X
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২
১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

মিরপুরে সেই ৩২ মালিকের প্লটে মাঠ বানালেন কাউন্সিলর

রাশেদুল হাসান
০৩ অক্টোবর ২০২২, ২৩:৪১আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৪:১৫

রাজধানীর মিরপুর-১১ নম্বর সেক্টরে প্যারিস রোডের সি ব্লকে ‘ঢাকা শহর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের’ আওতায় বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে বরাদ্দ দেওয়া প্লটের জায়গায় মাঠ বানানোর অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে।  ২৬ বছর আগে ৩২ জনের নামে বরাদ্দ করা হয় এই প্লট। বরাদ্দপ্রাপ্তরা জানিয়েছেন, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের বরাদ্দ দেওয়া প্রায় ৭৭ কাঠা আয়তনের নিচু জমিটি বালু দিয়ে ভরাট করিয়েছেন স্থানীয় কাউন্সিলর কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক। তিনি এটিকে মাঠ বানিয়েছেন যার নাম দিয়েছেন ‘শেখ ফজলুল হক মনি খেলার মাঠ।’

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ ১৯৯৬ সালে মিরপুর-১১ নম্বরে প্যারিস রোডের সি ব্লকে তাদের ‘ঢাকা অবকাঠামো  উন্নয়ন  প্রকল্পের’ (মধ্যবিত্ত কোটা) ৩২টি প্লট বরাদ্দ দিয়েছিল। কিন্তু বরাদ্দদানের আগে্ ৭৭ কাঠা আয়তনের জলাশয়টি ভরাট করে ঘর বানিয়ে স্থানীয় প্রভাবশালীরা বস্তি গড়ে তোলেন। ২০০২ সালে বস্তিবাসীদের উচ্ছেদ করতে গেলে তারা পুনর্বাসন চেয়ে আদালতে এক রিট পিটিশন করেন। ২০১৩ সালের ১০ জানুয়ারি হাইকোর্ট ডিভিশন  রিট পিটিশন মামলাটি খারিজ করে দেন। মিরপুর-১১ নম্বর সেক্টরে প্যারিস রোডে সেই মাঠ

২০১৬ সালের ২৬ জুন জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ প্রথম শ্রেণির মেজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে উল্লেখিত প্লটগুলো থেকে বস্তিঘর উচ্ছেদ করে মালিকদের নামে বরাদ্দকৃত প্লটগুলির বাস্তব দখল বুঝিয়ে দেয়। একই বছর ২১ আগস্ট হাইকোর্ট ডিভিশন বরাদ্দপ্রাপ্তদের পক্ষে রায় দেন।

সম্প্রতি স্থানীয় কাউন্সিলর কাজী জহিরুল ইসলাম মানিকের ফেসবুক পেজ থেকে একটি লাইভ অনুষ্ঠান প্রচার করা হয়, যাতে দেখা যায় কয়েকদিন আগেও যেটা নিচু ভুমি ছিল সেটি এখন বালি দিয়ে ভরাট করা হয়েছে। সেখানে শতাধিক ছেলেমেয়ে খেলছে। এ লাইভ থেকে যে ধারা বর্ণনা করা হয় তাতে দাবি করা হয়, এ মাঠ তৈরির পিছনে মূল কারিগর কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক।

কাউন্সিলরের ভয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্লট গ্রহীতা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গত ২৯ সেপ্টেম্বর, কাউন্সিলর মানিক স্কুল কলেজের ছেলেমেয়েদের নিয়ে মাঠ চাই মাঠ চাই স্লোগানে অনশনের নাটক করেন। সেখানে তিনি ভুল বুঝিয়ে উত্তর সিটি করপোরেশন মেয়র আতিকুল ইসলামকে দিয়ে এখানে আমাদের প্লটে মাঠ তৈরি ঘোষণা নেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আদালতের নির্দেশেনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সেই দিন থেকে সিটি করপোরেশনের গাড়ি এবং তার টাকা ভাড়া করা গাড়িতে বালু এনে পুরো খালি ও নিচু প্লট ভরাট করে ফেসবুকে লাইভ করেন। এ কাজ সিটি করপোরেশেনের বুলডোজার ও ডাম্প ট্রাক ব্যবহার করা হয়।’ বালু দিয়ে ভরাট করার আগে যেমন ছিল সেই প্লট

এ ব্যাপারে কাউন্সিলর কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক বলেন, ‘এ জায়গা আমি ভরাট করিনি। ভরাট করে মাঠ বানিয়েছে ৩ নম্বর ওয়ার্ডের তিন লাখ জনগণ। আমাদের অনুমতি নিয়ে ভরাট করা হয়নি।’

নিজ নামে ফেসবুক লা্ইভে মাঠের মূল কারিগরের বিষয়টি উল্লেখ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি আসলে অসুস্থ। কিছুক্ষণ আগেও ডাক্তারের কাছে থেকে এসেছি । এ পেজ চালায় আমাদের ছোট ভাই ইমরান তালুকদার।’

জিডি করেছেন ভুক্তভোগী ও মিরপুরের গৃহসংস্থান বিভাগ-২

জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের ৩২টি আবাসিক প্লটে অবৈধভাবে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য পল্লবী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন যার নম্বর ১০০।

মিরপুর গৃহসংস্থান বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী কাওসার মোর্শেদ স্বাক্ষরিত এ জিডিতে বলা হয়েছে, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের মিরপুর ১১ নম্বর সেকশনে প্যারিস রোড সংলগ্ন ৩২টি আবাসিক প্লট বিভিন্ন শ্রেণি/ পেশার লোকদের বরাদ্দ দেওয়া হয়। বরাদ্দকৃত প্লটগুলোর বাস্তব দখলে দলিল সম্পাদন করে দেওয়া হয়। ওই ৩২টি প্লটের জায়গায় কে বা কারা মাটি ভরাট করে দখলের পাঁয়তারা করছে। যা সম্পূর্ণরুপে বেআইনি।  এমতাবস্থায়, সরকারি সম্পত্তি রক্ষার স্বার্থে অবৈধভাবে দখলের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো।

তিনি ছাড়াও ভুক্তভোগীদের পক্ষে একই থানায় এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে জিডি করেন ফাতেমা বেগম। জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন,  গত ১৮ সেপ্টেম্বর তাদের বরাদ্দ পাওয়া স্থাপনা নির্মাণ করতে গেলে স্থানীয় বেশ কিছু লোকজন আমাদের কাজ বন্ধ করে দেয় এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। তাদের বাধার কারণে বরাদ্দপ্রাপ্তরা  নির্মাণ কাজ পারছে না।

পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম এ বিষয়ে বলেন, ‘এ জায়গাটি জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ ৩২ জন প্লট মালিককে বুঝিয়ে দেয়। তবে জায়গাটি বেদখল হয়ে যায়। স্থানীয় কাউন্সিলর জানিয়েছেন এখানে ময়লা আবর্জনা পড়েছিল। পরে নাকি মেয়র সাহেব আসেন। তিনি নাকি বলছিলেন এখানে ময়লা আবর্জনার মধ্যে ডেঙ্গুর লার্ভা পাওয়া গেছে। মেয়র সাহেব নাকি ময়লার পরিষ্কার করার জন্য কাউন্সিলরকে নির্দেশ দিয়েছেন। উনি সেই ময়লা পরিষ্কার করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘মানিকের সাহেব বলছেন এখানে নাকি মাঠ ছিল, তিনি এখানে খেলেছেন। মেয়র সাহেব নাকি তাকে বলেছেন এখানে মাঠ করার জন্য। এ বিষয়ে আমি আমার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলেছেন জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ থেকে যদি ম্যাজিস্ট্রেট আসে তারা যদি এটার দখল চায় আমরা সাহায্য করবো।’

আরও পড়ুন- ২৬ বছরেও প্লটের দখল পাননি ৩২ মালিক, মাঠ বানাতে চান কাউন্সিলর

/এফএস/
ডিসেম্বরজুড়ে বিটিভিতে বর্ণাঢ্য আয়োজন
ডিসেম্বরজুড়ে বিটিভিতে বর্ণাঢ্য আয়োজন
মাসটি বিজয়ের
মাসটি বিজয়ের
ফ্রান্সকে হারিয়েও তিউনেশিয়ার বিদায়
ফ্রান্সকে হারিয়েও তিউনেশিয়ার বিদায়
১৮ কোটি টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া দিনাজপুর পৌরসভার
১৮ কোটি টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া দিনাজপুর পৌরসভার
সর্বাধিক পঠিত
লুট হওয়া ১১ অস্ত্র মিয়ানমার থেকে ফেরত পাওয়ার আশা বিজিবির
লুট হওয়া ১১ অস্ত্র মিয়ানমার থেকে ফেরত পাওয়ার আশা বিজিবির
রিট করার পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট
ইসলামী ব্যাংকের ৩০ হাজার কোটি টাকা ঋণরিট করার পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট
তিনি সাধারণ শিক্ষার্থীদের নেতা
তিনি সাধারণ শিক্ষার্থীদের নেতা
৪ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ট্রেন চলাচল বন্ধ
৪ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ট্রেন চলাচল বন্ধ
তুরস্কের প্রতি সংহতি ন্যাটোর
তুরস্কের প্রতি সংহতি ন্যাটোর