X
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪
৪ আষাঢ় ১৪৩১

‘২০৫০ সালের মধ্যে বরেন্দ্র অঞ্চল মরুভূমিতে পরিণত হবে’

ঢাবি প্রতিনিধি
২২ মে ২০২৪, ১৯:১২আপডেট : ২২ মে ২০২৪, ১৯:১২

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে ২০৫০ সালের মধ্যে বরেন্দ্র অঞ্চল মরুভূমিতে পরিণত হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বক্তারা। বুধবার (২২ মে) আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য দিবসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মুনীর চৌধুরী মিলনায়তনে পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন আন্দোলন (পরিজা) ও ঢাবি পরিবেশ সংসদ আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এই আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

পরিজার সভাপতি প্রকৌশলী মো. আবদুস সোবহান সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন বিশিষ্ট জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও ডাকসুর সাবেক জিএস ডা. মুশতাক হোসেন, পরিজার সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আহমেদ উজ্জল, পরিজার সহসভাপতি ক্যামেলিয়া চৌধরী, ঢাবি পরিবেশ সংসদের সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রাশেদ, লেখক ও গবেষক অপূর্ব কুমার দাশ, পুরান ঢাকার নেতা জি এম রুস্তম খান, মো. ইব্রাহীম প্রমুখ।

আলোচনা সভায় ধারণা পত্র উত্থাপন করেন প্রকৌশলী মো. আবদুস সোবহান ও সঞ্চালনা করেন আমির হাসান মাসুদ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত প্রভাব ও পদ্মা নদীর প্রাকৃতিক প্রবাহ ভারত নিয়ন্ত্রণ করার কারণে নদীর নাব্য হারিয়ে জেগে উঠেছে বিশাল বিশাল চর। পানির স্তর বছরে গড়ে স্থানভেদে দুই থেকে তিন ফুট করে নিচে নেমে যাচ্ছে। এই হার অব্যাহত থাকলে আগামী ২০ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে এই অঞ্চল সম্পূর্ণরূপে মরুভূমিতে পরিণত হবে। পানির প্রবাহ নিশ্চিত করা না হলে ভাঙনের কারণে নদীর প্রশস্ততা আরও ব্যাপকভাবে বাড়বে।

শুষ্ক মৌসুমে ভারতের একতরফা পদ্মার পানি প্রত্যাহারের ফলে বরেন্দ্র এলাকা মরুভূমিতে পরিণত হবে জানিয়ে তারা বলেন, ভাটির দেশ হিসেবে অভিন্ন নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা না পাওয়ায় আমাদের দেশে পানির সংকট আরও ঘনিভূত হচ্ছে এবং নৌ চলাচল, সেচব্যবস্থা ও জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়ছে, উত্তরাঞ্চলের নদীগুলো শুষ্ক বালুচরে পরিণত হয়েছে। দেশের প্রায় ১৪০ টি নদ-নদী এখন মৃত প্রায়। দেশের প্রায় ১৩টি নদীর অস্তিত্ব এখন বিলীনের পথে। এভাবে চলতে থাকলে দেশের মানচিএ থেকে হারিয়ে যাবে এসব নদী।

মো. আবদুস সোবহান বলেন, আমাদের বায়ু নিশ্বাসযোগ্য রাখার পাশাপাশি, জীববৈচিত্র্য,খাদ্য, পানি সরবরাহ, ওষুধ, পোশাক-পরিচ্ছদ, আশ্রয়স্থলের জোগান দিচ্ছে। জীববৈচিত্র্য হচ্ছে খাদ্য নিরাপত্তার একটি গুরুত্বপূর্ণ চলনশক্তি। বিশ্ব অর্থনীতির ৪০ শতাংশ এবং দরিদ্র জনগোষ্ঠীর চাহিদার ৮০ শতাংশ আসে জৈব সম্পদ থেকে। মানবতার ভাগ্য, কল্যাণ সুদৃঢ়ভাবে জৈববৈচিত্র্যের সঙ্গে জড়িত। বর্তমান বিশ্বের সব প্রাণীর খাদ্য নিরাপত্তা আজ হুমকির সম্মুখীন। জীববৈচিত্র্য সংরক্ষেণের মাধ্যমে সব প্রাণীর খাদ্য নিরাপত্তার নিশ্চয়তা বিধান করা সম্ভব।

ডা. মুশতাক হোসেন বলেন, আমরা আমাদের প্রকৃতি পরিবেশ ও জলবায়ুকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে এসেছি। প্রাণ-প্রকৃতিকে ধ্বংস করে কোনও উন্নয়ন পরিকল্পনা টেকসই হয় না। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বিশ্বব্যাপী যে প্রভাব, সেখানে আমাদের আরও প্রাণ ও প্রকৃতিনির্ভর পরিকল্পনার কোনও বিকল্প নেই। কিছু হলেই আমরা যেভাবে গাছ হত্যা করি, বন উজাড় করি তা অদূর ভবিষ্যতে আমাদের ভয়াবহ পরিস্থিতির দিকে ধাবিত করবে।

/এনএআর/
সম্পর্কিত
গরম উপেক্ষা করে মেঘনার তীরে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়
ঈদ আনন্দে ভাঙন আতঙ্ক, ‘কিছু করার নেই’ বলছে পাউবো
জলবায়ু পরিবর্তনে দেশের ১৭ শতাংশ এলাকা তলিয়ে যাবে: পরিবেশমন্ত্রী
সর্বশেষ খবর
ইতিহাস গড়ার অপেক্ষায় রোনালদো
পর্তুগালের ইউরো মিশন শুরু আজইতিহাস গড়ার অপেক্ষায় রোনালদো
ভাঙারির দোকানে লাগা আগুন নেভাতে লাগলো ২ ঘণ্টা
ভাঙারির দোকানে লাগা আগুন নেভাতে লাগলো ২ ঘণ্টা
চীনে চাঁদরাতে ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার, ঈদের সকালে মুকুট!
চীনে চাঁদরাতে ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার, ঈদের সকালে মুকুট!
তেল পাম্পে হামলা চালিয়ে নগদ টাকা লুট
তেল পাম্পে হামলা চালিয়ে নগদ টাকা লুট
সর্বাধিক পঠিত
মাংস কেনা-বেচার ঈদ মোহাম্মদপুরে
মাংস কেনা-বেচার ঈদ মোহাম্মদপুরে
চাষির গোয়াল থেকে ব্যাংকারের ঘরে, লালবাবুর কোরবানি যাত্রা
চাষির গোয়াল থেকে ব্যাংকারের ঘরে, লালবাবুর কোরবানি যাত্রা
পাকিস্তানের চেয়ে ভারতের বেশি পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে: রিপোর্ট
পাকিস্তানের চেয়ে ভারতের বেশি পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে: রিপোর্ট
৬ বছর কারাবাসে খালেদা জিয়ার ‘এক রুমবন্দি’ ১৪তম ঈদ
৬ বছর কারাবাসে খালেদা জিয়ার ‘এক রুমবন্দি’ ১৪তম ঈদ
তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ দ্বারপ্রান্তে, ভারতীয় জ্যোতিষের ভবিষ্যৎবাণী
তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ দ্বারপ্রান্তে, ভারতীয় জ্যোতিষের ভবিষ্যৎবাণী