X
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
৩ আষাঢ় ১৪৩১

কী অভিযোগ এরতেজা হাসানের বিরুদ্ধে?

রিয়াদ তালুকদার
০২ নভেম্বর ২০২২, ১৫:৩৫আপডেট : ০২ নভেম্বর ২০২২, ১৫:৫৬

রাজধানীর দক্ষিণখানে ৫০ কোটি টাকা মূল্যের পাঁচ বিঘা জমির দলিল জালিয়াতির অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় এফবিসিসিআইর পরিচালক ড. কাজী এরতেজা হাসানকে। মঙ্গলবার (১ নভেম্বর) রাতে রাজধানীর গুলশান-২ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতারের পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) জানায়, দলিল জালিয়াতি ও প্রতারণার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সম্পৃক্ততার অভিযোগেই গ্রেফতার করা হয় এরতেজাকে। তিনি মামলার এজাহারভুক্ত আসামি ছিলেন না। তবে তদন্তে তার নাম উঠে আসে।

এ মামলার এজহারভুক্ত তিন আসামির মধ্যে ১ নম্বর ব্যক্তি হলেন নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ আব্দুল্লাহ। অন্য দুই জন হলেন রিয়াজুল আলম ও সেলিম মুন্সী। এই মামলায় এর আগে গ্রেফতার হয়েছিলেন আবু ইউসুফ আব্দুল্লাহ। গত ১০ জানুয়ারি বনানী থেকে তাকে গ্রেফতার করে পিবিআইর স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ উত্তর।

উল্লেখ্য, গ্রেফতার কাজী এরতেজা হাসান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য এবং দৈনিক ভোরের পাতা, দ্য ডেইলি পিপলস টাইম পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক।

আদালতে কাজী এরতেজা হাসান

গত ১০ জানুয়ারি জমি কিনতে গিয়ে দলিল জালিয়াতি ও প্রতারণার অভিযোগে তিন জনকে আসামি করে খিলক্ষেত থানায় একটি মামলা দায়ের করেন আসিয়ান ল্যান্ডস ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া। মামলায় আসামি করা হয় নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, রিয়াজুল আলম ও সেলিম মুন্সীসহ অজ্ঞাতনামা আরও সাত জনকে।

মামলাটি বর্তমানে তদন্ত করছে পিবিআই। তাদের তদন্তে দলিল জালিয়াতি ও প্রতারণার বিষয়টি স্পষ্ট হয়। এরপর নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়। এই তথ্য জানিয়ে পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত থাকার সুস্পষ্ট প্রমাণের ভিত্তিতে কাজী এরতেজা হাসানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই মামলাটির অভিযোগপত্র এই মাসের মধ্যে দেওয়া হবে।

মামলার বাদী সাইফুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে আমার ভাইয়ের (আসিয়ান সিটির চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম) স্বাক্ষর ও সিল জালিয়াতি করে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে জমি দখলের পাঁয়তারায় লিপ্ত হয় নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তাদের সঙ্গে সহায়ক হিসেবে কাজ করেছে ড. কাজী এরতেজা হাসানসহ অনেকে। তারা আমাদের ১০ কোটি টাকা দিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করতে চেয়েছিল। কিন্তু আমরা কোনও মীমাংসা চাই না। টাকাপয়সা না। বিষয়টি হচ্ছে তারা জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছে। আদালত এ বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসের জন্য জমি কেনার লক্ষ্যে রাজধানীর দক্ষিণখানে আসিয়ান ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পে ৫ বিঘা জমি পছন্দ করেন নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ এবং তার পরিচিত কাজী শামীম মাহদীনসহ কয়েকজন। সরাসরি জমি দেখে ২০১৩ সালের ৩ আগস্ট ৩০০ টাকার নন-জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে লিখিতভাবে ৫০ কোটি টাকা মূল্য নির্ধারণ করা হয়। চুক্তিপত্রে প্রথম পক্ষ হিসেবে আবু ইউসুফ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জমির ক্রেতা এবং দুই নম্বর বিবাদী আসামি রিয়াজুল ইসলাম এতে স্বাক্ষর করেন। জমির দামের সম্পূর্ণ টাকা ২০১৩ সালের ৩০ আগস্টের মধ্যে পরিশোধ করার বাধ্যবাধকতার কথাও চুক্তিপত্রে উল্লেখ করা হয়।

আদালতে কাজী এরতেজা হাসান

সেই সময় মোট মূল্যের ৫০ কোটি টাকার মধ্যে নগদ চেকে ৩০ কোটি টাকা পরিশোধ করে অবশিষ্ট ২০ কোটি টাকা বাকি রাখা হয়। আসিয়ান ল্যান্ড অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টকে সেসময় জানানো হয়, কাজ শুরুর অল্প সময়ের মধ্যেই বাকি টাকা পরিশোধ করে দেওয়া হবে। ২০১৩ থেকে ১৯ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও বাকি টাকা পরিশোধ করা হয়নি। পরবর্তীতে ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ চলমান থাকা অবস্থায় জমি বিক্রির পাওনা টাকা নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর কাছে চাইতে গেলে জানানো হয়, কোনও টাকা পাওনা নেই। কারণ, আসিয়ান সিটির চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া ২০১৩ সালে ডিসেম্বর মাসে জমিতে রেজিস্ট্রেশন করে দিয়েছেন এবং তারা জমির দাম সম্পূর্ণ পরিশোধ করেছেন।

উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফুল ইসলাম তার বড় ভাই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের সঙ্গে এ বিষয় নিয়ে আলোচনা করলে তিনি বিস্মিত হন, জমি রেজিস্ট্রির বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না বলেও তাকে জানিয়ে দেন। পরবর্তীতে ইউসুফ আব্দুল্লাহকে টাকা পরিশোধ করার জন্য তাগাদা দিতে থাকেন তারা।

মামলার এজাহারে আরও জানানো হয়, খোঁজ নিয়ে পরে জানা যায় মামলার এক নম্বর আসামি ইউসুফ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ যে জমি কেনার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন, সে জমি সাফ কাবলা দলিল নম্বর ১১৩৫৩ ২০১৩/১৫/১২ মূলে রেজিস্ট্রি হয় এবং জমির মূল্য ৯ কোটি ৩৩ লাখ টাকা দেখানো হয়। দলিলটি কমিশন নিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। সে দলিল সম্পাদনকারী হিসেবে বাদীর অফিসের মোহরার (দলিল সংক্রান্ত কাজকর্ম করেন যিনি) মো. শহিদুল ইসলামের নাম ব্যবহার করা হয়। এ বিষয়টি শহিদুলকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি দলিল লেখার কোনও কাজ করেননি বলে তথ্য দেন।

বাদী সাইফুল ইসলাম এজাহারে আরও উল্লেখ করেছেন, দলিল সম্পর্কে মামলার দুই নম্বর ও তিন নম্বর আসামির সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা জানান, নর্দান কর্তৃপক্ষ টাকা পরিশোধ করেই আপনার জমি রেজিস্ট্রি করিয়েছে। নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে এ বিষয় নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে বলা হয় বাদীকে। তাকে বিভিন্ন সময়ে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয়।

নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বাদী সাইফুল ইসলামের বড় ভাই নজরুল ইসলাম ভূঁইয়ার স্বাক্ষর, অফিসের সিল ও মোহরার মো. শফিকুল ইসলামের স্বাক্ষর জাল করে সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে জমির দলিল রেজিস্ট্রেশন করেছে বলে অভিযোগ করেছেন এজাহারে। এজাহারভুক্ত তিন আসামি ছাড়াও আরও ছয়-সাত জনের সম্পৃক্ততায় প্রতারণা ও বিশ্বাস ভঙ্গ করে জাল-জালিয়াতির আশ্রয় নেওয়া হয়েছে।

পিবিআই বলছে, জমি কিনতে গিয়ে আবু ইউসুফ আবদুল্লাহ ও কাজী এরতেজা অন্যদের সহায়তায় জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছিলেন। এক ব্যক্তির পরিচয় দিয়ে অন্য ব্যক্তির মাধ্যমে তারা কাগজপত্র করিয়েছিলেন। মামলার তদন্তে জালিয়াতির বিষয়টি উঠে আসায় সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে কাজী এরতেজাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দুই জন মিলে একটি চক্র হয়ে জমি কেনার নামে একটি প্রতিষ্ঠানের জমি নিজেদের দখলে নেওয়ার পাঁয়তারা করছিলেন তারা। এই চক্রের সঙ্গে আর কারা জড়িত এ বিষয়গুলো তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। যে ব্যক্তির সিল এবং নাম ব্যবহার করা হয়েছে সেসব ব্যক্তির এই বিষয়টি পুরোপুরি অজানা। সুকৌশলে ও পরিকল্পিতভাবে তারা এই প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন- 

কাজী এরতেজা হাসান রিমান্ডে

জালিয়াতি মামলায় কাজী এরতেজা গ্রেফতার

আদালতে এরতেজা, ২ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

/এফএস/এমওএফ/
সম্পর্কিত
মিরপুর গোলারটেক মাঠে ডিএনসিসির প্রধান জামাত, অংশ নিয়ে যা বললেন মেয়র
ভেদাভেদ ভুলে এক কাতারে
ঈদ জামাত শেষে চলছে পশু কোরবানি
সর্বশেষ খবর
প্রধানমন্ত্রীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন দলের নেতাকর্মীরা
প্রধানমন্ত্রীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন দলের নেতাকর্মীরা
পশ্চিমবঙ্গে কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে মালগাড়ির ধাক্কা, নিহত ৮
পশ্চিমবঙ্গে কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে মালগাড়ির ধাক্কা, নিহত ৮
সিলেট শহরে ঘরে ঘরে পানি, পশু কোরবানি নিয়ে বিপাকে
সিলেট শহরে ঘরে ঘরে পানি, পশু কোরবানি নিয়ে বিপাকে
ঈদের ১০ ধারাবাহিক নাটক
ঈদের ১০ ধারাবাহিক নাটক
সর্বাধিক পঠিত
পারমাণবিক কর্মসূচি বৃদ্ধি নিয়ে জি-৭ এর বিবৃতির জবাবে যা বললো ইরান
পারমাণবিক কর্মসূচি বৃদ্ধি নিয়ে জি-৭ এর বিবৃতির জবাবে যা বললো ইরান
গাজায় কৌশলগত বিরতি ঘোষণা ইসরায়েলের
গাজায় কৌশলগত বিরতি ঘোষণা ইসরায়েলের
ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ: শান্তি সম্মেলন শেষে চূড়ান্ত ঘোষণায় যা বললো সুইজারল্যান্ড
ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ: শান্তি সম্মেলন শেষে চূড়ান্ত ঘোষণায় যা বললো সুইজারল্যান্ড
বড় গরু নিয়ে বিপত্তি, দামই বলছেন না ক্রেতারা
কোরবানির হাটের শেষ দিনবড় গরু নিয়ে বিপত্তি, দামই বলছেন না ক্রেতারা
ছাগলেই স্বস্তি!
ছাগলেই স্বস্তি!