ক্লান্তি কাটুক গোসলে

Send
লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:০০, অক্টোবর ২৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৩২, অক্টোবর ২৭, ২০২০

পরিচ্ছন্ন থাকার পাশাপাশি ক্লান্তি কাটানোও গোসলের অন্যতম উদ্দেশ্য। এছাড়া শরীরের তাপমাত্রা সঠিক রাখা, রক্ত সঞ্চালন বাড়ানো, পেশীর ফ্লেক্সিবিলিটি বজায় রাখার মতো একাধিক প্রয়োজনীয়তাও রয়েছে।

  • তাড়াহুড়া করে গোসল করবেন না। তাছাড়া সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর শরীর সেই অর্থে ক্লান্ত থাকেও না। তাই ক্লান্তি দূর করতে চাইলে গোসল করুন সন্ধ্যায় বা রাতে।
  • খুব গরম বা খুব ঠাণ্ডা পানিতে গোসল করবেন না। কুসুম গরম পানিতে গোসল করুন। এতে রক্ত সঞ্চালন বাড়াবে।
  • অন্তত মিনিট ২০ সময় হাতে নিয়ে গোসল করুন। এ সময়টাতে বাইরের জগত, সংসার, অফিস—কোনও কিছু নিয়েই ভাববেন না।
  • গোসলের আগে নরম, শুকনো ব্রাশ বা মোটা তোয়ালে দিয়ে গা, হাত-পা ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। এতে ত্বকের মৃত কোষ দূর হবে, পাশাপাশি রক্ত সঞ্চালনও বাড়বে।
  • বাড়িতে বাথটাব থাকলে তো খুবই ভালো। পুরো শরীর তাতে ডুবিয়ে রাখুন। যদি বাথটাব না থাকে, তাহলে ধীরে ধীরে রিল্যাক্স করে সারুন গোসল।
  • কুসুম গরম পানিতে শুকনো ফুলের পাপড়ি, সুগন্ধি এসেনশিয়াল অয়েল, ফ্লেভারড বাথসল্ট ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন। প্রতিদিন সম্ভব না হলেও, অন্তত একদিন অন্তর এই ধরনের এগুলো ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।
  • একদিন পর পর রিফ্রেশিং শাওয়ার জেল ব্যবহার করে বডি সার্কুলার মোশনে স্ক্রাব করুন। গরমকালে প্রতিদিনই শাওয়ার জেল ব্যবহার করতে পারেন। ত্বক শুষ্ক প্রকৃতির হলে ময়েশ্চারাইজিং শাওয়ার জেল, বডি বাটার ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন।
  • গোসল শেষে নরম তোয়ালে দিয়ে চেপে চেপে মুছে নিন শরীর। তারপর পছন্দের ময়েশ্চারাইজার এবং প্রয়োজন হলে বডি অয়েল ম্যাসাজ করুন।

তথ্য- সানন্দা

/এনএ/

লাইভ

টপ