X
রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
১২ ফাল্গুন ১৪৩০

তামাক কোম্পানি কোনোভাবেই রাষ্ট্রীয় আইনের ঊর্ধ্বে নয়

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৮ নভেম্বর ২০২৩, ২১:৫৪আপডেট : ২৮ নভেম্বর ২০২৩, ২১:৫৪

তামাক নিয়ন্ত্রণে সরকারের ধারাবাহিক উদ্যোগ সত্ত্বেও দুটি বিদেশি সিগারেট কোম্পানি আইন ভঙ্গে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তামাক কোম্পানি কোনোভাবেই রাষ্ট্রীয় আইনের ঊর্ধ্বে নয়। অথচ গত ২০ বছরে বারবার আইন লঙ্ঘন করা সত্ত্বেও তামাক কোম্পানিগুলোকে কোনো প্রকার শাস্তির আওতায় আনা সম্ভব হয়নি। বরং কোম্পানিগুলো সরকারের তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধনের উদ্যোগটি বিফল ও বিলম্ব করতে নানা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি ছড়িয়ে চলেছে।

মঙ্গলবার (২৮ নভম্বের) জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে ‘আইন ভাঙ্গার শীর্ষে দুটি বিদেশি সিগারেট কোম্পানি’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট (বিএটিএ)। এ সময় উপস্থিত বক্তারা এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ তামাকবিরোধী জোটের ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়কারী হেলাল আহমেদের সভাপতিত্বে এবং ডব্লিউবিবি ট্রাস্টের প্রকল্প কর্মকর্তা মিঠুন বৈদ্যর সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে মূলপত্র পাঠ করেন গ্রাম বাংলা উন্নয়ন কমিটির নির্বাহী পরিচালক এ কে এম মাকসুদ।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের জনগণের গড় আয়ু বৃদ্ধি পেলেও ধূমপানজনিত বিভিন্ন অসংক্রামক রোগ যেমন ক্যানসার, স্ট্রোক, হৃদরোগ, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ক্রমাগত বেড়েছে। বিদেশে চিকিৎসার জন্য যাওয়া রোগীদের সর্বোচ্চ সংখ্যক ক্যানসারের রোগী (২১ শতাংশ) এবং দ্বিতীয় সর্বোচ্চ হৃদরোগে আক্রান্ত রোগী (১৮ শতাংশ)।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউটের এক গবেষণায় দেখা গেছে, এসব বিদেশগামী রোগীর বার্ষিক ব্যয় হয় প্রায় ৩৫০ কোটি ডলার। এই বিশাল চিকিৎসা ব্যয়ের দায়ভার তামাক কোম্পানি কোনোভাবেই এড়াতে পারে না।

তারা বলেন, দেশের ৪৫টি জেলায় পরিচালিত জরিপে ৯৪৪টি স্থানের সর্বমোট ৮ হাজার ১৯টি বিক্রয়কেন্দ্র থেকে তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা কার্যক্রমের তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। উক্ত জরিপে প্রায় সাড়ে ৩২ হাজার তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন লঙ্ঘনের চিত্র চিহ্নিত হয়েছে। তথ্য সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে মোট ৪টি সিগারেট কোম্পানির বিজ্ঞাপন পাওয়া গেছে। কিন্তু সব স্থান থেকে প্রাপ্ত তথ্যে আইন লঙ্ঘনে দুটি বিদেশি সিগারেট কোম্পানি ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ (৯৬ শতাংশ) এবং জাপান টোব্যাকো ইন্টারন্যাশনালের (৮৭ শতাংশ) সর্বাধিক সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে।

এ ছাড়া আবুল খায়ের টোব্যাকো এবং আকিজ টোব্যাকো কোম্পানির বিজ্ঞাপনের তথ্য পাওয়া গেছে যথাক্রমে ২২ ও ৪৬ শতাংশ স্থানে।

তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয়কেন্দ্রগুলোতে প্রদেয় বিজ্ঞাপনের মধ্যে প্রায় ৮০ শতাংশজুড়ে আছে মূল্য তালিকা সম্বলিত স্টিকার এবং খালি সিগারেট প্যাকেট দিয়ে তৈরি করা ডামি। আইন বাস্তবায়নকারী সংস্থার সহযোগিতায় আইন লঙ্ঘনকারী দোকানদারদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা আদায় করা হলেও কোম্পানিগুলো তাদের আর্থিক প্রণোদনা দিচ্ছে।

এ সময় তামাক নিয়ন্ত্রণে সংবাদ সম্মেলন থেকে ৯টি সুপারিশ জানানো হয়।

সুপারিশগুলো হচ্ছে—
আইন লঙ্ঘনকারী তামাক কোম্পানির বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা নিশ্চিত করা; আইন অমান্যকারী দোকানগুলোর লাইসেন্স বাতিল করা; নিয়মিত মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে আইন লঙ্ঘনের দায়ে তামাক কোম্পানি/প্রতিনিধিকে আর্থিক জরিমানার পাশাপাশি জেল প্রদান; দ্রুততম সময়ে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধনী চূড়ান্ত করা; তামাক কোম্পানির প্রভাব থেকে নীতি সুরক্ষায় এফসিটিসির অনুচ্ছেদ ৫ দশমিক ৩ অনুসারে ‘কোড অব কন্ডাক্ট’ গ্রহণ; জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি’ দ্রুত চূড়ান্ত এবং দেশব্যাপী যথাযথ কার্যক্রম গ্রহণ করা; টাস্কফোর্স কমিটিগুলো সক্রিয় করা, কমিটির ত্রৈমাসিক সভা নিয়মিতকরণ; তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন মনিটরিং কার্যক্রমের সঙ্গে বেসরকারি সংস্থাগুলোকে সম্পৃক্ত করা; এবং প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুসারে একটি শক্তিশালী তামাক কর নীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করা।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ডব্লিউবিবি ট্রাস্টের পরিচালক গাউস পিয়ারী, এইড ফাউন্ডশেনের প্রকল্প পরিচালক শাগুফতা সুলতানা, তামাক নিয়ন্ত্রণ গবেষক নাসির উদ্দিন শেখ, স্কোপের নির্বাহী পরিচালক কাজী এনায়েত হোসেন এবং টিসিআরসির প্রজেক্ট ম্যানেজার ফারহানা জামান লিজা প্রমুখ।

/এএজে/এনএআর/
সম্পর্কিত
নিজেদের দায় বিএনপির ঘাড়ে চাপানো আ.লীগের পুরনো অভ্যাস: রিজভী
সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী
রমজানে ডিম-মুরগির দাম কমাতে ‘চাঁদাবাজি’ বন্ধের দাবি
সর্বশেষ খবর
মামলা তুলে নিতে হুমকির অভিযোগ, ডিবি কার্যালয়ে আয়ানের বাবা
মামলা তুলে নিতে হুমকির অভিযোগ, ডিবি কার্যালয়ে আয়ানের বাবা
বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে অনুশোচনায় ভুগছেন না জাভি
বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে অনুশোচনায় ভুগছেন না জাভি
নেই সংযোগ সড়ক, ২৩ কোটি টাকার সেতুতে উঠতে হয় মই বেয়ে
নেই সংযোগ সড়ক, ২৩ কোটি টাকার সেতুতে উঠতে হয় মই বেয়ে
১ মার্চের মধ্যে শপথ নেবেন পাকিস্তানের নব নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী
১ মার্চের মধ্যে শপথ নেবেন পাকিস্তানের নব নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী
সর্বাধিক পঠিত
ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রামীণ ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মানববন্ধন
ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রামীণ ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মানববন্ধন
গানে বাধা দিয়ে আর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ না করার মুচলেকা দিলেন সাবেক শিক্ষার্থী
গানে বাধা দিয়ে আর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ না করার মুচলেকা দিলেন সাবেক শিক্ষার্থী
ইউক্রেন যুদ্ধ থেকে যা শিখেছে পেন্টাগন
ইউক্রেন যুদ্ধ থেকে যা শিখেছে পেন্টাগন
অভিযান চালিয়ে হাসপাতাল বন্ধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ‘না’
অভিযান চালিয়ে হাসপাতাল বন্ধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ‘না’
মার্কিন প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মির্জা ফখরুলের বৈঠক
মার্কিন প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মির্জা ফখরুলের বৈঠক