X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে শিক্ষক নেটওয়ার্কের প্রতীকী অনশন

আপডেট : ২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৯:২৮

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবির) ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দীন আহমেদের পদত্যাগের দাবিতে আমরণ অনেশন করছেন শিক্ষার্থীরা। তাদের অনশন চলছে প্রায় ১০৭ ঘণ্টা। তাদের দাবির সঙ্গে সংহতি জানিয়ে প্রতীকী অনশন করছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক নেটওয়ার্ক।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুর ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ অনশন করেন শিক্ষকরা। তারা জানান, বেলা ৩টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে।

অনশনে ঢাবি আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক তানজিম উদ্দীন খান বলেন, ‘আমাদের শিক্ষার্থীরা অনাহারে প্রায় ১১৬ ঘণ্টা পার করছে। কিন্তু প্রশাসন কর্ণপাত করছে না। সরকারের পক্ষ থেকে এই আন্দোলনকে দীর্ঘ করার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের অসহিষ্ণু করার কৌশল নেওয়া হয়েছে। যখন শিক্ষার্থীদের ন্যায্য আন্দোলনে সাউন্ড গ্রেনেড, টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও গুলি করা হয়, তখন তারা অসম্মানিত হন না। যখন শিক্ষার্থীরা ন্যায়ের পক্ষে কথা বলেন, তখন তারা অসম্মানবোধ করেন। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হওয়া উচিত জ্ঞানের উপাসনালয়। কিন্তু তা না হয়ে উঠেছে ক্ষমতার দূর্গ।’

এই আন্দোলনকে আশার আলো উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলন হলো আশার আলো। এই ধরনের আন্দোলন না থাকলে উচ্চ শিক্ষার প্রতিষ্ঠানগুলোতে যতটুকু শিক্ষার পরিবেশ বিরাজ করছে তাও অবশিষ্ট থাকবে না। বিশ্ববিদ্যালয় মানেই হচ্ছে ন্যায্যতা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ন্যায্যতা নিশ্চিত করে বলেই ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের জন্মের পেছনে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অনন্য ভূমিকা রয়েছে।’

কর্মসূচীর বিষয়ে ড. রুশাদ ফরিদী বলেন, ‘আমরা শাবিপ্রবির আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সম্পূর্ণ একমত। কারণ একজন উপাচার্যের কাছে শিক্ষার্থীরা সন্তানের মতো। আমরা মনে করি, শিক্ষার্থীদের দাবি অন্যায় নয়। তর্কের খাতিরে যদি বলাও হয় শিক্ষার্থীদের দাবি অন্যায়, তাহলেও কোনও পিতা পুলিশ ডেকে সন্তানদের পেটাতে পারে না। আর যে উপাচার্যের মনোভাব এ রকম, তিনি উপাচার্যের পদে থাকার সব যোগ্যতা হারিয়েছেন।’

প্রতীকী অনশনে অংশ নেওয়া শিক্ষকদের মধ্যে আছেন ঢাবি অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. রুশাদ ফরিদী, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোসাহিদা সুলতানা রিতু, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক তানজিমুদ্দীন খান, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সামিনা লুৎফা, ডেভেলপমেন্ট বিভাগের কাজী মারুফ, ইংরেজী বিভাগের তাসনীম সিরাজ মাহবুব, শান্তি ও সংঘর্ষ বিভাগের ফাহরিনা দূর্রাত, ম্যানাজমেন্ট বিভাগের তাহমিনা খানম, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কাজলি শেহরীন ইসলাম, ইংরেজী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তাসনীম সিরাজ মাহবুব, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ, সাইদ ফেরদৌস, মীর্জা তসলিমা, রেহনুমা আহমেদ প্রমুখ।

 

 

/আইএ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
‘মুজিব’ টেনে নিলো কানে
কান ডায়েরি-১‘মুজিব’ টেনে নিলো কানে
আগ্রাসী মেন্ডিসকে ফেরালেন তাইজুল
আগ্রাসী মেন্ডিসকে ফেরালেন তাইজুল
শ্রীলঙ্কার লিড
শ্রীলঙ্কার লিড
টিভিতে আজ
টিভিতে আজ
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
বিপুল অর্থে গ্রেনাডার নাগরিক হয়েছিলেন পি কে হালদার!
বিপুল অর্থে গ্রেনাডার নাগরিক হয়েছিলেন পি কে হালদার!
সিলেটের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা পিছিয়েছে
সিলেটের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা পিছিয়েছে
কাদা মাড়িয়ে দায়িত্ব পালনে মেয়র তাপস
কাদা মাড়িয়ে দায়িত্ব পালনে মেয়র তাপস
সম্রাটের জামিন বাতিল, আত্মসমর্পণের নির্দেশ
সম্রাটের জামিন বাতিল, আত্মসমর্পণের নির্দেশ
মাদ্রাসায় দৃশ্যমান স্থানে বাংলায় সাইনবোর্ড স্থাপনের নির্দেশ
মাদ্রাসায় দৃশ্যমান স্থানে বাংলায় সাইনবোর্ড স্থাপনের নির্দেশ