X
শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪
১৬ ফাল্গুন ১৪৩০
দিলেন কপিরাইট স্ট্রাইক, পাঠালেন আদালতের আদেশ! 

‘ও পৃথিবী এবার এসে’ গানটি নিয়ে অভিনব আইনি জালিয়াতি

কক্সবাজার প্রতিনিধি
২৪ নভেম্বর ২০২৩, ১০:০৪আপডেট : ২৫ নভেম্বর ২০২৩, ১২:২০

বছর পাঁচেক আগেও দেশের শিল্প-সংস্কৃতির অন্যতম আতঙ্কের নাম ছিল মেধাস্বত্ব জটিলতা কিংবা কপিরাইট ক্রাইম। বিশেষ করে সংগীতাঙ্গনকে একরকম পঙ্গুই করে দিয়েছিল এই বিষয়টি। ঘটেছে মামলা ও জেল-জরিমানার ঘটনাও। এমন জটিলতায় পড়ে অসংখ্য জনপ্রিয় বা দরকারি গানের অকাল মৃত্যুও ঘটেছে। তবে সেসব জটিলতা পেরিয়ে দেশের কপিরাইট আইন এখন অনেকটাই কার্যকর। বিদ্যমান কপিরাইট আইনের পাশাপাশি অনলাইন স্ট্রিমিং মাধ্যমগুলোও এ বিষয়ে এখন বেশ কঠোর। ফলে কপিরাইট ইস্যুতে আজকাল আর তেমন কোনও জটিলতার খোঁজ মেলে না।

ঠিক এমন স্বস্তিকর সময়ে দেশের অন্যতম একটি ঐতিহাসিক গানের মালিকানা নিয়ে দেখা দিয়েছে অভিনব কপিরাইট জটিলতা। সেটিকে এক কথায় বিস্ময়কর জালিয়াতিও বলা যায়। এটি হতে পারে কপিরাইট ইস্যুতে নতুন গবেষণার বিষয়ও। সে বিষয়ে বিস্তারিত যাওয়ার আগে জেনে নেওয়া যাক মূল ঘটনাটি।

ক্রিকেটপ্রেমী কিংবা গান-প্রিয়দের নিশ্চয়ই মনে আছে ২০১১ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত আইসিসি বিশ্বকাপের অফিসিয়াল স্বাগত সংগীত ‘ও পৃথিবী এবার এসে বাংলাদেশ নাও চিনে’ গানটির কথা। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী গীতিকবি জুলফিকার রাসেলের কথায় এর সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন ইবরার টিপু। এতে কণ্ঠ দিয়েছেন ইবরার টিপু, অর্ণব, মিলা, বালাম, কণা ও এলিটা। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে গানটি পরিবেশিত হয় উদ্বোধনী মঞ্চে। তখন থেকে এখনও গানটি দেশে-বিদেশে ব্যাপক জনপ্রিয়। যথাযথ অনুমতি নিয়ে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে গানটি আপলোড করেন এর অন্যতম স্বত্বাধিকারী (রচয়িতা হিসেবে) জুলফিকার রাসেল।

গানটির মূল ভিডিও:

উজ্জ্বল সেই ঘটনার ঠিক এক যুগ পর সম্প্রতি কক্সবাজারের জালাল উদ্দিন নামের জনৈক ব্যক্তি ঐতিহাসিক গানটিকে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করে কপিরাইট ক্লেইম করেন মূল মালিক জুলফিকার রাসেলকে! যথারীতি সেই কপিরাইট স্ট্রাইক থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য গানটির সব তথ্য-প্রমাণ ইউটিউব কর্তৃপক্ষকে পাঠিয়ে রেহাই পেতে হলো। 

তবে এখানেই থামেননি অজ্ঞাতনামা জালাল। বরং তার জালিয়াতি এগিয়েছে আরও অভিনব কায়দায়।
 
এরপর তিনি কক্সবাজার চকরিয়ার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. জাহিদ হোসাইনের নাম, সিল-স্বাক্ষর সমেত ১৭ অক্টোবর প্রেরিত একটি আদেশপত্রও পাঠিয়েছেন ইউটিউব কর্তৃপক্ষ এবং জুলফিকার রাসেল বরাবর! ফের ইউটিউব কর্তৃপক্ষ মূল চ্যানেলের গানটিকে (জুলফিকার রাসেলের চ্যানেল) ব্লক করে দেয়। রায় যায় জালাল উদ্দিনের পক্ষে।

এমন ঘটনায় বিস্মিত ও বিব্রত হয়ে পড়েন গানটির প্রণেতাগণ। কারণ, বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ালো।

এমন ঘটনা অনুসন্ধানে বাংলা ট্রিবিউন খুঁজে পায় জালালের পরিচয়। তিনি কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের সিকদারপাড়া গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে। এবং এটুকুও নিশ্চিত হওয়া গেলো, আদালতের ওই আদেশ সম্পূর্ণ ভুয়া। অথচ জালাল উদ্দিন ওই আদেশপত্র ইউটিউব কর্তৃপক্ষকে পাঠালে গীতিকবি জুলফিকার রাসেলের চ্যানেল থেকে আবারও গানটি ব্লক হয়ে যায়। পায় স্ট্রাইক নোটিশ। বিষয়টি দেখে ফের বিস্মিত ও বিব্রত হন গানের লেখক জুলফিকার রাসেল। পাশাপাশি এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার জন্য কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবীর সঙ্গেও যোগাযোগ করেন তিনি।

৫ অক্টোবর জুলফিকার রাসেল বরাবর জালাল উদ্দিনের পাঠানো মেইল বার্তা আদালতের আইনজীবীর সঙ্গে দেখা করে এ বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজ-খবর নেন বাংলা ট্রিবিউনের কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি আবদুল আজিজ। তিনি চকরিয়ার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক, আইনজীবী এবং পেশকারের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তারা জানান, উল্লেখিত তারিখে এমন ধরনের কোনও আদেশ ইস্যু করেননি আদালত। এমনকি গীতিকবি জুলফিকার রাসেলের নামে আদালতে কোনও অভিযোগ কেউ করেনি। পরে আদেশপত্রের ছবি দেখে বিচারক, আইনজীবী ও পেশকার বলেন, ‘এটি ভুয়া আদেশপত্র। বিচারকের সিল-স্বাক্ষর জালিয়াতি করে আদেশপত্রটি তৈরি করা হয়েছে।’

সাংবাদিক আবদুল আজিজ জানান, গীতিকবি জুলফিকার রাসেলের বিরুদ্ধে আদালতের আদেশের (মামলা নং-সি আর-১০৯) কপিটি যাচাই-বাছাই করেন বিচারক। সবশেষে আদালত থেকে জানানো হয়, ওই আদেশপত্র আদালতের নয়, এমন কোনও আদেশ ইস্যু করেননি বিচারক। সেইসঙ্গে সি আর-১০৯ নম্বর মামলার বাদী এবং বিবাদী অন্য কেউ। যেখানে জুলফিকার রাসেল বা জালাল উদ্দিন নামের কেউ নেই। মূলত অন্য একটি মামলা এবং বিচারকের সিল-স্বাক্ষর জালিয়াতি করে গীতিকবি জুলফিকার রাসেলের বিরুদ্ধে ভুয়া আদেশপত্র তৈরি করেছেন প্রতারক জালাল উদ্দিন।

এ ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করে সাংবাদিক (বাংলা ট্রিবিউন-এর সম্পাদক) ও গীতিকবি জুলফিকার রাসেল বলেন, ‘দেশে এ ধরনের প্রতারকও রয়েছে, যে অন্যের গান নিজের দাবি করে বিচারকের সিল-স্বাক্ষর জালিয়াতি করার সাহস পায়! আমি বিস্মিত হয়েছি। সে নিজেও ব্যক্তিগতভাবে মেইল করে আমার কাছে স্বীকার করেছে, আদালতের কাগজপত্র জাল। জালাল উদ্দিন দুই ধরনের অপরাধ করেছে। একটি হলো কপিরাইট আইনে, অপরটি জালিয়াতি। এরকম কাজ সে এবং অন্য কেউ যেন আর করার সাহস না করে, তাই বিষয়টি নিয়ে আমি আদালতে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।’ 

জুলফিকার রাসেল এমন জালিয়াতি ফৌজদারি অপরাধ বলে উল্লেখ করেছেন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সিনিয়র আইনজীবী আয়াছুর রহমান। তিনি বলেন, ‘এটি ফৌজদারি অপরাধ। কোনও ব্যক্তি যদি আদালত ও বিচারকের সিল-স্বাক্ষর জালিয়াতি করে এবং সেটি আদালতে প্রমাণিত হয়, তাহলে তিন থেকে সাত বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হবে। এ ধরনের ঘটনায় আবার আদালত স্বতঃপ্রণোদিত হয়েও মামলা করতে পারেন। একইসঙ্গে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নিতে পারেন।’

একই কথা বলেছেন হাইকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ফজলুর রহমান। তিনি বলেন, ‘এটি ফৌজদারি অপরাধ। জালিয়াতি প্রমাণ হলে এর শাস্তি হিসেবে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে অর্থদণ্ড বা কারাদণ্ড কিংবা উভয় দণ্ড ভোগ করতে হবে।’

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত জালাল উদ্দিনের সঙ্গে আইনজীবীর মাধ্যমে গত কয়েক দিন ধরে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু তাতে সাড়া দেননি তিনি। তার ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ না করায় বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

১৭ নভেম্বর পাঠানো আদালতের জাল আদেশ এদিকে ফোন না ধরলেও জালাল উদ্দিন তার নিজের ইউটিউব চ্যানেলটিকে জালিয়াতির অভিযোগ থেকে রক্ষা করার আশায় এরইমধ্যে এক মেইল বার্তায় জুলফিকার রাসেলের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। স্বীকার করেছেন, তার পাঠানো আদালতের আদেশটি ভুয়া। তার ভাষায়, ‘আমি জানি, যা করেছি সেটা ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ। আমি ভুল করে আপনাকে কপিরাইট স্ট্রাইক দিয়েছি।’

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সব তথ্য-প্রমাণ বিশ্লেষণ করে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ জুলফিকার রাসেলের ইউটিউব চ্যানেলের মূল গানটিকে কপিরাইট ক্লেম থেকে মুক্ত করেছে। অন্যদিকে জালাল উদ্দিনের চ্যানেলে তোলা গানটিকে ব্লক করেছে। গানটিকে ঘিরে আপাতত ইউটিউব জটিলতা শেষ হলেও দেশের সংগীতের স্বার্থে এবং কপিরাইট ক্রিমিনালদের সামনে নজির সৃষ্টি করার লক্ষ্যে আইনানুগ পথেই হাঁটছেন গানটির অন্যতম স্রষ্টা গীতিকবি জুলফিকার রাসেল। ১৮ নভেম্বর ক্ষমা চেয়ে জুলফিকার রাসেলের কাছে জালাল উদ্দিনের পাঠানো মেইল বার্তা

/এএম/এমএম/এমওএফ/
সম্পর্কিত
এবার শুভ নিজেই গাইলেন ‘মন পাড়ায়’
এবার শুভ নিজেই গাইলেন ‘মন পাড়ায়’
‘লিভিং রুম সেশন’ থেকে পাভেল আরিনের প্রথম গান (ভিডিও)
‘লিভিং রুম সেশন’ থেকে পাভেল আরিনের প্রথম গান (ভিডিও)
ভালোবাসা দিবস: নতুন গানের খোঁজে...
ভালোবাসা দিবস: নতুন গানের খোঁজে...
‘পদ্মশ্রী’ প্রাপ্তিতে সংগীত ঐক্যর পক্ষ থেকে রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যাকে ফুলেল শুভেচ্ছা
‘পদ্মশ্রী’ প্রাপ্তিতে সংগীত ঐক্যর পক্ষ থেকে রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যাকে ফুলেল শুভেচ্ছা
বিনোদন বিভাগের সর্বশেষ
সুনীলকে নিয়ে ফিরছেন কপিল, জানা গেলো দিনক্ষণ
সুনীলকে নিয়ে ফিরছেন কপিল, জানা গেলো দিনক্ষণ
সবচেয়ে ক্ষমতাধর ভারতীয়: তারকাদের মধ্যে শীর্ষে শাহরুখ খান
সবচেয়ে ক্ষমতাধর ভারতীয়: তারকাদের মধ্যে শীর্ষে শাহরুখ খান
কেউ ‘রাজকুমার’ হলে আমি তো রাজা হবো: জায়েদ খান
কেউ ‘রাজকুমার’ হলে আমি তো রাজা হবো: জায়েদ খান
তারকা হতে চাওয়া নিম্নমধ্যবিত্ত রুমিনার গল্প
তারকা হতে চাওয়া নিম্নমধ্যবিত্ত রুমিনার গল্প
নতুন অতিথির অপেক্ষায় দীপিকা-রণবীর
নতুন অতিথির অপেক্ষায় দীপিকা-রণবীর