রবিবার ওষুধ প্রশাসনের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন গণস্বাস্থ্যের গবেষকরা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:৫৪, জুলাই ০৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৫৭, জুলাই ০৪, ২০২০

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র (ছবি: সাভার প্রতিনিধি)করোনাভাইরাসের অ্যান্টিবডির কিটের উন্নয়নে পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করতে ওষুধ প্রশাসনে যাবেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গবেষকরা। রবিবার (৫ জুলাই) সকালে তাদের ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরে যাওয়ার কথা রয়েছে। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের অ্যান্টিবডি কিটের উদ্ভাবক দলের প্রধান বিজ্ঞানী ড. বিজন কুমার শীল বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, রবিবার (৫ জুলাই) সকালে আমরা ওষুধ প্রশাসন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দেখা করতে যাবো। ফেডারেল ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন নতুন গাইডলাইন অনুযায়ী অ্যান্টিবডি কিটের মানও উন্নয়ন করা হয়েছে। এখন তাদের মতামত কী সেই বিষয়ে আলোচনা করবো। এরপর কিটের অনুমোদনের পরবর্তী ধাপের কাজ শুরু হবে।
ঐক্যফ্রন্টের দপ্তরের দায়িত্বে থাকা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু ড. বিজনকে উদ্ধৃত করে বলেন, বিজন কুমার জানিয়েছেন তারা অ্যান্টিবডি কিটের সংবেদনশীলতা আরও বৃদ্ধি করেছে। এখন এটি অ্যান্টিবডিটিকে আরও দক্ষতার সঙ্গে শনাক্ত করতে পারে।
অনুমোদনের ১৫ দিনেই মধ্যেই ৫ হাজার কিট দেবো: ডা. জাফরুল্লাহ
গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনা অ্যান্টিবডি কিটের অনুমোদন পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে ৫ হাজার কিট উৎপাদন করা হবে বলে জানিয়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, ড্রাগ অধিদফতরের মহাপরিচালক আগামীকাল অ্যান্টিবডি কিটের আপডেটেড তথ্য-উপাত্ত জানতে কর্মকর্তাদের ডেকেছেন। কালই যদি আমাদের কিটের অনুমতি দেয় তবে আমরা জনগণের জন্য ১৫ দিনের মধ্যে ৫ হাজার অ্যান্টিবডি কিট তৈরি করবো।
তিনি আরও বলেন, জিকে গবেষকরা এরই মধ্যে ডিজিডিএর নির্দেশিকা বজায় রাখার জন্য অ্যান্টিবডি কিট আপডেট করেছে এবং ডিজিডিএ তাদের বৈজ্ঞানিক নথি উপস্থাপনের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছে। আমি আশা করি ডিজিডিএ এখন আমাদের কিটে পুরোপুরি সন্তুষ্ট হবে এবং অনুমতি দেবে।

 

/এএইচআর/এমআর/

লাইভ

টপ