X
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
২৬ মাঘ ১৪২৯
মৃত্যুদিনে স্মরণ

প্রস্থানের দুই বছর: শিল্পকলায় অবিনশ্বর আলী যাকের

বিনোদন রিপোর্ট
২৭ নভেম্বর ২০২২, ০০:০৪আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩:৫১

মঞ্চপ্রিয় মানুষের কাছে তিনি ‘বাংলার গ্যালিলিও’, টিভি দর্শকের হৃদয়ে ‘বড় চাচা’। এগুলো সেই কাগুজে চরিত্র, যেগুলোকে তিনি নিপুণ অভিনয়শৈলিতে জীবন্ত করে তুলেছেন। যার মাধ্যমে দর্শক-মনে পোক্তভাবে গেঁথে গেছেন তিনি। ফলে দিন-মাস পেরিয়ে বছর যায়, দশক থেকে যুগ যায়, কিন্তু তিনি ও তার চরিত্রেরা ঘুরে বেড়ান এ তল্লাটের মানুষের ভেতরে, অন্তরের গহীনে।
 
মুগ্ধতার স্থায়ী আবেশ ছড়িয়ে যাওয়া সেই মানুষটির নাম আলী যাকের। বাস্তবিক দৃষ্টিতে তিনি চলে গেছেন না ফেরার দেশে। ক্যানসারের কাছে হার মেনে দু’বছর আগে ইতি টানেন বর্ণিল জীবনের। কিন্তু দেশের শিল্পজগতে তার উপস্থিতি, অস্তিত্ব চিরকালের। ব্যক্তি হিসেবে নশ্বর জীবন কাটিয়ে গেলেও কাজের ভুবনে, মঞ্চে ও নাটকের পর্দায় তিনি অবিনশ্বর।
 
রবিবার (২৭ নভেম্বর) আলী যাকেরের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী। ২০২০ সালের এই দিনে তিনি মারা গিয়েছিলেন। 
ঢাকার সংস্কৃতি পাড়া মাতিয়ে রাখা আলী যাকেরের জন্ম চট্টগ্রামের রতনপুরে, ১৯৪৪ সালের ৬ নভেম্বর। বাবার চাকরির সুবাদে দেশের বিভিন্ন জায়গায় শৈশব কেটেছে তার। তবে শিক্ষাজীবনের বড় ধাপ থেকে পেশাজীবন, সব ঢাকাতেই। সেন্ট গ্রেগরি স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, নটর ডেম কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাশ করে তিনি ভর্তি হয়েছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেখান থেকেই সমাজবিজ্ঞানে স্নাতক লাভ করেন। 

অভিনয়ে আলী যাকেরের উল্লেখযোগ্য চরিত্রগুলো আলী যাকের নিজেকে শুধু পড়াশোনায় আটকে রাখেননি। জড়িয়ে পড়েন সাংস্কৃতিক অঙ্গনে। দেশ স্বাধীনের লড়াইয়েও ছিলেন সক্রিয়। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দসৈনিক ছিলেন তিনি। ১৯৭২ সালে ‘আরণ্যক’ নাট্যদলে যোগ দেন আলী যাকের। এই দলের হয়ে মামুনুর রশীদের নির্দেশনায় মুনীর চৌধুরী রচিত ‘কবর’ নাটকে প্রথম অভিনয় করেছিলেন তিনি। 

তবে বেশিদিন ‘আরণ্যক’-এ থাকেননি আলী যাকের। ১৯৭২ সালের জুন মাসেই তিনি যুক্ত হন ‘নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়’-এ। এই দল থেকেই তার উত্থান। একে একে ‘বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ’, ‘বাকি ইতিহাস’, ‘সৎ মানুষের খোঁজে’, ‘দেওয়ান গাজীর কিসসা’, ‘কোপেনিকের ক্যাপ্টেন’, ‘গ্যালিলিও’, ‘ম্যাকবেথ’সহ অনেক আলোচিত মঞ্চনাটকে অভিনয় করেছেন তিনি, পাশাপাশি নির্দেশক হিসেবেও কামিয়েছিলেন নাম।
 
টিভি নাটকেও আলী যাকেরের অভিনয় কালজয়ী হয়ে আছে। ‘আজ রবিবার’, ‘বহুব্রীহি’, ‘তথাপি’, ‘পাথর দেয়াল’সহ অসংখ্য নাটক তার অভিনয়ে দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছে। লেখক হিসেবেও নিজেকে উপস্থাপন করেছিলেন গুণী এই ব্যক্তি। তার লেখা বইয়ের মধ্যে উল্লেখযোগ্য- ‘সেই অরুণোদয় থেকে’, ‘নির্মল জ্যোতির জয়’ প্রভৃতি।

শেষের দিকে আলী যাকের/ ছবি: ইরেশ যাকের সিনেমার পর্দায় অবশ্য সেভাবে পাওয়া যায়নি আলী যাকেরকে। তার নামের পাশে মোটে চারটি ছবির নাম- ‘আগামী’, ‘নদীর নাম মধুমতী’, ‘লালসালু’ ও ‘রাবেয়া’। তবে এই অভিনেতার আরেকটি বড় সফলতা বাংলাদেশের বিজ্ঞাপন তরঙ্গে। কারণ, তার হাত ধরেই গড়ে উঠেছে দেশের প্রধানতম বিজ্ঞাপনী সংস্থা এশিয়াটিক।

সম্প্রতি আলী যাকের সম্পর্কে অসাধারণ কিছু মন্তব্য করেছেন তারই সহযোদ্ধা, অভিনেতা, সংসদ সদস্য ও এশিয়াটিক থ্রিসিক্সটি গ্রুপের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান নূর। তিনি বলেন, ‘আলী যাকের সম্পর্কে আপনারা জানেন, তিনি একদিকে বিজ্ঞাপন জগতের দিকপাল ছিলেন, অন্যদিকে নাটকের জগতেও একজন পথপ্রদর্শক ছিলেন। ১৯৭৩ সালে বাংলাদেশে দর্শনীর বিনিময়ে নাট্যপ্রদর্শন আলী যাকেরের হাত ধরেই শুরু হয়। গাড়ি নিয়ে গ্রাম-গঞ্জে ঘুরে বেড়ানো এবং বুনো ফুলের ছবি তোলা ছিল তার নেশা। আমি অন্তত তাকে নানাভাবে দেখেছি। এসবের ভেতর থেকে যে মানুষটা সবচেয়ে বড় হয়ে ওঠে, তা হলো একজন মুক্তিযোদ্ধা আলী যাকের। এই দেশ এবং দেশের মানুষকে তিনি খুব ভালোবাসতেন। তিনি সবসময় তার সীমিত সামর্থ্যের মধ্যে থেকে মানুষের জন্য কিছু করার চেষ্টা করেছেন।’

আলী যাকের, সারা যাকের ও ইরেশ যাকের শিল্পকলায় অবদানের জন্য ১৯৯৯ সালে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত হয়েছিলেন আলী যাকের। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পুরস্কার, বঙ্গবন্ধু পুরস্কার, মুনীর চৌধুরী পদক, নরেন বিশ্বাস পদক এবং মেরিল-প্রথম আলো আজীবন সম্মাননা পুরস্কার লাভ করেন।

ব্যক্তিগত জীবনে আলী যাকের বিয়ে করেছেন অভিনেত্রী সারা যাকেরকে। নন্দিত এই দম্পতির দুই সন্তান, পুত্র ইরেশ যাকের ও কন্যা শ্রিয়া সর্বজয়া।

/কেআই/এমএম/
সম্পর্কিত
বাংলাদেশ থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নিলো জিফাইভ
বাংলাদেশ থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নিলো জিফাইভ
ফ্যাব ফেস্ট: গল্প-নির্মাণে স্বাধীনতা, এফডিসি সংস্কারসহ আরও যা দাবি…
ফ্যাব ফেস্ট: গল্প-নির্মাণে স্বাধীনতা, এফডিসি সংস্কারসহ আরও যা দাবি…
নতুন ছাতার নিচে নির্মাতারা, ৩০ ডিসেম্বর সম্মেলন
নতুন ছাতার নিচে নির্মাতারা, ৩০ ডিসেম্বর সম্মেলন
অভিনয়ে উন্নতির জন্য এখনও শিক্ষকের কাছে যান ইরেশ
অভিনয়ে উন্নতির জন্য এখনও শিক্ষকের কাছে যান ইরেশ
বিনোদন বিভাগের সর্বশেষ
ভালোবাসা দিবসে স্বামী-স্ত্রী হয়ে আসছেন অপূর্ব ও পায়েল
ভালোবাসা দিবসে স্বামী-স্ত্রী হয়ে আসছেন অপূর্ব ও পায়েল
‘হৃদয়ে মাটি ও মানুষ’-এ প্রধানমন্ত্রী!
‘হৃদয়ে মাটি ও মানুষ’-এ প্রধানমন্ত্রী!
প্রভাস-কৃতির বিয়ের গুঞ্জন কি সত্যি
প্রভাস-কৃতির বিয়ের গুঞ্জন কি সত্যি
আজাদী ময়দানে ৪ দিনব্যাপী নাট্য উৎসব
আজাদী ময়দানে ৪ দিনব্যাপী নাট্য উৎসব
প্রেক্ষাগৃহে ফিরছে সালমান শাহ-শাবনূর জুটি
প্রেক্ষাগৃহে ফিরছে সালমান শাহ-শাবনূর জুটি