সরকারি কর্মকর্তাদের ঈদ বোনাস নিয়ে দুশ্চিন্তা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০০:০৮, জুলাই ০৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৩৭, জুলাই ০৬, ২০২০

টাকাআসন্ন ঈদুল আজহায় সরকারি চাকরিজীবীদের বোনাস নিয়ে মহাচিন্তায় পড়েছে হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয়। রবিবার (৫ জুলাই) চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয় থেকে পাঠানো এক চিঠিতে এই দুশ্চিন্তার বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে।

অর্থ সচিবের কাছে হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয় থেকে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ স্মারক অনুযায়ী, যে মাসে উৎসব অনুষ্ঠিত হবে তার পূর্ববর্তী মাসে আহরিত মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উৎসব ভাতা হিসেবে পাবেন। পেনশনারদের উৎসব ভাতা প্রদানের ক্ষেত্রেও পূর্ববর্তী মাসের আহরিত পেনশনের সমপরিমাণ উৎসব ভাতা প্রদানের অনুরূপ নির্দেশনা রয়েছে।

অর্থ সচিবকে লেখা ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, ১ আগস্ট অনুষ্ঠিত হলে সরকারি চাকরিজীবীরা ঈদের বোনাস বেশি পাবেন। আর ৩১ জুলাই হলে কম পাবেন। চাঁদ ওঠার ওপর ভিত্তি করে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহা ৩১ জুলাই ঈদ হলে সরকারি চাকরিজীবীরা ঈদ বোনাস পাবেন জুন মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ।

অতিরিক্ত হিসাব মহানিয়ন্ত্রক (হিসাব ও পদ্ধতি) মোহাম্মদ মমিনুল হক ভূইয়া স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা আছে, ২০১৫ সালের বেতন স্কেল অনুযায়ী সরকারি চাকরিজীবীদের ১ জুলাই থেকে বার্ষিক ৫ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকর হয়। সেই হিসেবে ১ আগস্ট ঈদ হলে তারা বোনাস বেশি পাবেন। এখন কোন তারিখে ঈদ ধরে বোনাস দেওয়া হবে সেটা নির্ধারণে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছে হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ও।

এ বিষয়ে হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ের মতামত হলো, ঈদুল আজহা অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাব্য তারিখ ১ আগস্ট ধরে বার্ষিক বর্ধিত বেতনসহ জুলাই মাসে গৃহীত মূল বেতনের বা পেনশনের ভিত্তিতে ঈদুল আজহার উৎসব ভাতা প্রদান করা যেতে পারে। আর ঈদুল আজহা যদি ৩১ জুলাই হয় তাহলে পরবর্তী মাসের বেতন বা পেনশন থেকে সমন্বয় করা যেতে পারে।

/জিএম/এএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ