X
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪
১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

করোনাকালে বেড়েছে নারীর প্রতি পারিবারিক সহিংসতা

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৩ জুন ২০২০, ২৩:৩৩আপডেট : ২৩ জুন ২০২০, ২৩:৩৫

করোনাকালে বেড়েছে নারীর প্রতি পারিবারিক সহিংসতা

স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে করোনা মহামারির সময়ে নারীর প্রতি পারিবারিক সহিংসতা বেড়েছে। প্রতিনিয়তই এ ঘটনা বাড়ছে বলে অভিমত দিয়েছেন নারী উন্নয়ন কর্মী ও নেতারা। লকডাউনের এই সময়ে ঘরে বন্দি থাকাবস্থায় প্রতিবন্ধী ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নারীরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। নির্যাতিত নারীদের পাশে দাঁড়ানোর মতো কেউ থাকছেন না বলেও অভিমত দেন তারা। সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই সমস্যা কমিয়ে আনা সম্ভব বলে সুপারিশ তুলে ধরেন নারী নেত্রীরা।

মঙ্গলবার (২৩ জুন) মানষের জন্য ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘লকডাউনের সময় পারিবারিক নির্যাতন বৃদ্ধি’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনায় এসব তথ্য তুলে ধরেন নারী নেত্রীরা। 

এর আগে গত ১০ জুন ‘মে মাসের জরিপ প্রতিবেদনে’ বলা হয়, এপ্রিল মাসের চেয়ে মে মাসে দেশে নারী নির্যাতন বেড়েছে ৩১ শতাংশ শতাংশ। এর বেশিরভাগই পারিবারিক সহিংসতা বলে ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম বলেন, ‘আগের সময়ের সহিংসতার চেয়ে বর্তমানে পারিবারিক কলহ বেড়ে গেছে। কোভিডের কারণে অর্থনৈতিক চাপ ও নারীদের প্রতি পরিবারিক সহিংসতা বেড়েছে। আদিবাসী তৃণমূল নারীদের অবস্থা আরও  বেশি শোচনীয়।’

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের নেত্রী মালেকা বানু বলেন, ‘‘সামাজিক-পারিবারিকভাবে পুরুষের আচরণ ও মানসিকতা পরিবর্তন করতে সম্মিলিত ভূমিকা রাখতে হবে।  কোভিডের কারণে স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা গুরুত্ব পেলেও পারিবারিক ও সামাজিক আচরণ পরিবর্তনের বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে না। সামাজিক আচরণ ও নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে কোভিডের এই সময়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থার মাধ্যমে ‘মেসেজ ক্যাম্পেইন’ দরকার।’’

ভার্চুয়াল আলোচনায় নারী নেত্রীরা বলেন, লকডাউনের কারণে গ্রামের নারীরা বাজারে পণ্য বিক্রি করতে যেতে পারছে না। নেই কোনও ত্রাণও। অনেক দুর্গম জায়গার অধিবাসী হওয়ায় সেখানে সরকারি-বেসরকারি কোনও ত্রাণ পৌঁছায় না। এসব কারণে নারীর প্রতি পারিবারিক সহিংসতা বেড়েছে।

বর্তমান সময়ের সামাজিক সহিংসতা, বাল্যবিবাহ, নারীর প্রতি সহিংসতার বিষয়গুলো আলোচনায় উঠে আসে। আলোচকরা বলেছেন, নারীরা ক্ষমতায়ন হয়েছে তা পুরুষরা মানতে পারছেন না, এটা কিছুটা সঠিক। কোভিডের কারণে নারীকে খাদ্য জোগাতে রাস্তায় ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। এ সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা গুরুত্ব পেলেও পারিবারিক ও সামাজিক আচরণ পরিবর্তনের বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে না।

তারা বলেন, পারিবারিক আইন প্রয়োগের মাধ্যমেই শুধু যে এই সমস্যার সমাধান হবে তা নয়, সম্মিলিতভাবে সামাজিক ও পারিবারিকভাবে এই সমস্যার সমাধান করা সহজ হবে।

ভার্চুয়াল এই আলোচনায় বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি, পুলিশ কর্মকর্তাসহ অন্যান্য পেশার প্রতিনিধিরা যুক্ত ছিলেন।

 

/এসএমএ/এপিএইচ/
সম্পর্কিত
সর্বশেষ খবর
বেইলি রোডে আগুন: ৫ কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে আইনি নোটিশ
বেইলি রোডে আগুন: ৫ কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে আইনি নোটিশ
বিপন্ন উপকূলের বন্যপ্রাণী, রক্ষায় নেই কার্যকরী উদ্যোগ
বিশ্ব বন্যপ্রাণী দিবস আজবিপন্ন উপকূলের বন্যপ্রাণী, রক্ষায় নেই কার্যকরী উদ্যোগ
বেইলি রোডসহ সব আবাসিক স্থাপনায় রেস্টুরেন্ট বন্ধ চেয়ে রিট
বেইলি রোডসহ সব আবাসিক স্থাপনায় রেস্টুরেন্ট বন্ধ চেয়ে রিট
লায়নের ঘূর্ণিতেই কাবু নিউজিল্যান্ড
লায়নের ঘূর্ণিতেই কাবু নিউজিল্যান্ড
সর্বাধিক পঠিত
ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের বিএসসি পাস মর্যাদা দেওয়ার উদ্যোগ
ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের বিএসসি পাস মর্যাদা দেওয়ার উদ্যোগ
স্কুলে গণিত ও বিজ্ঞানের শিক্ষক হতে পারেন ডিপ্লোমা প্রকৌশলীরা: শিক্ষামন্ত্রী
স্কুলে গণিত ও বিজ্ঞানের শিক্ষক হতে পারেন ডিপ্লোমা প্রকৌশলীরা: শিক্ষামন্ত্রী
ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিল ‘এএমপিএম’, পলাতক কর্মকর্তারা
বেইলি রোড ট্র্যাজেডিব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিল ‘এএমপিএম’, পলাতক কর্মকর্তারা
বিদেশের সম্পদ দেশের টাকায় করিনি: সাবেক ভূমিমন্ত্রী
বিদেশের সম্পদ দেশের টাকায় করিনি: সাবেক ভূমিমন্ত্রী
পূর্ব ইউক্রেনের একটি শহর ঘেরাও করেছে রুশ সেনাবাহিনী
পূর্ব ইউক্রেনের একটি শহর ঘেরাও করেছে রুশ সেনাবাহিনী