X
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২
১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

পূর্ব ইউরোপে বাংলাদেশের উপস্থিতিতে ভাটা

শেখ শাহরিয়ার জামান
০৭ জুন ২০২২, ২৩:৩০আপডেট : ০৮ জুন ২০২২, ১৩:৫৪

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় রাশিয়াসহ পূর্ব ইউরোপের দেশগুলো বাংলাদেশকে সর্বতো সমর্থন দিয়েছিল। কিন্তু গত পাঁচ দশকে ওই অঞ্চলের দেশগুলোর সঙ্গে জোরালো সম্পর্কে ভাটা দেখা যায়। রাশিয়ায় সবসময় বাংলাদেশের দূতাবাস ছিল এবং কয়েক বছর আগে পোল্যান্ড ও রোমানিয়ায়ও দূতাবাস খোলা হয়। কিন্তু বাংলাদেশে রাশিয়া ছাড়া ওই অঞ্চলের আর কোনও দেশের দূতাবাস নেই। পূর্ব ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য ২০০ কোটি ডলারের মতো এবং এর বেশিরভাগই রাশিয়ার সঙ্গে।

পূর্ব ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের দৃশ্যমান অপ্রতুল সম্পর্কের বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক বলেন, ‘বাণিজ্য, বিনিয়োগ বা অভিবাসনের সুযোগের দিক থেকে পূর্ব ইউরোপের দেশগুলোর গুরুত্ব কম ছিল।’

অন্যদিকে, পূর্ব ইউরোপের দেশগুলোর কাছে বাংলাদেশের গুরুত্ব কম জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ওদের কাছে দক্ষিণ এশিয়া মানে ভারত। আমরা কখনোই তাদের ম্যাপে ছিলাম না। একইভাবে মধ্য এশিয়ার দেশ যেমন উজবেকিস্তান, কাজাখস্তান বা অন্য দেশগুলোর কাছেও কম গুরুত্বপূর্ণ।’

তিনি আরও বলেন, ‘কয়েক বছর আগে আমরা যখন নতুন দূতাবাস খোলার প্রক্রিয়া শুরু করলাম তখন অনেক বিষয় বিবেচনায় নিয়েছিলাম। রিটার্ন অব দ্য মানি যদি চিন্তা করেন তাহলে অন্য দেশের মিশনের চেয়ে পূর্ব ইউরোপের দেশগুলো কম আকর্ষণীয় ছিল। অন্যদিকে শুধু রাজনৈতিক বিবেচনায় দূতাবাস খোলার যে চিন্তা সেটা করা হয়নি বলেও ওই অঞ্চলে দূতাবাস কম।’

পূর্ব ইউরোপে কূটনৈতিক উপস্থিতি বাড়ানো সম্ভব কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সেক্ষেত্রে পশ্চিম ইউরোপের কিছু মিশন বন্ধ করে দিতে হবে। দূতাবাস চালানো ব্যয় সাপেক্ষ।

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা বা লস অ্যাঞ্জেলেসে নতুন মিশন খোলার বিষয়ে তিনি বলেন, ওইসব জায়গায় অনেক বাংলাদেশি থাকেন এবং সেবা দেওয়ার জন্য এটি জরুরি। কিন্তু পূর্ব ইউরোপে বিষয়টি তেমন নয়।

তিনি বলেন, পোল্যান্ডে মিশন খোলা হয়েছে। সেখান থেকে আশপাশের দেশগুলোতে সেবা দেওয়া সম্ভব। পরে রোমানিয়ায় মিশন খোলা হয়।

পূর্ব ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক রাশিয়া-কেন্দ্রিক। এছাড়া পোল্যান্ডও রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সে কারণেই ওই দেশে পুনরায় দূতাবাস খোলা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে শহীদুল হক বলেন, ‘ওই অঞ্চলে রাশিয়ার সঙ্গে যেসব দেশের সম্পর্ক ভালো সেসব দেশে বাংলাদেশের স্বার্থ দেখাশোনা করা হয় রাশিয়া থেকে—যেমন বেলারুশ। আবার কিছু দেশ আছে যাদের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক ভালো নয়। ওইসব দেশের স্বার্থ পোল্যান্ড থেকে দেখা হয়—যেমন ইউক্রেন।’

চীনে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত মুনশি ফায়েজ আহমেদ বলেন, ‘দূতাবাস খোলার জন্য অর্থের প্রয়োজন। সামর্থ্য থাকলে সব দেশে দূতাবাস খোলা হতো। কারণ, সব দেশের সঙ্গেই আমাদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। তবে একটি ব্যাপার, যে দেশে দূতাবাস নেই, সেই দেশের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো নয়, বিষয়টি তেমনও নয়।’

অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, অভিবাসনসহ আরও অনেক বিষয় বিবেচনায় নিয়ে দূতাবাস খোলা হয় জানিয়ে তিনি বলেন, অনেক সময় রাজনৈতিক গুরুত্বের কারণে দূতাবাস খোলা হয়, যেমন পোল্যান্ড।

তিনি বলেন, পূর্ব ইউরোপে পোল্যান্ডের অবস্থান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ইউক্রেন যুদ্ধের সময়ে পোল্যান্ডে বাংলাদেশ দূতাবাস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

/এফএ/এমওএফ/
সরকারের কাছে ১১০টি শিশুবান্ধব শ্রেণিকক্ষ হস্তান্তর করলো ইউনিসেফ
সরকারের কাছে ১১০টি শিশুবান্ধব শ্রেণিকক্ষ হস্তান্তর করলো ইউনিসেফ
পুরস্কার হিসেবে আর মন্ত্রী নয়: আনোয়ার ইব্রাহিম
পুরস্কার হিসেবে আর মন্ত্রী নয়: আনোয়ার ইব্রাহিম
খেলনা ভেবে খেলতে গিয়ে বোমা বিস্ফোরণে শিশু নিহত
খেলনা ভেবে খেলতে গিয়ে বোমা বিস্ফোরণে শিশু নিহত
খেলাধুলা পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়নে ভূমিকা রাখে: মেয়র আতিক
খেলাধুলা পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়নে ভূমিকা রাখে: মেয়র আতিক
সর্বাধিক পঠিত
পোল্যান্ডের জয়ে আরও চাপে মেসিরা
পোল্যান্ডের জয়ে আরও চাপে মেসিরা
ইউক্রেন ইস্যুতে অবস্থান স্পষ্ট করলো ন্যাটো
ইউক্রেন ইস্যুতে অবস্থান স্পষ্ট করলো ন্যাটো
আবারও নাসিমের অনুসারীদের পেটালো বিএনপির সমর্থকরা
আবারও নাসিমের অনুসারীদের পেটালো বিএনপির সমর্থকরা
মেসি-ফের্নান্দেজের গোলে আর্জেন্টিনার জয়
মেসি-ফের্নান্দেজের গোলে আর্জেন্টিনার জয়
ম্যাজিস্ট্রেটের মামলায় কারাগারে স্বামী
ম্যাজিস্ট্রেটের মামলায় কারাগারে স্বামী