X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

‘টিকা ছাড়া রেস্টুরেন্টে খাওয়া যাবে না’

আপডেট : ০৩ জানুয়ারি ২০২২, ২২:০০

বিশ্বজুড়ে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। সংক্রমণ বেড়েছে বাংলাদেশেও। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৬৭৪ জন। শনাক্তের হার তিন শতাংশ ছাড়িয়েছে। দেশে ইতোমধ্যে ১০ জন ওমিক্রনে শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে আন্তমন্ত্রণালয় সভা হয়েছে আজ সোমবার (৩ জানুয়ারি)। সভা থেকে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত আসতে পারে। এরমধ্যে টিকা ছাড়া রেস্টুরেন্টে না যাওয়া এবং মাস্ক পরা নিয়ে নতুন করে কড়াকড়ি প্রসঙ্গে আলোচনা হয়েছে। সভা থেকে বেরিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন এসব কথা।

সভায় ওমিক্রন কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায় তা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে। সব মন্ত্রণালয়ের সচিব, আট বিভাগের ডিসি ও বাহিনীর সদস্যরা ছিলেন সভায়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, সব সিদ্ধান্ত এখনই বলা যাবে না। মূল সিদ্ধান্ত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জানানো হবে।

তিনি আরও জানান, ‘হাসপাতালগুলো প্রস্তুত আছে। অক্সিজেন আছে। টিকা কার্যক্রম চলমান। চিকিৎসকরাও প্রশিক্ষিত। তারা এখন জানেন কীভাবে এই রোগের চিকিৎসা করতে হয়।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় তিন শতাংশ ছাড়িয়েছে শনাক্তের হার। যেটা দুয়ের নিচে নেমেছিল। এটা আশঙ্কাজনক। মৃত্যু এখনও কম রয়েছে। তবে সংক্রমণ বাড়তে থাকলে মৃত্যুও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আমরা এটাকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাই। করোনা নিয়ন্ত্রণে না থাকলে আবারও লকডাউন চলে আসবে। আবারও স্কুল-কলেজ নিয়ে চিন্তা করতে হবে। সবকিছুতেই এর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। এটা আমরা চাই না।’

ওমিক্রন নিয়ন্ত্রণে রাখার ব্যাপারে কিছু আলোচনা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী। যেমন—স্থল ও বিমানবন্দরগুলোতে স্ক্রিনিং বাড়ানো এবং মজবুত করা—যা ইতোমধ্যে করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সেখানে অ্যান্টিজেন পরীক্ষাও চালু হয়েছে। কোয়ারেন্টিনেও আরও তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, যারা ইনফেক্টেড হবে তাদের যথাযথ কোয়ারেন্টিনে রাখা হোক। প্রয়োজনে পুলিশ পাহারায় রাখা হোক। এবার ঢিলেঢালা কোয়ারেন্টিন আমরা চাচ্ছি না। সামাজিক, রাজনৈতিক, ধর্মীয় অনুষ্ঠানের সংখ্যা যেন সীমিত করা হয়, এ বিষয়ে তাগিদ দেওয়া হয়েছে। নীতিগতভাবে কিছুটা পজিটিভ আলোচনা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ‘পরিবহন খাতের সিট ক্যাপাসিটি কমিয়ে যেন পরিচালনা করা হয়। সেইসঙ্গে দোকানপাট, বাস-ট্রেন-মসজিদে গেলেও মাস্ক পরতে হবে। সব জায়গায় মাস্ক পরতেই হবে। না পরলে জরিমানা করতে বলা হবে। এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর তা পরিচালনা করা হবে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে।’

টিকা নেওয়ার প্রতি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘টিকা যারা নিয়েছে তারা রেস্টুরেন্টে যেতে পারবে। অফিসে যেতে পারবে। সব করতে পারবে, তবে মাস্ক পরা অবস্থায়। টিকা না নিয়ে থাকলে রেস্টুরেন্টে খেতে পারবে না। সেখানে টিকার সার্টিফিকেট দেখাতে হবে। যদি এটা না মানা হয় তবে ওই রেস্টুরেন্টকে জরিমানা করা হবে।’

কবে থেকে এসব বাস্তবায়ন হবে জানতে চাইলে জাহিদ মালেক বলেন, ‘১৫ দিন সময় দেওয়া হবে। এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সার্কুলার হবে।’

‘তবে লকডাউনের সুপারিশ আমরা করিনি। লকডাউনের মতো পরিস্থিতি এখনও হয়নি’ মন্তব্য করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। লকডাউনের পর্যায়ে যাতে না যেতে হয়, সেজন্যই এই প্রস্তুতি সভা থেকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

/জেএ/এফএ/এমওএফ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
এবার হারমনি আর মন্দিরা নিয়ে হাজির... (ভিডিও)
এবার হারমনি আর মন্দিরা নিয়ে হাজির... (ভিডিও)
নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস আজ
নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস আজ
বাঙালির চিত্রশিল্পী, জীবনের শিল্পী
জয়নুল আবেদিনবাঙালির চিত্রশিল্পী, জীবনের শিল্পী
ভেড়ার মাংসে পাওয়া গেছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট: গবেষণা
ভেড়ার মাংসে পাওয়া গেছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট: গবেষণা
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
২৪ ঘণ্টায় ২৩ জন শনাক্ত
২৪ ঘণ্টায় ২৩ জন শনাক্ত
মাংকিপক্সের বিরুদ্ধে গণটিকার প্রয়োজন নেই: ডব্লিউএইচও
মাংকিপক্সের বিরুদ্ধে গণটিকার প্রয়োজন নেই: ডব্লিউএইচও