যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হতে প্রথম দফার ভোটে জিতলেন বরিস জনসন

Send
অদিতি খান্না, যুক্তরাজ্য
প্রকাশিত : ২০:৫০, জুন ১৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:২৩, জুন ১৩, ২০১৯

যুক্তরাজ্যের রক্ষণশীল দলের নেতা ও পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে প্রথম দফায় সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন। বৃহস্পতিবার হাউস অব কমন্সে অনুষ্ঠিত গোপন ব্যালটের নির্বাচনে ১১৪ ভোট পেয়েছেন তিনি। ৪৩ ভোট পেয়ে জেরেমি হান্ট দ্বিতীয় আর ৩৭ ভোট পেয়ে মাইকেল গোভ হয়েছেন তৃতীয়। পরবর্তী ধাপের নির্বাচনে টিকতে প্রয়োজনীয় ন্যুনতম ১৭ আইন প্রণেতার ভোট না পাওয়ায় বাদ পড়েছেন তিন প্রার্থী মার্ক হারপার, আন্দ্রে লেদসাম এবং এস্তার ম্যাকভে।  আগামী সপ্তাহে দ্বিতীয় দফার ভোটে অংশ নেবেন টিকে থাকা সাত প্রার্থী। ওই দফায় নির্বাচনে শীর্ষ দুই প্রার্থীর মধ্য থেকে একজনকে নেতা হিসেবে বেছে নেবেন রক্ষণশীল দলের সদস্যরা। আশা করা হচ্ছে আগামী ২২ জুলাই তাকেই ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে-এর উত্তরসূরি ঘোষণা করবে ক্ষমতাসীন দলটি।ব্রেক্সিট ইস্যুতে মতপার্থক্যের কারণে থেরেসার নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিসভা থেকে সরে যান বরিস জনসন

ব্রেক্সিট ইস্যুতে সমঝোতায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়ে গত মাসে পদত্যাগের ঘোষণা দেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। ২৪ মে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক আবেগপূর্ণ বক্তব্যে তিনি বলেন, ব্রেক্সিট গণভোটের রায়কে সম্মান দেখানোর সর্বোচ্চ চেষ্টার পরও ব্রেক্সিট চূড়ান্ত হওয়ার আগেই সরে দাড়াতে হওয়ায় ‘গভীর অনুতপ্ত’ তিনি। ৭ জুন যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন দলের নেতার পদ থেকে থেরেসার সরে দাড়ানোর পর নতুন নেতা নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করে রক্ষণশীল দল।

বৃহস্পতিবার প্রথম দফার ভোটে জেতার পর উল্লসিত হলেও সতর্ক প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন থেরেসার নেতৃত্বাধীন সরকারের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন। তিনি বলেছেন, পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে এখনও অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্টও বলেছেন দ্বিতীয় অবস্থানে থাকতে পেরে আনন্দিত তিনি। হান্ট বলেন, এই গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা প্রয়োজন।

প্রথম দফার ভোটে টিকে থাকা সাত প্রার্থীর মধ্য থেকে আগামী ১৮, ১৯ ও ২০ জুন ক্রমানুক্রমিক ভোটের মাধ্যমে নির্ধারিত হবেন সবচেয়ে জনপ্রিয় দুই প্রার্থী। চূড়ান্ত ওই দুই প্রার্থীর মধ্য থেকে একজনকে নেতা হিসেবে বেছে নিতে ২২ জুন থেকে ভোট দেওয়া শুরু করবেন রক্ষণশীল দলের এক লাখ ২০ হাজারেরও বেশি সদস্য। এর চার সপ্তাহ পর বিজয়ী প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

/জেজে/

লাইভ

টপ