X
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

জরুরি কিছু বিষয়ে রাষ্ট্রপতি-বঙ্গবন্ধু সাক্ষাৎ

আপডেট : ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ২ ডিসেম্বরের ঘটনা।)

 

১৯৭৩ সালের এই দিনে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং তার সঙ্গে কিছুক্ষণ অতিবাহিত করেন। তথ্য দফতরের প্রতিমন্ত্রী তাহেরউদ্দিন ঠাকুর বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে ছিলেন। সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিসহ জরুরি ভিত্তিতে নেওয়া বেশ কিছু বিষয়ে তাদের কথা হয়।

 

১৬ ডিসেম্বর জাতীয় দিবস হিসেবে পালনের চূড়ান্ত প্রস্তুতি

১৬ ডিসেম্বর জাতীয় দিবসের ঘোষণা হয়েছে। নানাভাবে দিনটি উদযাপনে প্রস্তুতি শুরু হয়ে যায়। শেরে বাংলা নগরে ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সামরিক বাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী, বাংলাদেশ রাইফেলস বাহিনী, রক্ষীবাহিনীসহ বিভিন্ন বাহিনীর কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হবে।

জাতীয় দিবসের প্রধান আকর্ষণ হবে দেশের এই দিবসের অনুষ্ঠানে কৃষক-শ্রমিকসহ সকল স্তরের মানুষের ব্যাপক অংশগ্রহণ। সে বছরের জাতীয় দিবসে সকল অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দেশ গঠনের কাজে সর্বসাধারণের অংশগ্রহণের ব্যাপারে সুস্পষ্ট ইঙ্গিত প্রতিধ্বনিত হবে বলে আশা করা হচ্ছিল। এ ছাড়া স্বাধীন ও সার্বভৌম জাতি হিসেবে আত্মপ্রতিষ্ঠার ব্যাপারে দেশের মানুষের মধ্যে একটি অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করা হবে।

দৈনিক বাংলা, ৩ ডিসেম্বর ১৯৭৩

রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পের উৎপাদন বৃদ্ধিতে ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগ

শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোতে উৎপাদন বাড়াতে শিল্প প্রতিষ্ঠানে প্রশাসনিক ব্যবস্থা পুনর্বিন্যাসের উদ্দেশ্যে শিল্পমন্ত্রী সৈয়দ নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি গঠন করা হতে পারে বলে জানা যায়। নির্ভরযোগ্য সূত্রে প্রকাশ কাঙ্ক্ষিত উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছাতে রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প প্রতিষ্ঠান ব্যবস্থার ব্যাপক পরিবর্তন আশা করা যায়।

সূত্রটি আরও জানায়, উৎপাদন বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে প্রশাসন যন্ত্রকে সচল করে তোলার জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পের প্রধান পদগুলোর ব্যাপারে তদন্ত চালানো হচ্ছে। সমিতি প্রতিমাসে একবার মিলিত হয়ে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবে এবং এ সম্পর্কে দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।

 

পুনরায় আরবদের জন্য কূটনৈতিক তৎপরতা

মিসর-ইসরায়েল আলোচনা পুনরায় শুরু করার জন্য নিউ ইয়র্ক ও ভারতের উচ্চপর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জাতিসংঘের কূটনীতিক ওয়াল্ডহেইম মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কিসিঞ্জারের সঙ্গে আলোচনায় মিলিত হন। এই বৈঠকে জাতিসংঘের পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সাক্ষাৎকারের সময় মিসরের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা হাফেজ ইসমাইল উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি অবজারভার, ৩ ডিসেম্বর ১৯৭৩

ক্ষমা ঘোষণায় বঙ্গবন্ধুর প্রতি অভিনন্দন

দালাল আইনে অভিযুক্তদের ক্ষমা প্রদর্শন করায় প্রবীণ রাজনীতিক ও চিন্তাবিদ আবুল হাশেম প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সরকারকে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, জনগণের ভাগ্যকে যথাযথভাবে নিয়ন্ত্রণের জন্য সরকার সঠিক পদক্ষেপ নিয়েছে। এই উদ্যোগ বজায় থাকলে দেশের উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

আটক ৩৭ হাজারেরও বেশি ব্যক্তির প্রতি ক্ষমা প্রদর্শনের জন্য লীগের তরফ থেকে সরকার ও বঙ্গবন্ধুকে অভিনন্দন জানান জাতীয় হকার্স লীগের কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির আহ্বায়ক মোস্তফা কামাল। বিপিআই এ খবর জানায়।

 

দাউদকান্দিতে বঙ্গবন্ধু অভ্যর্থনা কমিটি গঠন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কুমিল্লার দাউদকান্দি সফর উপলক্ষে ৫০ সদস্য বিশিষ্ট বঙ্গবন্ধু অভ্যর্থনা কমিটি গঠন করা হয়। মোজাফফর আলী এমপি এবং ফরহাদ উদ্দিন চৌধুরী যথাক্রমে কমিটির চেয়ারম্যান ও সেক্রেটারি নিযুক্ত হন। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। উল্লেখ্য,  ডিসেম্বরে শেষের দিকে বঙ্গবন্ধুর দাউদকান্দি সফরে যাওয়ার কথা।

 

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মসূচি চালু হচ্ছে

১৯৭৪ সালের জানুয়ারি থেকে সরকারের সমন্বিত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মসূচির কাজ সবকটি থানায় শুরু হবে। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন থানায় পরিবার কল্যাণ কর্মীদের ট্রেনিং দেওয়া হচ্ছে। ট্রেনিং সব জায়গায় একমাসের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে। জানুয়ারি থেকে এই কর্মীরা দেশের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে সমন্বিত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনার কাজ শুরু করবেন। এদিন টঙ্গী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ৩২ কর্মীর একটি প্রশিক্ষণ কোর্সের সমাপনী দিন ছিল। তারা এখন গ্রামে ফিরে গিয়ে পুরোদমে কাজ শুরু করবেন।

 

 

/এফএ/
সম্পর্কিত
সমৃদ্ধ অঞ্চল গড়ে তুলতে ভারতের সঙ্গে কাজ করবে বাংলাদেশ
সমৃদ্ধ অঞ্চল গড়ে তুলতে ভারতের সঙ্গে কাজ করবে বাংলাদেশ
আসছে আরও ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
আসছে আরও ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া অনুদানের হিসাব দেননি শিল্পকলার ডিজি’
‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া অনুদানের হিসাব দেননি শিল্পকলার ডিজি’
টিআইর রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট: তথ্যমন্ত্রী
টিআইর রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট: তথ্যমন্ত্রী
ইউক্রেন যুদ্ধ পরিস্থিতি

ঢাকাকে নিজেদের অবস্থান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া

আপডেট : ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ২২:০১

ইউক্রেন সীমান্তে সেনা সমাবেশ করছে রাশিয়া। শুধু তা-ই নয়, পার্শ্ববর্তী দেশ বেলারুশেও রুশ সৈন্য মোতায়েন করা হয়েছে। যাতে প্রয়োজনে ওই দেশ থেকেও আক্রমণ করা যায়। পূর্ব ইউরোপের দেশ ইউক্রেনকে সহায়তা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোট একসঙ্গে কাজ করছে। এরকম যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যে বাংলাদেশের সঙ্গেও যোগাযোগ করছে ওয়াশিংটন ও মস্কো। ইতোমধ্যে আমেরিকা তাদের আনুষ্ঠানিক অবস্থান জানিয়ে ডিমারশে লেটার দিয়েছে বাংলাদেশকে। অন্যদিকে বুধবার (২৬ জানুয়ারি) রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ম্যানটিটস্কি পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে দেখা করে তার দেশের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব বাংলা ট্রিবিউনকে বুধবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘দুপক্ষই তাদের অবস্থান জানিয়েছে।’

এ প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ কী অবস্থান নেবে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘আমরা যেকোনও সংঘাতের বিরোধী। আমরা মনে করি আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ অবস্থানে পৌঁছানো সম্ভব। আমরা আশা করি সব পক্ষ সংঘাত পরিহার করে নিজেদের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে একটি সমাধানে আসবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক বলেন, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পর থেকে ওই অঞ্চলটিতে রাষ্ট্র গঠন প্রক্রিয়া আগেও স্থিতিশীল ছিল না, এখনও নেই। নতুন স্নায়ুযুদ্ধের প্রেক্ষাপটে ইউক্রেনে সংঘাতময় পরিস্থিতি বিশ্বকে আরও অস্থিতিশীল করতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ইউক্রেনের সঙ্গে বাংলাদেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক কম কিন্তু বহুপক্ষীয় ব্যবস্থায় বাংলাদেশকে এ বিষয়ে সম্পৃক্ত করার জন্য উভয়পক্ষ অনুরোধ করবে।

তিনি বলেন, নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে বিষয়টি আলোচিত হবে না। কারণ, আমেরিকা ও রাশিয়া উভয়ই ভেটো ক্ষমতার অধিকারী। সেক্ষেত্রে সাধারণ অধিবেশনে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা বেশি। যার সদস্য বাংলাদেশ। আবার জেনেভাতে মানবাধিকার কাউন্সিলে ইউক্রেন বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করতে পারে। সেখানেও ৪৭ সদস্যবিশিষ্ট কাউন্সিলে সদস্য হিসেবে রয়েছে বাংলাদেশ।

রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলে বাংলাদেশের কী সমস্যা হতে পারে জানতে চাইলে আরেকজন কর্মকর্তা বলেন, রাশিয়ান প্রযুক্তিতে রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্র তৈরি হচ্ছে। এর কাজ অনেকটা শেষ। এক্ষেত্রে কী প্রভাব পড়বে সেটি নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগে বলা মুশকিল।

/এসএসজেড/এমআর/এমওএফ/
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সমৃদ্ধ অঞ্চল গড়ে তুলতে ভারতের সঙ্গে কাজ করবে বাংলাদেশ
নরেন্দ্র মোদিকে শেখ হাসিনার শুভেচ্ছা বার্তাসমৃদ্ধ অঞ্চল গড়ে তুলতে ভারতের সঙ্গে কাজ করবে বাংলাদেশ
আসছে আরও ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
আসছে আরও ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া অনুদানের হিসাব দেননি শিল্পকলার ডিজি’
‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া অনুদানের হিসাব দেননি শিল্পকলার ডিজি’
টিআইর রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট: তথ্যমন্ত্রী
টিআইর রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট: তথ্যমন্ত্রী
ফখরুল সাহেব একটা ‘কমিক’ করেছেন: তথ্যমন্ত্রী
ফখরুল সাহেব একটা ‘কমিক’ করেছেন: তথ্যমন্ত্রী
© 2022 Bangla Tribune