X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

সকালে যত যাত্রী তত পরিবহন নেই: এনায়েত উল্যাহ

আপডেট : ২১ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:০০

সকালে অফিস টাইমে গণপরিবহনের চাহিদা বেশি থাকায় পরিবহন সংকট দেখা দেয় বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব ও ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ।

তিনি বলেন, আমাদের সব পরিবহন রাস্তায় থাকে। কিন্তু সকালের অফিস সময়ে যে পরিমাণ যাত্রী থাকে সে পরিমাণ গণপরিবহন নেই। যে কারণে আসনের চেয়ে বেশি যাত্রী পরিবহন করতে হয়। যাত্রীরাও বাধ্য হয়ে পরিবহনে উঠে পড়েন। বুধবার (১৯ জানুয়ারি) বাংলা ট্রিবিউনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।

এনায়েত উল্যাহ বলেন, ‘আমরা চাই যাত্রীরা নিরাপদ থাকুক। কিন্তু এজন্য একটি পরিবেশ দরকার। সরকারের কাছে আমরা দাবি করেছিলাম সব আসনে যাত্রী পরিবহনের। সরকার সেই দাবির অনুমোদন দিয়েছে। কিন্তু এরপরও অনেক পরিবহনে দাঁড়িয়ে যাত্রী নেওয়া হয়। বিষয়টি সকালের অফিস সময়ে বেশি ঘটে। কারণ তখন পরিবহনের চাহিদা বেশি থাকে। বিষয়টি এমন নয় যে চাহিদা বাড়লো, আর আমরা গণপরিবহন বাড়িয়ে দিলাম। গণপরিবহন তো স্টক থাকে না।’

এই পরিবহন নেতা আরও বলেন, দেশে গণপরিবহনের চাহিদা এখন অনেক বেড়েছে। আরও বেশি এবং উন্নত গণপরিবহন প্রয়োজন। কিন্তু সে তুলনায় পরিবহন নেই। যে কারণে সমস্যাটি হচ্ছে। এখন যদি অর্ধেক আসনে যাত্রী পারাপারের অনুমতি বহাল থাকতো তাহলে তো বিশৃঙ্খলা ভয়াবহ আকারে দেখা দিতো।

এনায়েত উল্যাহ বলেন, যাত্রীসহ পরিবহন চালক ও সহকারীদের সুরক্ষা দিতে আমরা এরইমধ্যে সবাইকে টিকার আওতায় আনার উদ্যোগ নিয়েছি। বুধবার থেকে মহাখালী টার্মিনালে গণটিকাদান শুরু হয়েছে। প্রথম দিন নয় শতাধিক পরিবহন শ্রমিকদের তালিকা করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সব টার্মিনালে শ্রমিকদের টিকা দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, পরিবহন শ্রমিকরা কঠোর হলে বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। আসন ভর্তি হয়ে যাওয়ার পরও অনেক যাত্রী জোর করে উঠে পড়ে। তখন নামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হলে দুর্ঘটনার আশঙ্কা থাকে। এরপরও অতিরিক্ত যাত্রী যাতে পরিবহন করা না হয় সেজন্য সব মালিক ও শ্রমিকদের কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও তদারকি করছে।

/এমআর/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
ভাড়া নিয়ে বিতর্কে রিকশাচালকের আঘাতে পুলিশসহ আহত ৪
ভাড়া নিয়ে বিতর্কে রিকশাচালকের আঘাতে পুলিশসহ আহত ৪
১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন ৫৫ শতাংশ, স্বাস্থ্য সেবায় বাস্তবায়ন ৩৯ শতাংশ
১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন ৫৫ শতাংশ, স্বাস্থ্য সেবায় বাস্তবায়ন ৩৯ শতাংশ
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে অভিন্ন নীতিমালা তৈরির উদ্যোগ
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে অভিন্ন নীতিমালা তৈরির উদ্যোগ
কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে দায়ী করছেন পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি কর্মীরা
দল বদলের হিড়িককেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে দায়ী করছেন পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি কর্মীরা
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
টাকা ফেরতের দাবি পিপলস লিজিংয়ের আমানতকারীদের
টাকা ফেরতের দাবি পিপলস লিজিংয়ের আমানতকারীদের
তড়িঘড়িতে তকসির (ফটোস্টোরি)
তড়িঘড়িতে তকসির (ফটোস্টোরি)