ভারত প্রতিদ্বন্দ্বী নয় বরং সহযোগী: চীন

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০২:০৫, জুলাই ১১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০২:২২, জুলাই ১১, ২০২০

কাশ্মিরের লাদাখে চীনা বাহিনীর হাতে অন্তত ২০ ভারতীয় সেনা নিহতের ঘটনায় দুই দেশের সম্পর্কের ব্যাপক অবনতি হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে শুক্রবার এক বিবৃতিতে দুই দেশের সম্পর্ক নিয়ে কথা বলেছেন দিল্লিতে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত সুন ওয়েডং। তিনি বলেছেন, ‘চীন ও ভারত পরস্পরের প্রতিদ্বন্দ্বী নয়, বরং সহযোগী।’ দিল্লির চীনা দূতাবাসের পক্ষে ইউটিউবে পোস্ট করা এক ভিডিও বার্তায় এমন মন্তব্য করেন তিনি।

সুন ওয়েডং বলেন, সীমান্ত সমস্যার স্থায়ী যুক্তিগ্রাহ্য সমাধান না হওয়া পর্যন্ত শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখা প্রয়োজন। তিনি বলেন, ‘এক্ষেত্রে সংঘাত এড়িয়ে ধারাবাহিক আলোচনার মাধ্যমেই চীন ও ভারতকে এগোতে হবে।’

সীমান্ত সমস্যার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও আর্থিক সহযোগিতার বিষয়টিকে আলাদাভাবে দেখারও তাগিদ দেন ভারতে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত। তিনি বলেন, সীমান্তে বিরোধের ছায়া দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও আর্থিক লেনদেনের ওপর পড়লে তার পরিণাম দুই দেশের জন্যই খারাপ হবে। ক্ষতিগ্রস্ত হবে উন্নয়ন।

তিনি বলেন, ‘মেড ইন চায়না পণ্যে শুল্ক বহির্ভূত প্রতিবদ্ধকতা এবং বিধিনিষেধ আরোপ অনায্য। এক্ষেত্রে চীনা উৎপাদক এবং ভারতীয় গ্রাহক উভয় পক্ষই ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’

লাদাখে ভারতীয় সেনাদের হতাহতের ঘটনার পর চীনা টেলিকম ও বিদ্যুৎ সরঞ্জাম আমদানিতে বিধিনিষেধ আরোপ করে ভারত। নিষিদ্ধ করা হয় টিকটক-সহ ৫৯টি চীনা অ্যাপ। এমন বাস্তবতায় চীনা রাষ্ট্রদূতের এদিনের মন্তব্যে ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।

১৮ মিনিটের ওই ভিডিয়ো বার্তায় পারস্পরিক আস্থা ও বিশ্বাস ফিরিয়ে আনারও তাগিদ দিয়েছেন চীনা রাষ্ট্রদূত। তার ভাষায়, ‘পরস্পরকে সম্মান দেওয়া এবং মূল স্বার্থগুলোর প্রতি নজর দিলেই চীন-ভারত সম্পর্কে নতুন মাত্রা আসবে।’ সূত্র: আনন্দবাজার।

/এমপি/

লাইভ

টপ