প্রোবায়োটিক দইয়ের যত গুণ

Send
লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:০৯, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৫২, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০
দধি বা দই, বাঙালির উৎসবের শেষ পাত। ভুঁড়িভোজের পর এক বাটি দই সম্পূর্ণতা দেয় আহারের। পুঁথির পাতা ঘেঁটে জানা যায়, দই এর জন্ম মোটেই এই দেশে নয়। এমনকি ভারতীয় উপমহাদেশেও না। বুলগেরিয়ায় এর জন্মস্থান। দুগ্ধজাত এই খাবারের বয়স চার হাজার বছর। এত দীর্ঘ সময় দোর্দণ্ড প্রতাপ নিয়ে টিকে আছে খাবারের মেন্যুতে। এর কারণ, দইয়ের পুষ্টিগুণ। দইয়ের ব্যাকটেরিয়া খাবারের পরিপাক ক্রিয়াকে দ্রুত করে ও হজমে সাহায্য করে। দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ফলে শরীরের সুস্থতা নিশ্চিত হয়।
 
করোনাভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করতে হলে শরীরের দরকার নিজস্ব শক্তি। কীভাবে বৃদ্ধি পাবে দেহের শক্তি? মাইক্রোবায়োলজিস্ট সামিয়া তাসনিম বলেন, ‘নানা রকম মাইক্রো অর্গানিজম রয়েছে মানব দেহের পরিপাকতন্ত্রে । এদেরকে এক সাথে বলা হয় গাট মাইক্রোবায়োটা। এরা আমাদের পরিপাকতন্ত্রে অবস্থান করে। মানবদেহের মেটাবোলিজমের ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখে সুস্থ থাকতে সাহায্য করে। একই সাথে খাবার এবং ওষুধ গ্রহণের পরে সেগুলোর মেটাবোলিজম রক্ষায় ইতিবাচক প্রভাব বিস্তার করে। দেহের গঠনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখে মাইক্রো অর্গানিজম। বর্তমান সময়ের জন্য সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস প্রতিহত করা। গাট মাইক্রোবায়োটা দেহ কোনও ক্ষতিকর মাইক্রো অর্গানিজমের সংস্পর্শে আসলে তাকে প্রতিহত করার চেষ্টা করে। দেহের ইমিউন সিস্টেম ভালো থাকলে প্রতিহত করা সম্ভব হয় এবং দ্রুততর হয়। খাবার অথবা সাপ্লিমেন্টের মাধ্যমে যখন দেহ উপকারী মাইক্রো অরগানিজম গ্রহণ করে তখন তাকে আমরা প্রোবায়োটিক বলে থাকি। এ ধরনের খাবারের মাধ্যমে দেহ ভেতর থেকে সুস্থ এবং শক্তিশালী হয়।’
দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে দেহে বিভিন্ন রোগ সংক্রমণের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। দেহের পরিপাকতন্ত্রের যত্নের জন্য তাই চাই যথাযথ খাবার। প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট এক্ষেত্রে উপকারী ভূমিকা পালন করে। প্রোবায়োটিক ইয়োগার্টে রয়েছে উপকারী ব্যাক্টেরিয়ার সঠিক পরিমাণ।
 
প্রোবায়োটিক ইয়োগার্টের উপকারিতার অন্যান্য দিকও রয়েছে। এটি দেহে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার প্রজনন ঘটায়, এর ফলে দেহে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পায়। ফলে দেহের উপকারী ব্যাকটেরিয়া যেমন সক্রিয় করে, ঠিক তেমনি নিষ্ক্রিয় করে দেহের বিভিন্ন ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান। জোগান দেয় বিভিন্ন ভিটামিন ও মিনারেলস-এর। পরিপাকতন্ত্রে উপস্থিত থেকে এই উপকারী ব্যাকটেরিয়াগুলো পরিপাকক্রিয়ার উন্নতি ঘটায় যা হজম শক্তি বৃদ্ধি করে।
রোজকার খাবারের তালিকায় প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট থাকলে শারীরিক সুস্থতা নিশ্চিত করা সম্ভব সহজেই। বাংলাদেশে আড়ং এনেছে এই প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট। আড়ং ডেইরির অনলাইন শপ কিংবা  ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটের যেকোনও  সুপারশপে পাওয়া যাবে এই প্রোবায়োটিক ইয়োগার্ট।  
 
/এনএ/

লাইভ

টপ