মায়ের বুকের দুধই শিশুদের করোনা থেকে সুরক্ষা দেয়: গবেষণা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:৪৬, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:২৯, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০

করোনাভাইরাস থেকে শিশুদের সুরক্ষার ক্ষেত্রে মায়ের বুকের দুধের তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা খুঁজে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। বেইজিংয়ের একদল গবেষক সার্স-কভ-২ ভাইরাসের সংস্পর্শে আসা কোষগুলোতে মায়ের দুধের প্রভাব পরীক্ষা করেছেন। তারা বলছেন, মায়ের দুধ শরীরে করোনাভাইরাসের প্রবেশ ঠেকানোর পাশাপাশি এই ভাইরাস নির্মূল করে। সোমবার ‘সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট’-এর এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে কোভিড সংক্রমিত মায়েদেরও সন্তানকে বুকের দুধ পান করানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। সাম্প্রতিক এ গবেষণা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সিদ্ধান্তের পক্ষেই জোর সমর্থন হাজির করেছে।

বেইজিং ইউনিভার্সিটি অব কেমিক্যাল টেকনোলজির অধ্যাপক টং ইগাংয়ের এই গবেষণায় নেতৃত্ব দেন। গত শুক্রবার ‘বায়োরেক্সিভ ডট ওআরজি’ সাময়িকীতে ওই গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়। গবেষকেরা জানান, তারা প্রমাণ পেয়েছেন  মায়ের বুকের দুধে অধিকাংশ জীবিত ভাইরাস মারা যায় এবং ভাইরাসের প্রবেশও বাধাপ্রাপ্ত হয়।

গবেষক টং ও তার সহকর্মীরা মায়ের বুকের দুধের সঙ্গে কিছু সুস্থ কোষের মিশ্রণ ঘটান। এরপর বুকের দুধ সংগ্রহ করে কোষগুলোকে ভাইরাস সংক্রমণের জন্য উন্মুক্ত করে দেন। তারা প্রমাণ পেয়েছেন,  ওই কোষগুলোতে ভাইরাস ঢুকতে পারেনি। এ ছাড়াও সংক্রমিত কোষে ভাইরাসের প্রতিলিপি উৎপাদন বন্ধ করে দিতে পারে।

গবেষকেরা মায়ের বুকের দুধে কোনও ক্ষতিকর দিক খুঁজে পাননি। তারা বলছেন, মায়ের বুকের দুধ ভাইরাসকে মারার পাশাপাশি কোষের বৃদ্ধিতে কাজ করে।

এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে গত জুন মাসে কয়েকটি দেশে ৪৬ জন মায়ের তথ্য সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে তিনজন মায়ের বুকের দুধে ভাইরাসের জিন শনাক্ত করা হলেও সংক্রমণের কোনও প্রমাণ ছিল না। শুধু একজন শিশু করোনা পজিটিভ হয়। শিশুটি অন্য কোনোভাবে আক্রান্ত হয়েছিল বলে ধারণা করা হয়ে থাকে।

 

 

/এফইউ/বিএ/

লাইভ

টপ
X