X
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২
১৯ আষাঢ় ১৪২৯

জলবায়ু অভিযোজন অর্থায়ন বাড়ানোর আহ্বান ডিএনসিসির মেয়রের

আপডেট : ১৯ মে ২০২২, ০১:৩২

জাতিসংঘ মহাসচিবের নেতৃত্বে জলবায়ু অভিযোজন অর্থায়নকে মোট জলবায়ু অর্থায়নের ৫০ শতাংশে উন্নীত করার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক অভিবাসন রিভিউ ফোরামের উদ্যোগে নিউ ইয়র্কে অনুষ্ঠিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক বৈঠক। বুধবার (১৮ মে) স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে অংশ নিয়ে তিনি এমন আহ্বান জানান। উত্তর সিটি করপোরেশন থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

নিজের বক্তব্যে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘ক্রমবর্ধমান জলবায়ু পরিবর্তনে বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলে বন্যা, ঘূর্ণিঝড় এবং উপকূলীয় এলাকায় সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির কারণে প্রতিদিন ২ হাজার লোক ঢাকায় চলে আসে। জলবায়ু উদ্বাস্তু বৃদ্ধির পাশাপাশি মিয়ানমারে সহিংসতা থেকে পালিয়ে আসা ১০ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ ইতোমধ্যেই একটি গুরুতর মানবিক সংকটের সম্মুখীন হচ্ছে। রোহিঙ্গা শরনার্থীরা আরও ভালো সুযোগের সন্ধানে ঢাকার মতো শহরের দিকে ক্রমবর্ধমানভাবে চলে যাচ্ছে। কিন্তু ঢাকা নিজেও জলবায়ু বিপজ্জনক একটি শহর। বিশেষত জলাবদ্ধতা এবং তাপমাত্রার জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ, যা মানুষের স্বাস্থ্যের উপর মারাত্মক বিরূপ প্রভাব ফেলে।’

তিনি বলেন, ‘২ কোটি মানুষের এই শহরে ৪০ শতাংশ মানুষ অনানুষ্ঠানিক বসতি স্থাপন করেছে এবং ৭০ শতাংশ অনানুষ্ঠানিক বসতি স্থাপনকারীরা ইতোমধ্যেই তাদের জীবনে পরিবেশগত বিরূপ প্রভাব অনুভব করছে। শহরের সকলেই সম্ভাব্যভাবে জলবায়ু প্রভাবের সম্মুখীন। সাধারণত দেখা যাচ্ছে, শহরগুলোই জলবায়ু উদ্বাস্তু এবং অভিবাসনের প্রথম সারিতে। একটি সংখ্যার মানুষ শহরে অভিবাসনে বাধ্য হচ্ছে, যারা অন্যদের জন্য ঝুঁকি কারণ।’

মেয়র বলেন, ‘আমি ইতোমধ্যে সি৪০ সিটিস এবং এমএমসি’র সদস্য হিসেবে অন্য মেয়রদের সাথে নিয়ে কপ-২৬ এ জলবায়ু পরিবর্তনে সংকট নিরসনে জোরারোপ করেছি। জলবায়ু এবং অভিবাসনে বিশ্বব্যাপী শহরগুলো নেতৃত্ব দিচ্ছে, কিন্তু তারা একা এই চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলা করতে পারে না।

এসময় তিনি গ্লোবাল কমপ্যাক্টের সাথে সামঞ্জস্য রেখে কিছু অগ্রাধিকারের কথা তুলে ধরে। মেয়র বলেন, জলবায়ু সংকট যেহেতু মানুষকে তাদের বাড়িঘর থেকে দূরে ঠেলে দিচ্ছে, তাই জলবায়ু অভিযোজনে আমাদের আরও জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ দরকার। মোট জলবায়ু তহবিলের অন্তত ৫০ শতাংশ ঢাকার মতো জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল এবং দ্রুত বর্ধনশীল শহরের জন্য বরাদ্দ প্রয়োজন।

দ্বিতীয় অগ্রাধিকার তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘আমাদের অভিবাসনকে জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে অভিযোজনের একটি রূপ হিসাবে স্বীকৃতি দিতে হবে। যারা উদ্বাস্তু তাদের অধিকার এবং মর্যাদা রক্ষায় ব্যবস্থা নিতে হবে। সাথে সাথে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো থেকে সরিয়ে নিরাপদ স্থানে স্থানান্তরের সুযোগ দিতে হবে।’

সেইসঙ্গে এই কর্মগুলোর সাথে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান বৃদ্ধি করারও তাগাদা দেন আতিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন ক্ষেত্রে দক্ষতা বাড়িয়ে বিশেষ করে সবুজ খাতে অভিবাসীদের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে এবং আমাদের অর্থনীতিতে তাদের অবদান বাড়াতে হবে।’

এটি অর্জনের জন্য অপরিহার্যভাবে শহর এবং মেয়রদের জলবায়ু এবং অভিবাসন সম্পর্কিত প্রাসঙ্গিক নীতি উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় আরও জড়িত হওয়া এবং পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন, যার মধ্যে রয়েছে জাতীয় জলবায়ু, অভিবাসন, এবং উন্নয়ন নীতি; যেমন এনডিসি, অভিবাসন এবং স্থানান্তরিত জনগণের জন্য জাতীয় কৌশল প্রণয়ন করাও জরুরি বলে উল্লেখ করেন মেয়র। 

বৈঠক শেষে মেয়র আতিকুল ইসলাম নিউ ইয়র্ক সময় সকাল ১১টায় জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সভাপতি আব্দুল্লাহ শহীদের সঙ্গে তার কার্যালয়ে একটি বৈঠক করেন। এসময় সভাপতির সঙ্গে আলাপকালে মেয়র বলেন, ‘জাতিসংঘ মহাসচিবের নেতৃত্বে আমরা আমাদের সদস্য রাষ্ট্র এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে জলবায়ু অভিযোজন অর্থায়নকে মোট জলবায়ু অর্থায়নের ৫০ শতাংশে উন্নীত করার আহ্বান জানাই এবং নিশ্চিত করতে হবে এই অর্থ যেন ক্ষতিগ্রস্ত দেশের সংকট নিরসনে ব্যবহার করা হয়।’

/ইউআই/ইউএস/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দুই দেশের সমঝোতায় ক্ষুব্ধ পিয়ংইয়ং
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দুই দেশের সমঝোতায় ক্ষুব্ধ পিয়ংইয়ং
নড়াইলে অধ্যক্ষকে লাঞ্ছনা: তিন দিনের রিমান্ডে ৪ জন
নড়াইলে অধ্যক্ষকে লাঞ্ছনা: তিন দিনের রিমান্ডে ৪ জন
পারিবারিক আদালত আইনের খসড়া অনুমোদন
পারিবারিক আদালত আইনের খসড়া অনুমোদন
ঢাকায় আরও চারটি বড় বাজার করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর 
ঢাকায় আরও চারটি বড় বাজার করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর 
এ বিভাগের সর্বশেষ
মশার উৎস খুঁজতে অভিযান শুরু, উড়ছে ড্রোন
মশার উৎস খুঁজতে অভিযান শুরু, উড়ছে ড্রোন
বন্যাদুর্গতদের সহায়তায় উত্তরা ৪ নম্বর সেক্টরের বাসিন্দারা
বন্যাদুর্গতদের সহায়তায় উত্তরা ৪ নম্বর সেক্টরের বাসিন্দারা
ড্রোনের মাধ্যমে মশার উৎস শনাক্তে অভিযান শনিবার থেকে
ড্রোনের মাধ্যমে মশার উৎস শনাক্তে অভিযান শনিবার থেকে
ডিজিটাল হবে ডিএনসিসির রিকশা
ডিজিটাল হবে ডিএনসিসির রিকশা
ডিএনসিসির ছয় হাটে ডিজিটাল লেনদেন
ডিএনসিসির ছয় হাটে ডিজিটাল লেনদেন