যুক্তরাষ্ট্রের পণ্যের ওপর বাড়তি শুল্ক আরোপ স্থগিত করেছে চীন

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২২:২০, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:২৪, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দীর্ঘ সময়ের বাণিজ্যযুদ্ধ সমাপ্তির ইঙ্গিত দিয়েছে চীন। এর অংশ হিসেবে আমেরিকার কয়েকটি পণ্যের ওপর বাড়তি শুল্ক আরোপ স্থগিত করেছে বেইজিং। রবিবার (১৫ ডিসেম্বর) থেকে এসব পণ্যের ওপর বাড়তি শুল্ক আরোপের কথা ছিল। গত শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও চীনের সরকারি কর্মকর্তারা প্রথম পর্যায়ের একটি বাণিজ্য চুক্তিতে সম্মত হওয়ার পর এই পদক্ষেপ নিলো বেইজিং।

চীনের সঙ্গে বিপুল বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে আনার লক্ষ্য নিয়ে গত বছর থেকে বেইজিংয়ের রফতানি পণ্যের ওপর অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ শুরু করে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন। এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে বেইজিংও মার্কিন পণ্যের ওপর অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ শুরু করে। এই বাণিজ্য যুদ্ধ নিরসনে চলতি বছরের মে মাসে ওয়াশিংটন-বেইজিং আলোচনায় বসলেও কোনও চুক্তি ছাড়াই তা শেষ হয়। পরে গত শুক্রবার প্রথম পর্যায়ের বাণিজ্য চুক্তিতে সম্মত হয় ওই দুই অর্থনৈতিক পরাশক্তি দেশ।

১৫ ডিসেম্বর থেকে মার্কিন পণ্যগুলোর ওপর বাড়তি ১০ এবং কিছু পণ্যের ওপর ৫ শতাংশ শুল্কের বোঝা চাপানোর কথা ছিল চীনের। চুক্তির আওতায় ট্রাম্প চীনের কয়েকটি পণ্যের ওপর থেকে নতুন শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্ত বাতিল করেন। এরপরই পাল্টা পদক্ষেপে চীনও যুক্তরাষ্ট্রের কিছু পণ্যে শুল্ক স্থগিত করে।

রবিবার চীনের অর্থ মন্ত্রণালয় জানায়, ‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানি করা কিছু পণ্যের ওপর এখন ওই শুল্ক চাপানো হচ্ছে না এবং যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি গাড়িসহ এর যন্ত্রাংশের ওপরও বাড়তি শুল্ক স্থগিত করা হচ্ছে।’ দেশটির অর্থ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, স্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করার জন্য ওয়াশিংটনের সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত রয়েছে বেইজিং।

চীনা কর্মকর্তারা বলছেন, সমতা ও পারস্পরিক সম্মানের ভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাজ করবে বেইজিং; যাতে দেশ দুইটির মধ্যকার চলমান বাণিজ্যযুদ্ধ নিরসন করা সম্ভব হয়।

/এইচকে/

লাইভ

টপ