে, জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ নৌকাডুবির ঘটনায় কোনও দায় নিতে রাজি নয়। পঞ্চগড় জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মুহাম্মদ সানিউল কাদের বলেন, ‘জেলা পরিষদ খেয়াঘাটের ইজারা দিলেও নৌযানের তদারকি ও যাত্রী পারাপারের বিষয় দেখে স্থানীয় প্রশাসন। এ ক্ষেত্রে ইজারাদারের কোনও গাফিলতি থাকলে জেলা প্রশাসন গঠিত কমিটির তদন্তে সেটা বেরিয়ে আসবে। তখন ইজারাদারের বিরুদ্ধে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বোদেশ্বরী মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি নিতিশ কুমার বকসী বলেন, ‘মহালয়া পরিচালনা কমিটি স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশের সঙ্গে বৈঠক করে ভক্তদের নির্বিঘ্ন যাতায়াতের ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেছে। ঘাটে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন থাকায় আমরা নিশ্চিন্ত ছিলাম। কারণ তারা থাকলে আমাদের আর কোনও দুশ্চিন্তা থাকে না। নৌকাটিতে এত লোক উঠতে না দিলে কিংবা ওই অবস্থায় নৌকাটি ছাড়তে বাধা দিলেও এই ঘটনা এড়ানো যেত।’

নিজেদের ব্যবস্থাপনার উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‘সেদিন মন্দির প্রাঙ্গণে প্রায় ২০ থেকে ২৫ হাজার ভক্ত সমবেত হয়েছিলেন। আমরা মন্দিরের কাছে ভক্তদের স্নানের ব্যবস্থা করে সেখানে বাঁশ দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করে দিয়েছিলাম। নারী-শিশু সহ সব ভক্ত সেখানে পুণ্যস্নান সেরেছেন। সেখানে কিন্তু কোনও দুর্ঘটনা ঘটেনি। ঘাটে প্রশাসন ও ইজারাদারের অংশীজনরা দায়িত্ব নিয়েছিলেন বলে আমরা আর ওই দিকে মনোযোগ দেইনি। তারপরও আমাদের কমিটির লোকজন বারবার নৌকা বাড়ানোর জন্য ঘাটে গিয়ে বলে এসেছে। কিন্তু ইজারাদারের লোকজন নৌকা বাড়ায়নি।’

নৌকাডুবির ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসনের করা তদন্ত কমিটি তিন দিনের সময়সীমা নিয়ে তদন্ত কাজ শুরু করলেও পরে আরও তিন দিন সময় বাড়ানো হয়। আগামী রবিবার জেলা প্রশাসকের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবেন বলে জানিয়েছেন তদন্ত কমিটির প্রধান ও জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দীপঙ্কর রায়।

তিনি বলেন, ‘আপাতত তদন্ত নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাচ্ছি না। ঘটনার ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণ করে আমাদের কাছে মনে হয়েছে নৌকাটিতে ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী ছিল। বাকি বিষয়গুলো আমরা প্রতিবেদনে উল্লেখ করবো।’

কারও বিরুদ্ধে মামলা হয়নি

নৌকাডুবির ঘটনায় শুক্রবার পর্যন্ত ৩০ নারী, ২১ শিশু ও ১৮ পুরুষসহ মোট ৬৯ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন তিন জন। তবে এত প্রাণহানির পরও এখন পর্যন্ত কারও বিরুদ্ধে মামলা হয়নি। জেলার বোদা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন থানার ওসি সুজয় কুমার রায়। তিনি বলেন, ‘একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। কাউকে অভিযুক্ত করে এখনও কোনও মামলা হয়নি।’

/এফআর/
৮ ডিসেম্বর যেভাবে হানাদার মুক্ত হয় কুমিল্লা
৮ ডিসেম্বর যেভাবে হানাদার মুক্ত হয় কুমিল্লা
ইকুরিয়ার নিয়ে এলো ‘ইন্সটা পে’
ইকুরিয়ার নিয়ে এলো ‘ইন্সটা পে’
দুই নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের আদেশ না মানায় ডিসি-ইউএনওকে তলব
দুই নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের আদেশ না মানায় ডিসি-ইউএনওকে তলব
ব্যক্তিগত তথ্যকেন্দ্রিক বিজ্ঞাপন দেখানো নিষিদ্ধ হচ্ছে ফেসবুকে
ব্যক্তিগত তথ্যকেন্দ্রিক বিজ্ঞাপন দেখানো নিষিদ্ধ হচ্ছে ফেসবুকে
সর্বাধিক পঠিত
টানা কর্মসূচিতে যাচ্ছে বিএনপি
নয়াপল্টনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষটানা কর্মসূচিতে যাচ্ছে বিএনপি
নিষেধাজ্ঞার জাল ভেদ করে কাতার কাঁপানো মিস ক্রোয়েশিয়া!
নিষেধাজ্ঞার জাল ভেদ করে কাতার কাঁপানো মিস ক্রোয়েশিয়া!
নয়াপল্টনে আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে গুলি করা ব্যক্তিটি কে?
নয়াপল্টনে আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে গুলি করা ব্যক্তিটি কে?
বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতির কথা স্মরণ করিয়ে দিলেন জাতিসংঘ প্রতিনিধি
বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতির কথা স্মরণ করিয়ে দিলেন জাতিসংঘ প্রতিনিধি
সরকার বিট্রে করেছে: মির্জা ফখরুল
ব্যাগ নিয়ে কার্যালয়ে ঢুকে গ্রেফতার দেখাবেসরকার বিট্রে করেছে: মির্জা ফখরুল