বিশ বিশেষসাঁতার শিখেছি, এবার আটলান্টিক পাড়ি দেবো

Send
অর্চিতা স্পর্শিয়া, অভিনেত্রী
প্রকাশিত : ০০:০৬, জানুয়ারি ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:১৪, জানুয়ারি ০১, ২০২০

নানা চড়াই-উতরাইয়ের মধ্য দিয়ে দশ-এর দশক শেষ হলো (২০১০-২০১৯)। সাংস্কৃতিক অঙ্গনের জন্য এটি মূলত শূন্যতার দশক। দশে ধ্স—এভাবেও বলছেন কেউ কেউ। সিনেমা, সংগীত, টিভি এমনকি মঞ্চেও নেই উল্লেখযোগ্য কোনও অর্জন। সঙ্গে চলে গেছেন অনেক গুণিজন।
তবে শুরু হওয়া নতুন বছর কিংবা বিশ দশক (২০২০-২০২৯) নিয়ে প্রত্যাশার গল্পও শোনাচ্ছেন অনেকে। বিশে (২০) বিষক্ষয়—এভাবেও মূল্যায়ন করছেন কেউ কেউ। বলছেন, এই বছর থেকে বাংলাদেশের সংস্কৃতিতে আসবে গুণগত পরিবর্তন। সুরাহা হবে বেশিরভাগ সমস্যার। বিশ দশক হবে দেশীয় সংস্কৃতির বৈপ্লবিক জাগরণের। আবার এমনও অনেকে আছেন, যাদের কণ্ঠে হতাশার সুর। বলছেন—দশক কিংবা নতুন বছর বলে কথা নয়। ক্যালেন্ডার বদলালেও কাজের পার্থক্য ১৯ আর ২০! মানে সামান্যই।
‘দশে ধ্স’ আর ‘বিশে বিষক্ষয়’ অথবা ‘১৯/২০’ বিষয়ে সংস্কৃতির বিভিন্ন বিভাগের উল্লেখযোগ্য শিল্পীরা নিজেদের পর্যালোচনা তুলে ধরলেন বাংলা ট্রিবিউন-এর বিশেষ এই আয়োজনে।

অর্চিতা স্পর্শিয়া২০১০ সালে আমি ‘ও লেভেল’ দিয়েছি। ২০১১ সালে প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়াই। প্রথমে একটা টিভিসি, পরে একটি টেলিছবি করি। শুরু হয়ে গেলো আমার অ্যাকটিং ক্যারিয়ার।
২০১৪ সালে এসে আমি প্রথম অনুভব করি ‘ভালোবাসা’ বিষয়টি! মানে প্রেম। এক বছরের মাথায় ২০১৫ সালে সেই প্রেম ভেঙে গেলো! মানে প্রথম মন ভাঙার স্বাদ গ্রহণ করি। সেটি ছিল এ পর্যন্ত আমার জীবনের সবচেয়ে বাজে সিদ্ধান্ত। তবে এ নিয়ে অনুতপ্ত নই। কারণ, এই ভাঙাগড়া ইস্যুটা থেকে অনেক কিছু শিখেছি।
ফিনিক্স পাখির মতো ২০১৬ সালে আমি আবার উঠে দাঁড়ালাম। ২০১৭ সালে এসে একসঙ্গে দুটি সিনেমার কাজ করলাম। শুরু হলো আমার ফিল্ম ক্যারিয়ার। আবার ২০১৮ সালে এসে আমি অনেক কিছু হারিয়ে ফেললাম। শেষ বছর (২০১৯) আমি আবার ঘুরে দাঁড়ানোর সাহস অনুভব করলাম। এই বছর আমার প্রথম এবং আরও দুটি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে! বছর শেষে এসেছিল ‘কাঠবিড়ালী’।
তো বছরের শেষ দিনে (৩১ ডিসেম্বর ২০১৯) দাঁড়িয়ে যখন আমি বাংলা ট্রিবিউনের অনুরোধে পেছনে তাকালাম, তখন পুরো একটা দশক আমার চোখের সামনে ভেসে উঠলো, মুহূর্তেই। এই ফিরে দেখা সত্যিই রোমাঞ্চকর বিষয়।
তো এই ফিরে দেখার পর নিজেকে মনে হলো একজন অপরাজিতার মতো। যে আসলে ভাঙার নয়, হেরে যাওয়ার নয়, থেমে যাওয়ার নয়। এই দশ বছরে আমি কিশোরী থেকে নারী হয়ে উঠেছি!
এই দশ বছরে আমার সবচেয়ে বড় অর্জন কোনটা জানেন? সাঁতার শিখেছি! বিশ দশকে আমি আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দেবো। কথা দিচ্ছি।
শেষে এটুকু বলি, এই শহর, সমাজ, মিডিয়া, রাষ্ট্র কিংবা পৃথিবীর প্রতিটি মানুষ নিজের মতো ভালো থাকুক—সেই প্রত্যাশা সবসময় করি।
শুভ নববর্ষ।
শ্রুতিলিখন: মাহমুদ মানজুর

/এমএম/এমএমজে/

লাইভ

টপ
X