X
শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪
১০ শ্রাবণ ১৪৩১

ইরানপন্থি সশস্ত্র গোষ্ঠীর ওপর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেই তেহরানের: যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫:৪০আপডেট : ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২১:৩১

মধ্যপ্রাচ্যে ইরানপন্থি সশস্ত্র গোষ্ঠীর ওপর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেই তেহরানের। এমনটাই ধারণা করছেন মার্কিন কর্মকর্তারা। মার্কিন সেনাদের ওপর হামলা ও হত্যার জন্য  সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো নিজেরাই দায়ী। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম পলিটিকো এ খবর জানিয়েছে।

ইরানপন্থি সশস্ত্র গোষ্ঠীর অভিযানের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ওপর তেহরানের সম্পূর্ণ কর্তৃত্ব না থাকার বিষয়টি উল্লেখ করে মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, ইরাক ও সিরিয়ার পাশাপাশি ইয়েমেনের হুথিদের সমর্থন, অস্ত্র সরবরাহ ও সামরিক উপদেষ্টাসহ গোয়েন্দা পাঠানোর জন্য দায়ী ইরানের বিপ্লবী গার্ড কর্পসের কুদস ফোর্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জর্ডান হামলার প্রতিক্রিয়ায় ইরাক ও সিরিয়ায় ইরানের লক্ষ্যবস্তুতে হামলার বিবেচনা করছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে বাইডেন প্রশাসন এই হামলার পরিকল্পনা প্রসঙ্গে আলোচনা করেনি।

জানা গেছে, তেহরানের সঙ্গে ওয়াশিংটনের নিয়মিত ও সরাসরি যোগাযোগ নেই। তাই মার্কিন সেনাদের ওপর হামলা চালানোর সঙ্গে ইরান কতটা জড়িত তা বোঝার চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা মনে করেন, সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোকে আর্থিক ও সামরিক সরঞ্জাম দিয়ে সহায়তা করলেও, হামলার নির্দেশ দেয়নি ইরান। মার্কিন কর্মকর্তাদের একজন বলেন, এই অঞ্চল এখন সম্ভবত সবচেয়ে জটিল সময় অতিবাহিত করছে।

মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন হামলার জন্য ইরানকে আংশিক দায়ী করে বাইডেন প্রশাসন বলেছে, এই অঞ্চলের সব আক্রমণ তেহরান করছে না। তবে ইন্ধন দিচ্ছে।

ইরানকে মধ্যপ্রাচ্যে সহিংসতার জন্য দায়ী করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেন, যারা হামলা করছে তাদেরকে অস্ত্র সরবরাহ করছে ইরান।

তবে মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলছেন, গাজায় সহিংসতা বন্ধ হলে ইরান-সমর্থিত সব গোষ্ঠী এই অঞ্চলে হামলা চালানো বন্ধ করবে।

/এসএইচএম/
সম্পর্কিত
টাইফুন গেইমি তাইওয়ান ও ফিলিপাইনের পর আঘাত হানলো চীনে
আলাস্কার কাছে চীন ও রাশিয়ার প্রথম যৌথ টহল
মার্কিন কংগ্রেসে ভাষণযুদ্ধোত্তর গাজার জন্য নেতানিয়াহু’র অস্পষ্ট রূপরেখা
সর্বশেষ খবর
অনতিবিলম্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে: সাধারণ শিক্ষার্থী মঞ্চ
অনতিবিলম্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে: সাধারণ শিক্ষার্থী মঞ্চ
অলিম্পিকে ৪০ বছরে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স যেমন ছিল
অলিম্পিকে ৪০ বছরে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স যেমন ছিল
জুমার নামাজ ঘিরে বাড়তি সতর্কতা
জুমার নামাজ ঘিরে বাড়তি সতর্কতা
এক দফা আন্দোলন সফলের আহ্বান ছাত্রদলের
এক দফা আন্দোলন সফলের আহ্বান ছাত্রদলের
সর্বাধিক পঠিত
নাটকীয় হারে আর্জেন্টিনার অলিম্পিক যাত্রা শুরু
নাটকীয় হারে আর্জেন্টিনার অলিম্পিক যাত্রা শুরু
মারা গেলেন ব্যান্ড তারকা শাফিন আহমেদ
মারা গেলেন ব্যান্ড তারকা শাফিন আহমেদ
যা ঘটেছিল নরসিংদী কারাগারে, যেভাবে পালালেন ৮২৬ বন্দি
যা ঘটেছিল নরসিংদী কারাগারে, যেভাবে পালালেন ৮২৬ বন্দি
বাংলাদেশে সাম্প্রতিক অস্থিরতা প্রসঙ্গে যা বলছে ভারত
বাংলাদেশে সাম্প্রতিক অস্থিরতা প্রসঙ্গে যা বলছে ভারত
এখনও আঁতকে ওঠেন যাত্রাবাড়ী, কাজলা ও শনির আখড়ার বাসিন্দারা
এখনও আঁতকে ওঠেন যাত্রাবাড়ী, কাজলা ও শনির আখড়ার বাসিন্দারা