শেখ হাসিনার গল্প নিয়ে মা-মেয়ের পুতুল নাট্য (ভিডিও)

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:০৭, আগস্ট ১৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৪৯, আগস্ট ১৪, ২০২০

অভিনেত্রীর পাশাপাশি আরেকটি পরিচয়ে নিজেকে উপস্থাপন করতে ভালোবাসেন কাজী নওশাবা আহমেদ। সেটা হলো পাপেটশিল্পী।
পাপেট নিয়ে কাজ করতে ইতোমধ্যে গড়েছেন ‘টুগেদার উই ক্যান’ নামে একটি সংগঠন। সেই সংগঠনের হয়েই পুতুল সেজে এবার সাহসী বাঙালি নারীদের জীবন অবলম্বনে লেখা গল্প শোনাচ্ছেন তিনি ও তার মেয়ে প্রকৃতি। মোট ১২ জনের গল্প থাকছে এতে। গত ৪ আগস্ট প্রথম পর্বে ছিল নবাব ফয়জুন্নেসার কাহিনি।
আর আজ (১৩ আগস্ট) সন্ধ্যা ৬টায় এলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে গল্প।
এটি অবমুক্ত হয়েছে লেটস রিড বাংলাদেশ ও হার স্টোরি ফাউন্ডেশনের ফেসবুক পেজে।
এশিয়া ফাউন্ডেশনের সঙ্গে হার স্টোরি ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এ কাজগুলো করছে। মহীয়সী নারীদের এই গল্পগুলো সপ্তাহে ৩ দিন করে দেখানো হচ্ছে।
গল্পগুলোতে পাপেটের মুখ্য চরিত্র ‘অমিয়া’ হিসেবে আছেন নওশাবা আর ‘শম্বু প্যাঁচা’ হলো তার মেয়ে প্রকৃতি। এছাড়া ধ্রুবতারা নামে আরও একটি চরিত্র রয়েছে এতে।
নওশাবা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‌‘‘জনপ্রিয় পাপেট শো ‘সিসিমপুর’-এ ‘ইকরি’ চরিত্র দিয়ে পাপেট নিয়ে আমার কাজ শুরু। সেই পুরনো দিনগুলোই ফিরিয়ে আনছি। চরিত্র তৈরি থেকে কস্টিউম সবই আমরা দলগতভাবে করছি। আমাদের নতুন এ প্রজেক্টে ১২ জন মহীয়সী নারীর কথা তুলে ধরছি, যারা আমাদের প্রেরণা ও পথ দেখাচ্ছেন। আবার বলা যায়, তারা ঘরে-বাইরে সব জায়গায় নিজের প্রতিভার উজ্জ্বল স্বাক্ষর রেখেছেন। সেই ধারাবাহিকতায় আজ এলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে গল্পটি। এর আগে আরও ৫টি পর্ব প্রচার হয়েছে।’’কাজী নওশাবা আহমেদ
নওশাবা আরও বলেন, ‘শুরু থেকেই আমার ভাবনায় ছিল এত বড় বড় মহীয়সীকে কীভাবে শিশুদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে পারি। বাচ্চাদের সামনে শুধু গল্প পড়ে গেলে তারা অনেক কিছুই বুঝতে পারবে না। তাদের মনে অনেক প্রশ্ন আসবে, সেসবের উত্তর না দিতে পারলে আমার উদ্যোগটি সফল হবে না। তাই আমি আমার মেয়ের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে ভাবলাম। একটা গল্প বলার সময় তার মনে যা যা প্রশ্ন আসতে পারে, সেই প্রশ্নগুলো করার জন্য বানালাম শম্বু প্যাঁচা ও ধ্রুবতারা চরিত্র দুটো, যারা গল্পের সূত্রধর অমিয়ার কাছ থেকে শুনে শুনে প্রশ্ন করবে।’
জানান, এই প্রজেক্টের আওতায় আগামীতে আরও ছয়টি পর্ব প্রকাশ হবে।
এই উদ্যোগের জন্য কাজী নওশাবা আহমেদ কৃতজ্ঞতা জানান এশিয়া ফাউন্ডেশনের বাংলাদেশ প্রতিনিধি কাজী ফয়সাল সিরাজ এবং হার স্টোরি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা জেরীন মাহমুদ হুসেইনের প্রতি। তার মতামত এমন, এই দুজন মানুষের নিরন্তর উৎসাহ না পেলে কাজটি একার পক্ষে করা সম্ভব হতো না।
শেখ হাসিনার গল্প নিয়ে মা-মেয়ের পুতুল নাট্য:

/এম/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ