এ্যাজাক্স জুটমিল উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:১৬, অক্টোবর ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:২৬, অক্টোবর ২৮, ২০২০

122718424_1327839880891532_8271422925008296078_nখুলনার দৌলতপুরে এ্যাজাক্স জুট মিল দুর্নীতিবাজদের হাত থেকে উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন ঐ প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী মো. কাওছার জামান বাবলা। বুধবার ২৮ অক্টোবর জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই আহ্বান জানান।

সংবাদ সম্মেলনে বাবলা বলেন, ২০১৫ সালের শেষদিকে উৎপাদন ব্যবস্থা অব্যাহত রাখতে না পারায় এ্যাজাক্স জুট মিলস লিমিটেড বন্ধ হয়ে যায়। মিল বন্ধ থাকা অবস্থায় স্থানীয় সাজ্জাদুর রহমান লিংকন ও তার বাহিনী সম্পূর্ণ অবৈধ উপায়ে, বল প্রয়োগ করে, অন্যায়ভাবে জুটমিলটি জবরদখল করে। বিগত পাঁচ বছরের জুটমিলের অভ্যান্তরে সে কোটি কোটি বস্তা রাসায়নিক সার খোলা অবস্থায় মজুদ করে এবং মিলের খালি জায়গা ভাড়া দেয়। বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও লিংকন জুটমিলটি দখল করে রাখে এবং পুরো মিল এলাকায় কোটি কোটি বস্তা রাসায়নিক সার মজুদ ও অবৈধভাবে ব্যবসা করতে থাকে। বর্তমানে মিলের অভ্যন্তরে সর্বত্রই সারের বস্তা রাখতে গিয়ে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়া হয়েছে মিলটির বাইরে রাস্তা সংলগ্ন নিরাপত্তা প্রাচির।

তিনি আরও বলেন, বিপুল পরিমাণ রাসায়নিক সার মজুদের ফলে মিলের আশেপাশের পরিবেশ প্রতিনিয়তই দূষিত হচ্ছে। যার ফলে মিল এলাকায় বসবাসরত প্রায় তিন শতাধিক শ্রমিক, কর্মচারী, কর্মকর্তা এবং তাদের পরিবার বিশেষ করে শিশুরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। বাতাসে দীর্ঘদিন ধরে রাসায়নিক সারের বিষক্রিয়ার কারণে যন্ত্রপাতি ও দেওয়ালে নোনা ধরে গেছে এবং অতিরিক্ত ১০ চাকার ট্রাক চলাচলের কারণে মিলের অভ্যন্তরীন রাস্তায় চলাচলের অনুপযোগী হয়ে গেছে। বর্তমানে প্রায় শত কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে মিলটি। লিংকন ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী এলাকায় এতটাই শক্তিশালী যে, তারা জুট মিলের কোটি কোটি টাকার মূল্যমান যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশ চুরি করে বিক্রিও করে দিচ্ছে।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মিলের সকল স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি সোনালী ব্যাংক লিমিটেড এর কাছে দায়বদ্ধ। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ, খুলনা জেলা প্রশাসক, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, পুলিশ সুপার খুলনা, সোনালী ব্যাংক লিমিটেডসহ বিভিন্ন সরকারি দফতরে অভিযোগ দিয়েও আমি কোনও প্রতিকার পাইনি।

তিনি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করে বলেন, এই দখলদার লিংকনের হাত থেকে সহস্রাধিক শ্রমিকের কর্মস্থল জুট মিলটি উদ্ধার, সার সরানো এবং লিংকনের অবৈধ উপায়ে অর্জিত কোটি কোটি টাকা দুর্নীতি তদন্ত পরবর্তী আইনত ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি এবং সহযোগিতা কামনা করছি।

 

/এইচএন/এফএএন/

লাইভ

টপ