X
শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২
২৮ শ্রাবণ ১৪২৯

কেবল বিশেষ প্রয়োজনে দেওয়া হবে প্রথম ডোজ

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ২০:১৪আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ২০:২৫

আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারির পর দেশে করোনাভাইরাসের টিকার প্রথম ডোজ আরও দেওয়া হবে না বলে আগেই জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। তবে কেবল বিশেষ প্রয়োজনের নিরিখে কারও প্রথম ডোজ দেওয়ার দরকার হলে সেটা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা ভ্যাকসিন ডেপ্লয়মেন্ট কমিটির সদস্য সচিব ডা. শামসুল হক।

বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) তিনি এ কথা জানান।

২৬ ফেব্রুয়ারির পর টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হবে কিনা প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘প্রয়োজনের নিরিখে, খুবই যদি প্রয়োজন থাকে, সেক্ষেত্রে আমরা আলাদা ক্যাম্পেইন করে দেবো। তাছাড়া প্রথম ডোজের রুটিন টিকাদান কর্মসূচি আর চলবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘যদি প্রয়োজন হয়, যেটা অত্যাবশ্যকীয়, যদি কোনও স্থানে ৫০০ মানুষ বাদ রয়েছে, টিকার আওতায় তারা আসেনি এখনও, তখন সেখানে দেখা হবে। কিন্তু এখনকার মতো গণটিকা আর থাকবে না।’

ডা. শামসুল হক বলেন, ‘বেশিরভাগ মানুষকে আমরা ২৬ ফেব্রুয়ারি টিকার আওতায় আনতে চাই। কিন্তু কেউ যদি বিশেষ কারণে, যদি কেউ অসুস্থ থাকেন, তাকে তো দিতে হবে। আর বিশেষ কারণে প্রথম ডোজ দেবো, নয়তো নয়।’

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম জানিয়েছেন, আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি ‘বিশেষ টিকা ক্যাম্পেইন’ হবে।

ডা. শামসুল হক বুলেটিনে বলেন, ‘২৬ ফেব্রুয়ারি টিকা পেতে জন্মনিবন্ধন বা কোনও ধরনের কাগজপত্র লাগবে না। সেখানে মোবাইল নম্বর দিয়েই টিকা নেওয়া যাবে।’

তিনি বলেন, ‘আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারির আগ পর্যন্ত প্রথম ডোজের টিকা কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। যাদের জন্মনিবন্ধন ও পাসপোর্ট নেই, তারা ২৬ ফেব্রুয়ারির আগে সরাসরি হাসপাতাল ও টিকাকেন্দ্রে গিয়ে টিকা নিতে পারবেন।’

মোবাইল নম্বরের মাধ্যমে তাদের তথ্য নথিভুক্ত করে টিকা দেওয়া হবে। তাদের একটি করে কার্ড দেওয়া হবে। সেটিই হবে তার টিকা নেওয়ার প্রমাণ। আর এসব কিছুর প্রস্তুতি এবং নির্দেশনা ইতোমধ্যে দেশের সব সিভিল সার্জনসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে পৌঁছে গিয়েছে।’

২৬ ফেব্রুয়ারির কর্মপরিকল্পনার বিষয়ে জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘এক কোটি টিকা দেওয়ার জন্য প্রতিটি ইউনিয়নে তিনটি কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সদস্যরা এসব স্থান নির্ধারণ করবেন। স্কুল, ইউনিয়ন পরিষদ, স্বাস্থ্যকেন্দ্রেও হতে পারে। পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে তিনটি করে দল থাকবে। সেদিন নির্ধারিত কেন্দ্রের বাইরেও প্রতি উপজেলায় পাঁচটি, প্রতি জেলায় ২০টি করে ভ্রাম্যমাণ দল থাকবে। যেখানে জনসমাগম বেশি সেখানে যেন তারা গিয়ে টিকা দিয়ে আসতে পারে।’

ডা. শামসুল হক জানান, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের প্রতিটি জোনে ৩০টি, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রতিটি জোনে ৪০টি, বরিশাল, সিলেট, কুমিল্লা ও ময়মনসিংহে প্রতিটি জোনে ৬০টি করে এবং খুলনা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও রংপুরের প্রতিটি জোনে অতিরিক্ত ২৫টি করে ভ্রাম্যমাণ দল থাকবে। ইউনিয়ন, পৌরসভা ও উপজেলার প্রতিটি দল ৩০০ জনকে এবং সিটি করপোরেশনের প্রতিটি দল ৫০০ জনকে টিকা দেবে।

তিনি বলেন, ‘২৬ ফেব্রুয়ারি টিকা পেতে কোনও নিবন্ধন লাগবে না। জন্মনিবন্ধন ও জাতীয় পরিচয়পত্র কিছুই লাগবে না। যাদের আছে তারা প্রয়োজনে নিবন্ধন করে আসতে পারেন। পাশাপাশি নিয়মিত টিকা কেন্দ্রগুলোতে কার্যক্রম চলবে। পর্যাপ্ত টিকার মজুত আছে। প্রথম ডোজের টিকাকে একটা ধারায় আনতে ২৬ ফেব্রুয়ারি শেষ করা হবে।’

 

/জেএ/এপিএইচ/এমওএফ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে চুরির সময় আটক ৩
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে চুরির সময় আটক ৩
বাড়ির পাশে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত
বাড়ির পাশে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত
বঙ্গবন্ধুর ঘাতকরা যে পরিকল্পনা করেছিল
বঙ্গবন্ধুর ঘাতকরা যে পরিকল্পনা করেছিল
ডুবন্ত ডাকঘরকে জাগ্রত করতে কাজ করছি: মন্ত্রী
ডুবন্ত ডাকঘরকে জাগ্রত করতে কাজ করছি: মন্ত্রী
এ বিভাগের সর্বশেষ
গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ ২৮ মার্চ
গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ ২৮ মার্চ
গণটিকা কার্যক্রমের দ্বিতীয় দিনেও হিলিতে উপচে পড়া ভিড়
গণটিকা কার্যক্রমের দ্বিতীয় দিনেও হিলিতে উপচে পড়া ভিড়
বগুড়ায় একদিনে টিকা পেলেন আড়াই লক্ষাধিক মানুষ
বগুড়ায় একদিনে টিকা পেলেন আড়াই লক্ষাধিক মানুষ
একদিনে কোটি টিকা: অব্যবস্থাপনায় লাখো মানুষের ভোগান্তি
একদিনে কোটি টিকা: অব্যবস্থাপনায় লাখো মানুষের ভোগান্তি
টিকা নিতে এসে ভবনের রেলিং ভেঙে আহত ৮
টিকা নিতে এসে ভবনের রেলিং ভেঙে আহত ৮