X
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪
৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বর্ষবরণে যৌন হয়রানি: ২ বছরেও শনাক্ত হয়নি সাত লাঞ্ছনাকারী

রাফসান জানি
১৪ এপ্রিল ২০১৭, ০০:০২আপডেট : ১৪ এপ্রিল ২০১৭, ০০:০২

বাংলা বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় দল বেঁধে নারীদের শ্লীলতাহানির ঘটনায় দুই বছরেও সাত লাঞ্ছনাকারীকে খুঁজে পায়নি পুলিশ। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে চিহ্নিত আটজনের মধ্যে মো. কামাল নামের একজনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দেওয়া হয়েছে। বাকিরা এখনও রয়েছে পুলিশের নাগালের বাইরে। এ ঘটনায় অভিযোগপত্র গ্রহণ বিষয়ে শুনানির জন্য আগামী ২ মে দিন ধার্য করেছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল।

বর্ষবরণে যৌন হয়রানির সিসিটিভি ফুটেজ এর আগে, ২০১৫ সালের ১৪ এপ্রিল রাজধানীর টিএসসি এলাকায় নারীদের লাঞ্ছনার ঘটনায় ১৫ এপ্রিল শাহবাগ থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম আজাদ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তভার দেওয়া হয় ডিবি পুলিশকে। প্রত্যক্ষদর্শী ও ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণ করে আট লাঞ্ছনাকারীকে শনাক্ত করে গণমাধ্যমে ছবি প্রকাশ করে পুলিশ। একই বছরের ১৭ মে আইজিপি এই আটজনকে ধরিয়ে দিতে এক লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেন।

এরপর, ২০১৫ সালের ৯ ডিসেম্বর যৌন নিপীড়নের মামলার আসামি খুঁজে না পাওয়ায় দ্রুত নিষ্পত্তির আবেদন জানিয়ে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক দীপক কুমার দাস। ২০১৬ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক জয়শ্রী সমাদ্দার ডিবি পুলিশের দেওয়া চূড়ান্ত প্রতিবেদন গ্রহণ না করে মামলাটি পুনঃতদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দেন।

এদিকে, ডিবির চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়ার পর ২০১৬ সালের ২৭ জানুয়ারি মো. কামাল নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে ডিবি। একই সঙ্গে ডিবি মামলাটি পুনরুজ্জীবিত করতে আদালতে আবেদন করে। এরপর মামলাটি পুনরুজ্জীবিত করে পিবিআই তদন্ত শুরু করে। দীর্ঘ তদন্ত শেষে একই বছরের ২০ ডিসেম্বর গ্রেফতারকৃত মো. কামালকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পিবিআই।

যৌন হয়রানিতে চিহ্নিতরা, লাল গোলে গ্রেফতার হওয়া কামাল তবে অভিযোগপত্রে আসামি স্বীকারোক্তি দেননি বলে জানিয়েছেন এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই-এর পরিদর্শক আবদুর রাজ্জাক। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আসামি নিজে স্বীকার করেছে সে তখন ঘটনাস্থলে ছিল। তবে শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ফুটেজে অবশ্য স্পষ্ট দেখা গেছে, সে নারীদের শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করেছে।’

মামলার তদন্তে কোনও ভুক্তভোগীর বক্তব্য না পাওয়ায় শুধুমাত্র ভিডিও ফুটেজ দেখে তদন্ত চালাতে হয়েছে বলে তদন্ত কর্মকর্তা জানান। তিনি বলেন, ‘এই ঘটনায় আমাদের শুধু ভিডিও ফুটেজ দেখে তদন্ত চালাতে হয়েছে। একজন ভিকটিমকেও পাওয়া যায়নি। ফুটেজ দেখে এটা নিশ্চিত যে অনেকে সেখানে অ্যাসল্ট হয়েছেন। কিন্তু লোকলজ্জা বা সামাজিকতার ভয়ে কেউ পুলিশের সঙ্গে কথা বলতে আসেনি। সেটা পাওয়া গেলে তদন্তের কাজটা আমাদের জন্য আরও সহজ হতো।’

ভিকটিম না পাওয়া গেলেও প্রত্যক্ষদর্শী অনেকেই ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন। এ বিষয়ে আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘ছাত্র ইউনিয়নের লিটন নন্দীসহ অন্যদের বক্তব্য আমরা শুনেছি। একাধিকবার তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারাই ভিডিও ফুটেজ দেখে আসামি কামাল ঘটনাস্থলে ছিলেন বলে নিশ্চিত করেছেন।’

অভিযোগপত্র সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে একজন গ্রেফতার থাকায় শুধু তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দেওয়া হয়েছে। বাকি ৭ জনকে পাওয়া গেলে পরবর্তীতে সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিট দেওয়া হবে।’

বাকি সাতজনকে গ্রেফতারের ব্যাপারে পিবিআই-এর কর্মকর্তা বলেন, ‘লাখ-লাখ মানুষের মাঝে এই সাতজনকে খুঁজে পাওয়া মুশকিল। আমরা তাদের গ্রেফতার করতে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থাকে জানিয়েছি। এছাড়া সোর্সদের কাছে প্রকাশিত ছবিগুলো পাঠানো হয়েছে। মিডিয়ার মাধ্যমেরও সারাদেশে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের গ্রেফতারে আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’

মামলাটি বর্তমানে কি অবস্থায় আছে এ বিষয়ে কিছু জানাতে পারেননি তদন্ত কর্মকর্তা। তিনি বলেন, ‘আদালতে আমরা চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছি। এখন বাকি কাজ আদালত করবে।’

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মো. কামালের আইনজীবী মো. আনিসুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কামাল এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়। সে স্বীকারোক্তিও দেয়নি। আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়েছে। কিন্তু চার্জ গঠন হয়নি। আগামী শুনানিতে ডিসচার্জের আবেদন করবো। সে অনুযায়ী মামলার পরবর্তী কাজ পরিচালনা করা হবে।’

তবে পহেলা বৈশাখ উদযাপনে এ ধরনের যৌন হয়রানির মতো ঘটনা প্রতিরোধে এবার পহেলা বৈশাখে বিশেষ টিম নিয়োজিত থাকবে বলে জানিয়েছে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি বলেন, ‘যেকোনও পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুলিশ প্রস্তুত রয়েছে। যৌন হয়রানির মতো ঘটনা ঠেকাতে বিশেষ টিম কাজ করবে।’

/এমও/

সম্পর্কিত
সর্বশেষ খবর
মিয়ানমারে তীব্র গোলাগুলি, শাহপরীর দ্বীপে নির্ঘুম রাত 
মিয়ানমারে তীব্র গোলাগুলি, শাহপরীর দ্বীপে নির্ঘুম রাত 
কোপার প্রস্তুতিতে ব্রাজিলকে জিততে দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র 
কোপার প্রস্তুতিতে ব্রাজিলকে জিততে দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র 
২৩ হাজার কর্মী নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া ফাইলেরিয়া হাসপাতালটি সিলগালা
২৩ হাজার কর্মী নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া ফাইলেরিয়া হাসপাতালটি সিলগালা
প্রতি বছর বাড়ছে তাপমাত্রা: পরিবেশ ধ্বংসের বিরূপ প্রভাব বলছেন বিশেষজ্ঞরা
প্রতি বছর বাড়ছে তাপমাত্রা: পরিবেশ ধ্বংসের বিরূপ প্রভাব বলছেন বিশেষজ্ঞরা
সর্বাধিক পঠিত
ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি
ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি
অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, আমরা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে সম্মান করি: ডোনাল্ড লু
অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, আমরা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে সম্মান করি: ডোনাল্ড লু
কাঁপছে সেন্ট মার্টিন, আকাশে উড়ছে যুদ্ধবিমান
কাঁপছে সেন্ট মার্টিন, আকাশে উড়ছে যুদ্ধবিমান
আম-চিয়া সিডের পদটি সকালের নাস্তায় কেন রাখবেন?
আম-চিয়া সিডের পদটি সকালের নাস্তায় কেন রাখবেন?
সীমান্তে গুলি চালাতে পারে বিএসএফ, সতর্ক করে বিজিবির মাইকিং
সীমান্তে গুলি চালাতে পারে বিএসএফ, সতর্ক করে বিজিবির মাইকিং