X
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪
২৯ আষাঢ় ১৪৩১

ইসরায়েলি অভিযান নিয়ে হিজবুল্লাহকে যে সতর্কবার্তা দিলো যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৫ জুন ২০২৪, ১৭:১০আপডেট : ২৫ জুন ২০২৪, ২৩:০০

মধ্যপ্রাচ্যে বৃহত্তর যুদ্ধ ঠেকানোর চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে একই সঙ্গে মার্কিন কর্মকর্তারা লেবাননের ইরানপন্থি সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহকে এক অস্বাভাবিক সতর্কবার্তা দিচ্ছেন। আর তা হলো: ইসরায়েলকে লেবানন আক্রমণে ঠেকাবে ওয়াশিংটন, এমন কিছু আশা করবেন না। মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকো’র এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

এমন আলোচনার সঙ্গে পরিচিত এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের এমন সতর্কতার লক্ষ্য হলো শিয়া মিলিশিয়া গোষ্ঠীকে পিছু হটতে এবং ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা কমিয়ে সংকট নিরসনে বাধ্য করার চেষ্টা। 

আগামী সপ্তাহগুলোতে হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে লেবাননের অভ্যন্তরে বড় ধরনের সামরিক অভিযান চালাতে পারে ইসরায়েল, এমন আশঙ্কার প্রেক্ষাপটে মার্কিন কর্মকর্তাদের এই বার্তার কথা সামনে এলো। 

দুই মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, হিজবুল্লাহকে বুঝতে হবে তারা যদি পাল্টা হামলায় চালায় তাহলে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষায় সহযোগিতা করবে ওয়াশিংটন। তারা জোর দিয়ে বলছেন, লেবাননে ইসরায়েলি হামলা ঠেকানোর ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর ভরসা করা তাদের উচিত হবে না। যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলি সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় লাগাম টানতে পারবে না।

হিজবুল্লাহকে এই বার্তা পরোক্ষভাবে দেওয়া হয়েছে। কারণ হিজবুল্লাহকে একটি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র এবং গোষ্ঠীটির সঙ্গে সরাসরি কোনও আলোচনা করে না। বার্তা দেওয়ার ক্ষেত্রে সরকারি যোগাযোগ ব্যবস্থা বা মধ্যস্থতাকারীদের ওপর নির্ভর করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূত আমো হোচেস্টেইন ও অপর মার্কিন কর্মকর্তারা সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্য সফর করেছেন। তাদের সফরের লক্ষ্য ছিল উভয়পক্ষকে শান্ত করা। কারণ ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে ওয়াশিংটন সংঘাত অনিবার্য বলে মনে করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেছেন, ইসরায়েলের যা করার দরকার তারা তা করবে। 

সংঘাতের তীব্রতা কম থাকলেও কয়েক মাস ধরে পাল্টাপাল্টি হামলা চালিয়ে আসছে ইসরায়েল ও হিজবুল্লাহ। কয়েক সপ্তাহ ধরে এই উত্তেজনা নতুন করে তীব্রতা পেয়েছে। গাজায় হামাসের বিরুদ্ধে ইসরায়েলি অভিযানের তীব্রতা কিছুটা কমতে না কমতেই এই উত্তেজনা বাড়তে শুরু করেছে।

মার্কিন কর্মকর্তাদের আশঙ্কা, ইসরায়েল ও হিজবুল্লাহর মধ্যে সর্বাত্মক যুদ্ধ পুরো মধ্যপ্রাচ্যে ছড়িয়ে পড়তে পারে। হামাস ও হিজবুল্লাহ উভয় গোষ্ঠীকে সমর্থন করে ইরান। কিন্তু হামাসের তুলনায় হিজবুল্লাহ অনেক বেশি শক্তিশালী, সংগঠিত ও শক্তিশালী অস্ত্রে সজ্জিত। গত অক্টোবরে হামাস-ইসরায়েল যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই ওয়াশিংটন মধ্যপ্রাচ্যে বৃহত্তর সংঘাত ঠেকানোর চেষ্টা করে যাচ্ছে।

সোমবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার সাংবাদিকদের বলেছেন, ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে চলমান সংঘাত বন্ধে কূটনৈতিক সমাধান হওয়া উচিত। এই সংঘাতের কারণে হাজার হাজার মানুষ নিজেদের বাড়িঘরে ফিরতে পারছেন না। 

হিজবুল্লাহকে সতর্কবার্তা দেওয়ার বিষয়ে পলিটিকোর পক্ষ থেকে মন্তব্যের অনুরোধ করা হলে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও হোয়াইট হাউজের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ তাৎক্ষণিক কোনও সাড়া দেয়নি।

ওয়াশিংটন সফরে রয়েছেন ইসরায়েলি প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োভ গ্যালান্ট। সফরে তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সহকারীদের সঙ্গে আলোচনা করবেন। তার আলোচনায় গুরুত্ব পেতে পারে ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তের উত্তেজনা।

দুই মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, হিজবুল্লাহর সঙ্গে সংঘাতে যেকোনও পরিস্থিতিতে ইসরায়েলকে রক্ষায় সহযোগিতা করবে বাইডেন প্রশাসন। এর মধ্যে থাকবে আয়রন ডোম ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার সরঞ্জাম থেকে শুরু করে গোয়েন্দা তথ্য সরবরাহ। যদি ইসরায়েল হিজবুল্লাহর রকেট হামলার মুখে নাস্তানাবুদ হয়ে পড়ে তাহলে যুক্তরাষ্ট্র হয়তো সরাসরি সামরিক সহযোগিতা দেওয়ার দিকে এগোতে পারে।

ওই দুই কর্মকর্তা আরও বলেছেন, ইসরায়েল সম্ভবত করণীয় নিয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি। সম্ভব কেউ-ই সর্বাত্মক যুদ্ধ চাইছে না, ইরানও এমনটি হয়তো চাইছে না।

অপর এক সিনিয়র মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, ইসরায়েলের সঙ্গে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান মনোযোগ হলো নেতানিয়াহুর পরিকল্পনায় বাস্তবতাকে উপস্থিত করার চেষ্টা। 

আরেক সিনিয়র কর্মকর্তারা মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো মনে করে, হিজবুল্লাহ নেতা হাসান নাসরাল্লাহ একটি যুদ্ধে জড়াতে চাইছেন না। কিন্তু ভুল বোঝাবুঝি থেকে সংঘাতের ঝুঁকি বেড়েছে। 

গাজায় কয়েক মাসের যুদ্ধে ইসরায়েলি সেনারা কিছুটা ক্লান্ত। সেই যুদ্ধ অবসানের এখনও কোনও ইঙ্গিত স্পষ্ট না। কিন্তু মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপে ইসরায়েলি নেতারা যুক্তি তুলে ধরছেন কেন হিজবুল্লাহকে এখনই আঘাত করা দরকার। ইসরায়েল বাস্তুচ্যুতদের নিজ এলাকায় ফিরিয়ে আনতে চায়। কারণ সেখান থেকে মানুষদের চলে যাওয়ার ফলে সীমান্তে দেশটির নিয়ন্ত্রণ প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়েছে। বিষয়টি ইসরায়েলে সংবেদনশীল।

কিন্তু ইসরায়েল যদি হিজবুল্লাহকে আক্রমণ করে এবং গোষ্ঠীটি পাল্টা হামলা চালায়, তাহলে আরেক দফা যুদ্ধের সূত্রপাত হতে পারে। এর ফলে আরও এলাকা থেকে মানুষদের বাস্তুচ্যুতি ঘটবে। 

ইসরায়েল যুক্তি তুলে ধরে বলছে, যুক্তরাষ্ট্র যদি ইসরায়েলি অভিযানের প্রতি সমর্থন জানায়, এমনকি ইসরায়েলের হুমকির প্রতি সমর্থন জারি রাখে, তাহলে হিজবুল্লাহ পিছু হটতে বা যুদ্ধবিরতিতে রাজি হবে।

হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে ইসরায়েল কোন ধরনের অভিযানের কথা ভাবছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। হিজবুল্লাহ শুধু যে অস্ত্রে শক্তিশালী তা নয়, লেবাননে তাদের রাজনৈতিক প্রভাবও রয়েছে। বিমান হামলার মাধ্যমে গোষ্ঠীটিকে ঠেকিয়ে রাখা যেতে পারে। আবার স্থল অভিযানে হয়তো একটি বাফার জোন গড়ে তোলা সম্ভব। আবার বিমান ও স্থল হামলার সমন্বয়ও সম্ভব। 

তবে মার্কিন সেনাপ্রধান জেনারেল সি.কিউ. ব্রাউন ইসরায়েলকে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেছেন, যদি ইসরায়েল ও হিজবুল্লাহর মধ্যে বৃহত্তর সংঘাত শুরু হয় তাহলে এপ্রিলে ইরানের ড্রোন হামলার বিরুদ্ধে যে ধরনের সহযোগিতা করা সম্ভব হয়েছিল, তখন হয়তো তা করতে পারবে না যুক্তরাষ্ট্র। 

এর কারণ হলো, ভৌগোলিকভাবে ইরানের চেয়ে ইসরায়েলের কাছাকাছি অবস্থান করছে হিজবুল্লাহ। এর ফলে হিজবুল্লাহর রকেট হামলায় সময় লাগে কম। হামাসের চেয়ে হিজবুল্লাহর রকেটের সংখ্যাও বেশি।

 

/এএ/এমওএফ/
সম্পর্কিত
মস্কোর কাছে রুশ জেট বিধ্বস্ত, তিন ক্রু নিহত
ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের দখলদারিত্ব নিয়ে মামলার রায় আগামী শুক্রবার
ধনকুবেরদের ওপর অতিরিক্ত করারোপের আহ্বান কংগ্রেসের
সর্বশেষ খবর
মস্কোর কাছে রুশ জেট বিধ্বস্ত, তিন ক্রু নিহত
মস্কোর কাছে রুশ জেট বিধ্বস্ত, তিন ক্রু নিহত
উজানে কমছে, ভাটিতে এখনও হাজারো পরিবার পানিবন্দি
উজানে কমছে, ভাটিতে এখনও হাজারো পরিবার পানিবন্দি
টিভিতে আজকের খেলা (১৩ জুলাই, ২০২৪)
টিভিতে আজকের খেলা (১৩ জুলাই, ২০২৪)
পদ্মার পানি বিপদসীমার ওপরে, ফেরি চলছে ধীরে
পদ্মার পানি বিপদসীমার ওপরে, ফেরি চলছে ধীরে
সর্বাধিক পঠিত
ভিটামিন বি-১২ কমে গেলে যেসব রোগের ঝুঁকি বাড়ে
ভিটামিন বি-১২ কমে গেলে যেসব রোগের ঝুঁকি বাড়ে
দুই টাইলসের মাঝে দাগ পড়লে কী করবেন
দুই টাইলসের মাঝে দাগ পড়লে কী করবেন
রাশিয়াকে সহযোগিতা নিয়ে ন্যাটোর অভিযোগে চীনের পাল্টা আক্রমণ
রাশিয়াকে সহযোগিতা নিয়ে ন্যাটোর অভিযোগে চীনের পাল্টা আক্রমণ
পুলিশ কর্মকর্তা কামরুলের স্ত্রীর নামে আছে পাঁচ জাহাজ
পুলিশ কর্মকর্তা কামরুলের স্ত্রীর নামে আছে পাঁচ জাহাজ
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর ব্যাপারে ইতিবাচক মিয়ানমার
বিমসটেক রিট্রিটরোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর ব্যাপারে ইতিবাচক মিয়ানমার