X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

বগুড়া থেকে শুরু ‘চিরঞ্জীব মুজিব’র বাংলাদেশ সফর

আপডেট : ০৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:০২

জেনে বিস্মিত হবেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ অবলম্বনে নির্মিত চলচ্চিত্র ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ মুক্তি পাচ্ছে ৩১ ডিসেম্বর, দেশের একটি প্রেক্ষাগৃহে! তাও আবার রাজধানীতে নয়, দূর বগুড়ার মধুবন সিনেমা হলে।

বিষয়টি বাংলা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেছেন ছবির সৃজনশীল পরিচালক জুয়েল মাহমুদ। দিয়েছেন ব্যাখ্যাও। 

একদিকে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী আর মুজিববর্ষ, অন্যদিকে দর্শকশূন্য প্রেক্ষাগৃহ। সবটুকু মাথায় নি

 

য়েই মুক্তির আলোয় পা ফেলছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার ছোটবোন শেখ রেহানা নিবেদিত পূর্ণদৈর্ঘ্য এই চলচ্চিত্রটি। 

জুয়েল বলেন, ‘দিনশেষে আমরা তো বঙ্গবন্ধুর সূত্র ধরে দেশ প্রেমের গল্পটাই বলতে চেয়েছি। তাই দীর্ঘ পরিকল্পনা নিয়েই আমাদের প্রতিটি পদক্ষেপ। দেশে প্রপারলি সিনেমা প্রদর্শনের মতো হল রয়েছে মাত্র ২২টি। আমরা এই সবগুলো হলেই সিনেমাটি দেখাতে চাই পর্যায়ক্রমে। আমরা চাই যখন যে প্রেক্ষাগৃহে যাবো, যেন সেই জেলার সিংহভাগ মানুষ ছবিটি দেখার সুযোগ পায়। সেই ভাবনা নিয়েই বগুড়া থেকে শুরু করলাম।’

বগুড়া থেকে এই নির্মাতা জানান, ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ মুক্তির আগেই টানা ৮ দিনের শো বুকিং হয়ে গেছে মধুবন হলের! এরমধ্যে শনি থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত প্রতিদিন প্রথম শো ফ্রি দেখতে পারবেন বগুড়ার শিক্ষার্থীরা। বাকি শো গুলো চলবে স্বাভাবিক নিয়মে দর্শনীর বিনিময়ে।

ছবির সৃজনশীল পরিচালক বলেন, ‌‌‘আমরা চাই পুরো দেশের শিক্ষার্থীদের ছবিটি ফ্রি দেখাতে। বিপরীতে স্থানীয় রাজনীতিকসহ বিভিন্ন পেশার সংগঠনগুলোর সূত্র ধরে এই ছবিটি হলে এসে দেখার বিষয়ে আমরা কাজ করে চলেছি। বগুড়ায় আমরা প্রায় সব পেশার সংগঠন থেকে সাড়া পেয়েছি। ৮ দিনের শো এরমধ্যে বুকড। এভাবে আমরা দেশের প্রায় সবগুলো জেলা কাভার করতে চাই।’

সিনেমার একটি দৃশ্যে আহমেদ রুবেল

 

পরের সপ্তাহে ছবিটি বগুড়ার পাশাপাশি মুক্তি দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে গাজীপুর অথবা দিনাজপুরে। যা দুই এক দিনের মধ্যেই চূড়ান্ত করা হবে।

শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনের ১৯৪৯ থেকে ১৯৫২ সাল উঠে আসবে এই ছবির মাধ্যমে। অর্থাৎ ভাষা আন্দোলনের পটভূমিতে নির্মিত হয়েছে ছবিটি। ছবির পরিচালক নজরুল ইসলাম বলেন, ‘মধুবন-এ ছবিটির প্রদর্শনী উপলক্ষে সব শ্রেণির দর্শকের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া মিলেছে। ইতিমধ্যে ৮ দিনের টিকিট আগাম বিক্রি হয়ে গেছে। রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব), বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ), সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ছাড়াও বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন শোর টিকিট আগাম বুকিং দিচ্ছে। মুক্তির আগেই দর্শকের আগ্রহের কারণে ছবিটির বাণিজ্যিক প্রদর্শন নিয়ে আমরা খুব আশাবাদী।’

‘চিরঞ্জীব মুজিব’ চলচ্চিত্রে বঙ্গবন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন আহমেদ রুবেল। বেগম ফজিলাতুন্নেছার চরিত্রে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা এবং বঙ্গবন্ধুর বাবা ও মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন যথাক্রমে খায়রুল আলম সবুজ ও দিলারা জামান। অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রয়াত এস এম মহসীন, নরেশ ভুঁইয়া, শতাব্দী ওয়াদুদ, মানস বন্দ্যোপাধ্যায়, আরমান পারভেজ মুরাদ, কায়েস চৌধুরী, আজাদ আবুল কালাম, সমু চৌধুরীসহ পাঁচ শতাধিক শিল্পী। 

ছবির সৃজনশীল পরিচালক জুয়েল মাহমুদ বলেন, ‘দেশের প্রেক্ষাগৃহ থেকে দর্শক সরে গেছে। যার প্রমাণ এরমধ্যে আমরা পেয়েছি। অনেক ভালো ছবিও দর্শক টানতে ব্যর্থ হচ্ছে। আমি মনে করি, প্রথম সপ্তাহে বগুড়ার ৫০ হাজার দর্শক আমাদের সিনেমাটি দেখার জন্য হলে আসবে। এটা আজই (বৃহস্পতিবার) আমরা নিশ্চিত হয়েছি। সেই পরিকল্পনা নিয়েই আমাদের যতো উদ্যোগ। তো এই ৫০ হাজার দর্শক থেকে যদি ৫ হাজারও হলে আসার অভ্যাসটা ফিরে পায়, সেটা তো আমাদের সিনেমা শিল্পেরই লাভ।’

‘চিরঞ্জীব মুজিব’ টিম বিশ্বাস করে, এভাবে প্রতিটি প্রেক্ষাগৃহে ন্যুনতম ৫০ হাজার দর্শক সমাগম ঘটানো সম্ভব। আর সেটি হলে বাংলা সিনেমার পুরনো ঐতিহ্য ফিরবেই।

জানা গেছে, দেশের বিভিন্ন জেলা ঘুরে ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ রাজধানীর প্রেক্ষাগৃহে ফিরবে নতুন বছরের ফেব্রুয়ারি নাগাদ।

প্রযোজক লিটন হায়দার জানান, বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রের প্রথম পর্ব

আরেকটি দৃশ্যে পূর্ণিমা

 ‘চিরঞ্জীব মুজিব’। বাকি তিনটি পর্ব নির্মাণের কাজ শুরু হবে শিগগিরই। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধুর শৈশব ও কৈশোর নিয়ে একটি পর্ব, ১৯৫৩ থেকে ১৯৭১ সালের রাজনৈতিক জীবন নিয়ে আরেকটি পর্ব এবং ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত নির্মিত হবে শেষ পর্ব।

/এমএম/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
যুক্তরাষ্ট্রে মানকিপক্সের প্রথম রোগী শনাক্ত
যুক্তরাষ্ট্রে মানকিপক্সের প্রথম রোগী শনাক্ত
‘মুজিব’ টেনে নিলো কানে
কান ডায়েরি-১‘মুজিব’ টেনে নিলো কানে
আগ্রাসী মেন্ডিসকে ফেরালেন তাইজুল
আগ্রাসী মেন্ডিসকে ফেরালেন তাইজুল
শ্রীলঙ্কার লিড
শ্রীলঙ্কার লিড
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত