X
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪
২১ ফাল্গুন ১৪৩০

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ঋণ না দিয়ে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
১২ অক্টোবর ২০২৩, ২২:৪৪আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২৩, ২২:৪৪

ধনী দেশ ও আন্তর্জাতিক আর্থিক সংস্থাগুলো জলবায়ু অর্থায়নের নামে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে ঋণগ্রস্ত করে ফেলছে। তাই জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ঋণ না দিয়ে দায়ী ধনী দেশগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এই দাবি জানায়– বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশন, সেন্টার ফর পার্টিসিপেটরি রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (সিপিআরডি), ইক্যুইটি অ্যান্ড জাস্টিস ওয়ার্কিং গ্রুপ বাংলাদেশ (ইক্যুইটিবিডি), গ্লোবাল ল থিঙ্কার্স সোসাইটি (জিএলটিএস), নিরাপদ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এনডিএফ), উপকুল সুরক্ষা আন্দোলন, ইয়ুথ নেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিস এবং ওয়াটার কিপার।

তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোর তথাকথিত সব জলবায়ু ঋণ বাতিলের দাবি জানিয়ে মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ধনী দেশ ও আন্তর্জাতিক আর্থিক সংস্থাগুলো জলবায়ু অর্থায়নের নামে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে ঋণগ্রস্ত করে ফেলছে। জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ী ধনী দেশগুলোকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, কোনোভাবেই ঋণ নয়।

ইক্যুইটিবিডি’র আমিনুল হক বলেন, ১৯৮০-এর দশকে আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর স্ট্রাকচারাল অ্যাডজাস্টমেন্ট প্রোগ্রামের মাধ্যমে স্বল্পোন্নত দেশগুলো থেকে ট্রিলিয়ন ডলারের সম্পদ সরিয়ে নিয়েছে ধনী দেশগুলো। এখন তারা ‘জলবায়ু পরিবর্তন’ নামক একটি নতুন বৈশ্বিক সমস্যাকে সামনে নিয়ে এসে ‘জলবায়ু অর্থায়ন’ নামে স্বল্পোন্নত ও জলবায়ু বিপদাপন্ন দেশগুলোকে ঋণের ফাঁদে ফেলতে চাচ্ছে।

প্যারিস চুক্তিকে অন্যায্য একটি চুক্তি অভিহিত করে তিনি আরও বলেন, বর্তমান অর্থায়ন প্রক্রিয়া আসলেই অন্যায্য। সুতরাং, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য দরিদ্র দেশগুলোকে দেওয়া জলবায়ু অর্থায়ন ধনী দেশগুলোর ক্ষতিপূরণ হিসেবে দিতে হবে। পাশাপাশি এসব অর্থায়ন হতে হবে শর্তহীন।

ওয়াটার কিপার্সের শরীফ জামিল বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ঋণনির্ভর নীতি সহায়তা গ্রহণ করায় বাংলাদেশসহ অনেক স্বল্পোন্নত দেশ ইতিমধ্যে ঋণের ফাঁদে আটকে গেছে। জাইকা চালিত ইন্টিগ্রেটেড এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার মাস্টার প্ল্যান- ২০৩০ একটি ত্রুটিপূর্ণ পরিকল্পনা এবং এটি বাংলাদেশের জন্য পরনির্ভরতা তৈরি করবে। সরকারকে এই ত্রুটিপূর্ণ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সতর্কতার সঙ্গে এগোতে হবে।

উপকূল সুরক্ষা আন্দোলনের নিখিল চন্দ্র ভদ্র বলেন, দরিদ্র দেশগুলো ঋণ পরিশোধের জন্য ইতিমধ্যে কৃষিসহ দারিদ্রবান্ধব সরকারি সেবা খাতে ব্যয় কমিয়ে দিয়েছে, ফলে বাড়ছে দারিদ্রতা। ঋণ নির্ভর দুষ্টচক্র জলবায়ু বিপর্যয়কে আরও তীব্রতর করে তুলছে এবং জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় রাষ্ট্রীয় সক্ষমতাকে দুর্বল করে তুলছে। এ কারণেই জলবায়ু ঋণ বাতিলের কোনও বিকল্প নেই।

কৃষক ফেডারেশনের বদরুল আলম বলেন, আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর দরিদ্র বিরোধী ভূমিকা হতাশাজনক। এখন তারা আবার তথাকথিত নীতি সমর্থন নিয়ে হাজির হয়েছে, যা অতি বিপদাপন্ন দেশগুলোর জন্য ঋণের বোঝা তৈরি করছে। বিদ্যমান বৈশ্বিক আর্থিক প্রক্রিয়া সম্পদ পাচার উপযোগী একটি শোষণমূলক প্রক্রিয়া।

এ সময় তিনি জাতিসংঘের আওতায় একটি অংশগ্রহণমূলক, গণতান্ত্রিক এবং টেকসই অর্থ ব্যবস্থার সুপারিশ করেন।

মানববন্ধনে সঞ্চালনা করেন কোস্ট ফাউন্ডেশনের মোস্তফা কামাল আকন্দ।

/এএজে/আরআইজে/
সম্পর্কিত
জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনায় স্বাস্থ্য বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হবে: পরিবেশমন্ত্রী
‘এমন অযাচিত দুর্ঘটনায় আর কোনও প্রাণ যেন না হারায়’
টেকসই খাদ্য নিরাপত্তায় মূল চ্যালেঞ্জ জলবায়ু পরিবর্তন: কৃষিমন্ত্রী
সর্বশেষ খবর
৩০ ঘণ্টা ধরে আগুন জ্বলছে চিনিকলে
৩০ ঘণ্টা ধরে আগুন জ্বলছে চিনিকলে
দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর এসি চালুর আগে যে ৫ সতর্কতা জরুরি
দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর এসি চালুর আগে যে ৫ সতর্কতা জরুরি
গর্ভপাতকে সাংবিধানিক অধিকার দিলো ফ্রান্স
গর্ভপাতকে সাংবিধানিক অধিকার দিলো ফ্রান্স
চাকরি না করেই নিয়েছেন বেতন-ভাতা, শখ অধ্যক্ষ হওয়া
চাকরি না করেই নিয়েছেন বেতন-ভাতা, শখ অধ্যক্ষ হওয়া
সর্বাধিক পঠিত
শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি খেলাফত মজলিসের
শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি খেলাফত মজলিসের
৩ কারণে কাক কমছে ঢাকায়, পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা
৩ কারণে কাক কমছে ঢাকায়, পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা
সাত মসজিদ রোডের সব বুফে রেস্তোরাঁ বন্ধ
সাত মসজিদ রোডের সব বুফে রেস্তোরাঁ বন্ধ
বাংলাদেশ ভ্রমণ শেষে ভারতে গিয়েই সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ব্রাজিলিয়ান তরুণী
বাংলাদেশ ভ্রমণ শেষে ভারতে গিয়েই সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ব্রাজিলিয়ান তরুণী
ইউক্রেন অবশ্যই রাশিয়ার অংশ: পুতিন মিত্র
ইউক্রেন অবশ্যই রাশিয়ার অংশ: পুতিন মিত্র