X
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২
১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

বাইডেন-পুতিন বৈঠক নিয়ে কী ভাবছে ক্রেমলিন?

বিদেশ ডেস্ক
১৫ জুন ২০২১, ২০:১৫আপডেট : ১৫ জুন ২০২১, ২০:১৫

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে সরাসরি বৈঠকে বসছেন রুশ প্রেসিডেন্ট প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ১৬ জুন বুধবার জেনেভায় দুই নেতার এই শীর্ষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। বাইডেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেওয়ার পর এটিই দুই নেতার প্রথম কোনও সরাসরি বৈঠক। তবে উভয় দেশের সম্পর্ক বিবেচনায় এটা বলাই যায় যে, দুই নেতার মধ্যে কোনও বন্ধুত্বপূর্ণ সাক্ষাৎ হবে না।

ক্রেমলিনের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, দুই নেতার বৈঠকে হয়তো উভয় দেশের মধ্যে কোনও চুক্তি সম্পাদন হবে না। কিন্তু এই বৈঠকের প্রয়োজন রয়েছে। পুতিনের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করছেন ইউরি উষাকভ। তিনি বলেন, দুই নেতা কোনও সমঝোতায় পৌঁছাতে পারবেন কিনা; সে ব্যাপারে আমি নিশ্চিত নই। তবে এ বৈঠকের ব্যাপারে আমি আশাবাদী।

রাশিয়া সম্প্রতি তাদের অবন্ধুসুলভ দেশের তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের নাম যোগ করেছে। যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া উভয় দেশই বলছে, তাদের মধ্যকার সম্পর্ক এখন প্রায় তলানিতে নেমে এসেছে। দুই দেশের কারও এখন অন্য দেশে রাষ্ট্রদূত নেই। ঊর্ধ্বতন রুশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে নানা কারণে। রাশিয়া যেভাবে ইউক্রেনের ক্রিমিয়া অঞ্চল দখল করে তা নিজ দেশের অন্তর্ভুক্ত করেছে সেটি যুক্তরাষ্ট্রকে ক্ষিপ্ত করেছে। তাছাড়া অন্য দেশের নির্বাচনে রাশিয়া নাক গলায় এমন অভিযোগেও কিছু নিষেধাজ্ঞা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। দুই জন সাবেক মার্কিন মেরিন সেনা এখন রুশ কারাগারে বন্দি। এদের একজন গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে ১৬ বছরের সাজা খাটছে।

দুই দেশের এই বৈরী সম্পর্কে আরও যুক্ত হয়েছে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের একটি মন্তব্য। গত মার্চে এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন তার সাক্ষাৎকার গ্রহণকারীর সঙ্গে একমত হন যে, ভ্লাদিমির পুতিন আসলে ‘একজন খুনি।’ কিন্তু এত কিছুর পরও এই দুই জন দুই দেশের প্রেসিডেন্ট হিসেবে এই প্রথম মুখোমুখি হবেন। রাশিয়ার কিছু মানুষ এটিকেও এক বড় অর্জন বলে মনে করেন।

মস্কোর একটি থিংক ট্যাংক রিয়াকের পরিচালক আন্দ্রে কুর্টানভ। তিনি বলেন, ‘প্রতীকী তাৎপর্যের কথা বিবেচনা করলে এই শীর্ষ বৈঠক বেশ গুরুত্বপূর্ণ। এটি রাশিয়াকে যুক্তরাষ্ট্রের পাশে এক কাতারে স্থান দিচ্ছে। পুতিনের কাছে এই প্রতীকী ব্যাপারটা কম গুরুত্বপূর্ণ নয়।’ এই বৈঠকটি হচ্ছে প্রেসিডেন্ট বাইডেন হোয়াইট হাউসে আসার পর একেবারে প্রথম পর্যায়ে এবং তার প্রথম বিদেশ সফরের সময়। তিনি নিজেই এ রকম একটি বৈঠকের অনুরোধ জানিয়েছেন। এগুলো কিন্তু ভ্লাদিমির পুতিনের জন্য বোনাস পয়েন্ট। আর এটি একটি পূর্ণাঙ্গ শীর্ষ বৈঠক, অন্য কোনও অনুষ্ঠানের ফাঁকে কোনও সংক্ষিপ্ত সাক্ষাৎ নয়। রাজনৈতিক বিশ্লেষক লিলিয়া শেভটসোভার মতে, ‘পুতিন নিঃসন্দেহে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের সমকক্ষ হতে চান। তিনি চান তার মত করে যেন তাকে শ্রদ্ধা করা হয়। পুতিন তার পৌরুষদীপ্ত পেশী প্রদর্শন করতে চান আবার একইসঙ্গে এই ক্লাবের সদস্যও হতে চান।’

ইতিহাস এবং আশাবাদ

ভ্লাদিমির পুতিন এবং জো বাইডেনের শীর্ষ বৈঠকটি হবে জেনেভায়। তাদের বৈঠকের জন্য জেনেভাকে বেছে নেওয়ার সিদ্ধান্ত স্নায়ুযুদ্ধের সময় ১৯৮৫ সালে আরেকটি শীর্ষ বৈঠকের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে। সেই বৈঠকে প্রথম মুখোমুখি হয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগ্যান এবং সোভিয়েত নেতা মিখাইল গরবাচভ। কিন্তু এমন সম্ভাবনা খুবই কম যে এ সপ্তাহের শীর্ষ বৈঠকটি সেই বৈঠকের মতো কিছু হবে। রেগ্যান এবং গরবাচভ যেভাবে ব্যক্তিগত সুসম্পর্ক স্থাপন এবং রাজনৈতিক বরফ গলাতে সক্ষম হয়েছিলেন, পুতিন-বাইডেন বৈঠক থেকে সে রকম কিছু আশা করা হচ্ছে না।

হোয়াইট হাউস বলছে, তারা রাশিয়ার সঙ্গে একটি স্থিতিশীল এবং অনুমানযোগ্য সম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। কিন্তু পুতিনের কাজের ধারা একেবারেই ভিন্ন। তিনি ২০১৪ সালে যখন সেনা পাঠিয়ে ইউক্রেনের কাছ থেকে ক্রিমিয়া দখল করে নিলেন, এই অঞ্চলটিকে নিজ দেশের অন্তর্ভুক্ত করলেন, তখন থেকেই তাকে নিয়ে দুশ্চিন্তা তৈরি হয়েছে। তিনি এরপর কী করবেন, সেটা কেউ অনুমান করতে পারছেন না। রাশিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের অবনতির শুরু তখন থেকে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষক লিলিয়া শেভটসোভা মনে করেন, এই শীর্ষ বৈঠকের একটি সম্ভাব্য লক্ষ্য হতে পারে, দুই পক্ষের রেড লাইন বা সর্বশেষ সীমারেখা কোথায় সেটা পরীক্ষা করে দেখা। সেই সঙ্গে এ রকম একটা উপলব্ধিতে পৌঁছানো যে, আলোচনার মাধ্যমেই এই অতল গহ্বর হতে উঠে আসতে হবে। তিনি আরও বলেন, যদি দুই পক্ষ কোন কথাবার্তা না বলে, তখন রাশিয়ার ভাবগতি অনুমান করা আরও বেশি কঠিন হয়ে পড়বে। সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স।

/এমপি/
মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সঙ্গে বিজিবির বৈঠকে ১২ সিদ্ধান্ত
মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সঙ্গে বিজিবির বৈঠকে ১২ সিদ্ধান্ত
জারিফ পেলো জিপিএ-৫, বাবা বেঁচে থাকলে সবচেয়ে খুশি হতেন
জারিফ পেলো জিপিএ-৫, বাবা বেঁচে থাকলে সবচেয়ে খুশি হতেন
সোনা মসজিদ স্থলবন্দরে ইমিগ্রেশন চালুর সুপারিশ
সোনা মসজিদ স্থলবন্দরে ইমিগ্রেশন চালুর সুপারিশ
ডেঙ্গুতে আরও ৩ মৃত্যু
ডেঙ্গুতে আরও ৩ মৃত্যু
সর্বাধিক পঠিত
পাসপোর্ট অফিসে দেড় ঘণ্টা বসে থেকে পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে আটক করলো দুদকের টিম
পাসপোর্ট অফিসে দেড় ঘণ্টা বসে থেকে পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে আটক করলো দুদকের টিম
বিনা জরিমানায় রিটার্ন জমা দেওয়া যাবে দুই দিন
বিনা জরিমানায় রিটার্ন জমা দেওয়া যাবে দুই দিন
রওশন এরশাদের সঙ্গে জাতীয় পার্টির নেতাদের বসার সুযোগ নেই: মহাসচিব
রওশন এরশাদের সঙ্গে জাতীয় পার্টির নেতাদের বসার সুযোগ নেই: মহাসচিব
মিছিল নিয়ে জেলা আ.লীগের সম্মেলনে ডা. মুরাদ হাসান
মিছিল নিয়ে জেলা আ.লীগের সম্মেলনে ডা. মুরাদ হাসান
ডিফেন্স ডিফেন্স আর ডিফেন্স, এক মন্ত্র সুইসদের
ডিফেন্স ডিফেন্স আর ডিফেন্স, এক মন্ত্র সুইসদের